kalerkantho

বেতনের দাবিতে কর্মচারীরা ঢাকায়

পৌরসভাগুলোর সব সেবা বন্ধ দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পৌরসভাগুলোর সব সেবা বন্ধ দুর্ভোগ

বেতন-ভাতার দাবিতে পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

বকেয়া পাওনা ও রাজস্ব খাত থেকে শতভাগ বেতন পরিশোধের দাবিতে দেশের সব কটি পৌরসভার কর্মচারীরা দুই দিন ধরে ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান করছেন। ফলে পৌরসভাগুলোর সব ধরনের সেবা বন্ধ রয়েছে। পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা জানিয়েছেন, তাঁদের এ ঢাকা অবস্থান কর্মসূচি অনির্দিষ্টকালের জন্য। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা কর্মস্থলে ফিরবেন না।

পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে জানা যায়, দেশের প্রায় ৭৬ শতাংশ পৌরসভায় কর্মচারীদের দুই থেকে ৬০ মাস পর্যন্ত বেতন বকেয়া। এ বকেয়া পাওনা আদায় ও সরকারি কোষাগার থেকে শতভাগ বেতন পরিশোধের দাবি নিয়ে তারা দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে। কিন্তু স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় তাদের দাবির প্রতি কোনো সহানুভূতি দেখায়নি। গত বছর ২৩ ফেব্রুয়ারি পৌর কর্মচারীরা প্রথম ঢাকায় অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করেন। দ্বিতীয়বার গত জাতীয় নির্বাচনের আগে ঢাকায় অবস্থান নেন। সে সময়ের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল মালেক দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে পৌর কর্মচারীরা কর্মসূচি প্রত্যাহার করে। তবে তাদের দাবি পূরণের বিষয়ে কোনো অগ্রগতি হয়নি। সব শেষ গত রবিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়েছে তারা।

দেশের ৩২৭টি পৌরসভার মধ্যে ২২৬টিতেই কর্মচারীদের বেতন বকেয়া। তাদের বেতনের মাত্র ০.৪৫ শতাংশ দেওয়া হয় রাজস্ব খাত থেকে। বাকি বেতন পরিশোধ করার কথা পৌরসভার নিজস্ব আয় থেকে। বিভিন্ন বর্তমান সরকারের সময় রাজনৈতিক কারণে পৌরসভা গঠন করা হয়েছে। ওই সব পৌরসভার আয় থেকে কর্মচারীদের বেতন পরিশোধ অসম্ভব। এ ছাড়া পৌরসভাগুলোর রাজনৈতিক নেতৃত্ব অনেক সময় ঢালাওভাবে পৌরকর মওকুফ করায় আয় কমে যায়। এসব কারণে পৌরসভাগুলোর কর্মচারীদের বকেয়ার পরিমাণ দিন দিন বেড়েই চলছে।

পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবদুল আলীম মোল্লা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া বেতন ও সরকারি কোষাগার থেকে শতভাগ বেতন পরিশোধের দাবিতে আন্দোলন করছি। ৬০ মাস পর্যন্ত বেতন বাকি। আমাদের সংসার কিভাবে চলে তা কেউ চিন্তাও করে না। আমাদের নিয়োগ, বদলি ও শাস্তি দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। তবে বেতন নিতে বলে পৌরসভা থেকে। এখন আমরা ঢাকায় অবস্থান নিয়েছি। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ফিরব না।’

গলাচিপায় পানি সরবরাহ বন্ধ, দুর্ভোগ

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি জানান, ঢাকায় অবস্থান কর্মসূচির কারণে গলাচিপা পৌরসভার সব ধরনের সেবা বন্ধ রয়েছে। ফলে পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। ময়লা পরিষ্কার হচ্ছে না। নানা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে পৌর নাগরিকদের।

মন্তব্য