kalerkantho

গলাচিপা গৌরনদীতে দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গলাচিপা গৌরনদীতে দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ

পটুয়াখালীর গলাচিপা ও বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় দুই মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণ এবং রাজবাড়ীতে এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মাদারীপুরের রাজৈরে ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

গলাচিপা (পটুয়াখালী) : গলাচিপা উপজেলায় গত ২৬ জুন এক শিশু শিক্ষার্থীকে (১১) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে একটি হাফিজিয়া মাদরাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে। উত্তর চরবিশ্বাস হাদিউল উম্মা মহিলা মাদরাসার অভিযুক্ত শিক্ষক মোহম্মদ ফরাজীকে আসামি করে শিশুটির বাবা গতকাল শনিবার গলাচিপা থানায় একটি মামলা করেছেন।

মামলার পর থেকে তিনি পলাতক।

পুলিশ জানায়, মোহম্মদ ফরাজী ২৬ জুন ফজর নামাজের পর শিশুদের শ্রেণিকক্ষে পড়াতে বসেন। পরে তিনি একটি শিশুকে অন্য কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

গলাচিপা থানার ওসি আখতার মোর্শেদ বলেন, শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

গৌরনদী (বরিশাল) : গৌরনদীতে গত বৃহস্পতিবার এক মাদরাসাছাত্রীকে (৬) ধর্ষণের অভিযোগে শুক্রবার রাতে মডেল থানায় মামলা করেছেন শিশুটির মা। আসামি আজিজুল হক (১৯) উপজেলার টরকির চর এলাকার পান্নু মোল্লার ছেলে। ভিকটিমকে গতকাল বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবর রহমান বলেন, আসামিকে ধরতে অভিযান চলছে।

রাজবাড়ী : সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নে গত শুক্রবার রাতে এক কলেজছাত্রীকে তাঁর বাড়িতে ঢুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে ফরিদ দেওয়ান (৪৫) নামে এক স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে। টের পেয়ে স্থানীয় লোকজন ফরিদকে আটকের পর পিটুনি দেয়। পরে ফরিদ এবং ওই ছাত্রী ও তাঁর অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলে ১০ লাখ টাকার কাবিননামায় উভয়কে বিয়ে দেওয়া হয়। প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ছাড়াই এ বিয়ে করেছেন ফরিদ। তিনি রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নের বাজিত্পুর গ্রামের সাত্তার দেওয়ানের ছেলে ও মিজানপুরের সূর্যনগর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তাঁর দুই সন্তান রয়েছে। বড় মেয়ে একাদশ শ্রেণিতে পড়ে।

জানা যায়, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ওই ছাত্রীর বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিক্ষক ফরিদ দেওয়ান সেখানে গিয়ে ছাত্রীকে ডেকে ঘর খুলতে বলেন। পরে কিছু সময় গল্প করার পর তিনি ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। ছাত্রীর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এসে ফরিদকে আটক করে পিটুনি দেয়।

রাজবাড়ী থানার এসআই জাহিদুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে দেখে উভয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। এ জন্য পুলিশ আইনি পদক্ষেপ নিতে পারেনি।  

রাজৈর (মাদারীপুর) : রাজৈরে তৃতীয় শ্রেণির মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত নূর হোসেন মৃধাকে (৪৭) আসামি করে গতকাল থানায় মামলা করেছে শিশুটির বাবা। সহকারী পুলিশ সুপার আবির হোসেন ও থানার ওসি মো. শাহজাহান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ জানায়, আসামি পলাতক। তবে শিগগিরই তাঁকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।

এদিকে প্রভাবশালী মহল অভিযুক্তকে রক্ষায় ব্যাপক তৎপরতা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ।

 

মন্তব্য