kalerkantho

সরকারি আদেশে নাম নেই

রেলমন্ত্রীর সঙ্গে ভারত সফরে ব্যবসায়ী!

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রেলমন্ত্রীর সঙ্গে ভারত সফরে ব্যবসায়ী!

ভারত সফরে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের আটজনের সরকারি প্রতিনিধিদলে তাঁর নাম নেই। প্রধানমন্ত্রীর কাছে রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো সফরের সারসংক্ষেপেও নেই তাঁর নাম। সরকারিভাবে জারি করা আদেশে আছে আট প্রতিনিধির নাম। অথচ দিল্লির বাংলাদেশ দূতাবাসের এক কর্মকর্তা প্রভাব খাটিয়ে শেষ মুহূর্তে এক ব্যবসায়ীর নাম প্রতিনিধিদলে অন্তর্ভুক্ত করেন। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীর ভারত সফর ঘিরে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে খোদ বাংলাদেশ রেলওয়েতে। ওই ব্যবসায়ীর নাম মো. আফসার আলী বিশ্বাস। রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলটি গতকাল শনিবার বিকেলে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে দিল্লির উদ্দেশে রওনা হয়ে গেছে। ভারতে নতুন সরকার গঠনের পর উভয় দেশের মধ্যে বিরাজমান সোহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের ধারাবাহিকতায় এ সফরকে সৌহার্দ্য সফর বলছে রেলপথ মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ রেলওয়ে। তবে এ সফরে বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য ভারত থেকে ২০টি রেল ইঞ্জিন আনা, ভারতীয় ঋণে নেওয়া প্রকল্পগুলোয় গতি বাড়ানো, ‘বন্ধন’ ট্রেন চলাচলের দিন বাড়ানোসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভারত সরকারের সঙ্গে প্রতিনিধিদলটি আলোচনা করবে। ভারতের রেলমন্ত্রী ও রেল মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রতিনিধিদলের বৈঠকের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এসংক্রান্ত কাজে ব্যবসায়ী আফসার আলী বিশ্বাসের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। সরকারি আট সদস্যের প্রতিনিধিদলে অন্যদের মধ্যে রয়েছেন সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর, এইচ এম ইব্রাহীম, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মুজিবুর রহমান, বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক খন্দকার শহীদুল ইসলামসহ রেলওয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

গত শুক্রবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ের রেলমন্ত্রীর দপ্তরের এক কর্মকর্তা ভারতের দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশনে কমার্শিয়াল কাউন্সিলরের কাছে লিখিতভাবে এর ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছেন। জানতে চাওয়া হয়েছে ভারতের রেল মন্ত্রণালয় ওই ব্যবসায়ীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে কি না। তবে গতকাল সফরের আগ পর্যন্ত ওই চিঠির জবাব দেওয়া হয়নি দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে।

মন্তব্য