kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

বুড়িগঙ্গা দূষণ রোধ

পদক্ষেপ এক সপ্তাহের মধ্যে জানাতে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পদক্ষেপ এক সপ্তাহের মধ্যে জানাতে হাইকোর্টের নির্দেশ

প্রায় আট বছর আগে দেওয়া রায়ের নির্দেশনা অনুযায়ী বুড়িগঙ্গা দূষণ রোধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছি কি না, নেওয়া হলে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং কী অগ্রগতি হয়েছে সে বিষয়ে এক সপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঢাকা ওয়াসার এমডি, বিআইডাব্লিউটিএর চেয়ারম্যান, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ঢাকার জেলা প্রশাসক ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল সোমবার এ আদেশ দেন। আদালতের আগের আদেশ মেনে যথাযথভাবে প্রতিবেদন দাখিল না করায় গতকাল এ আদেশ দেন হাইকোর্ট। মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) করা এক আবেদনে এ আদেশ দেওয়া হয়। আদালতে আবেদনকারী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। ওয়াসার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এম এ মাসুম, বিআইডাব্লিউটিএর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন মাহফুজুর রহমান এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন নাজমুল হক।

এর আগে হাইকোর্ট গত ২ মে এক আদেশে সংশ্লিষ্টদের দুই সপ্তাহের মধ্যে রায় বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানাতে নির্দেশ দেন। এরই ধারাবাহিকতায় ওয়াসার এমডি, বিআইডাব্লিউটিএর চেয়ারম্যান, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও ঢাকার ডিসির পক্ষ থেকে পৃথক চারটি প্রতিবেদন দেওয়া হয়। কিন্তু এই প্রতিবেদনে রায়ের নির্দেশনা প্রতিফলিত না হওয়ায় পুনরায় তাদের প্রতিবেদন দিতে এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়েছে।

এইচআরপিবির করা এক রিট আবেদনে হাইকোর্ট ২০১১ সালের ১ জুন এক রায়ে বুড়িগঙ্গায় বর্জ্য ফেলা বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে তিন দফা নির্দেশনা দিয়েছিলেন। রায়ে বুড়িগঙ্গায় সংযুক্ত সব পয়ঃপ্রণালীর লাইন (স্যুয়ারেজ) ও শিল্প-কারখানার বর্জ্য নিঃসরণের লাইন এক বছরের মধ্যে বন্ধ করতে ওয়াসার চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে নদীতে বর্জ্য ফেলা রোধে প্রতি মাসে নদীর দুই পারে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান করতে ঢাকা সিটি করপোরেশনকে নির্দেশ দেওয়া হয়। এ ছাড়া আদালতের রায় সম্পর্কে জনগণ যাতে জানতে পারে সে জন্য নদীতীরবর্তী এলাকায় সাইনবোর্ড ও প্ল্যাকার্ড স্থাপন করতে হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা