kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

ইউরোপমুখী নৌকায় আরো ৬৪ বাংলাদেশি

তিউনিশিয়া উপকূলে ভেড়ার অপেক্ষায় উদ্ধারকারী টাগবোট

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

৪ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ইউরোপমুখী নৌকায় আরো ৬৪ বাংলাদেশি

ছবি: ইন্টারনেট

লিবিয়া থেকে ইউরোপ অভিমুখী আরো একটি নৌকায় এবার ৬৪ বাংলাদেশি থাকার তথ্য পাওয়া গেছে। সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে বলেছে, ৬৪ বাংলাদেশিসহ ৭৫ জন আরোহী নিয়ে একটি নৌকা গত শুক্রবার ভূমধ্যসাগর দিয়ে ইউরোপের দিকে যাচ্ছিল। কিন্তু তিউনিশয়ার কাছাকাছি আন্তর্জাতিক জলসীমায় নৌকাটি বিকল হয়ে পড়লে মিসরীয় একটি টাগবোট (অন্য নৌযানকে টেনে নিয়ে যায় এমন নৌযান) তাদের উদ্ধার করে। কিন্তু তিউনিশিয়া কর্তৃপক্ষ অভিবাসীবোঝাই সেই টাগবোটকে ভিড়তে দিচ্ছে না। গতকাল সোমবার বিকেলে এ প্রতিবেদন লেখার সময় তাদের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানা যায়নি। টাগবোট তিউনিশিয়ার জারজিস বন্দরে নোঙর করার অনুমতি চেয়েছে।

ওই টাগবোটটির ক্যাপ্টেন বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, তিনি অত্যন্ত জটিল পরিস্থিতিতে আছেন। তাঁর টাগবোটে ১০০ জন আরোহী আছে। টাগবোটে মাত্র দুই দিনের খাবার মজুদ আছে।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্রে জানা গেছে, উদ্ধার হওয়া ৭৫ অভিবাসীর মধ্যে ৯ জন মিসরের এবং একজন করে মরক্কো ও সুদানের নাগরিক রয়েছে। বাংলাদেশি বলে দাবি করা ৬৪ জন হলেন মীর আজিজুল ইসলাম (৩৭), মো. লাদেন মাতুব্বর (১৬), আবু বকর সিদ্দিক (২৩), নিয়ামত শিকদার (১৭), মো. ইসরাফিল মৃধা (১৬), রাসেল মাতবর (২৯), জয়নুল ইসলাম (৩৭), আবদুস সাত্তার আমিনুল্লাহ (২৯), সালাউদ্দিন ইসলাম (২২), শাহাদাত ফজলু সরকার (১৭), মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম (২০), হাফিজ আবদুল্লাহ (১৭), আওয়াল হাওলাদার (২০), শফিকুল ইসলাম (৩৩), রাজিব (১৭), মেরাজ হোসেন (২২), শাকিল মিয়া (২০), জুয়েল সজল (২৮), আজাদ হারুণ বেপারী (১৭), আবুল কালাম জাহিদ (১৭), তারিকুল ইসলাম সোহেল (১৭), লিয়াকত আলী হোসেন আসলাম (২৩), আবদুর রাজ্জাক হারুন (৩০), মো. রাকিব হাসান আনিস (১৭), জিল্লুর রহমান (৩৪), মো. নোমান আহমেদ (২২), কামরুল হাসান (২৫), অলিউর রহমান (২৪), ওয়াসিম সুলতান বেপারী (১৭), মো. মনিরুল ইসলাম হুমায়ুন (২৪), শিপন হেলাল (২১), সাইফুল ইসলাম (২৯), সজল খন্দকার (১৭), দেলোয়ার হোসেন মাসুম (২০), মীর ইলিয়াস সাইমুম (২০), পিয়ার আলী গফুর মোল্লা (২২), ফরাজি হারুন সজল (১৭), ইদ্রিস জমাদ্দার ইউনুস (২৪), মো. আবুল বাশার পারভেজ (১৭),

হামিদুল হোসেন (১৭), আবদুল হাই সিদ্দিক (১৭), জহিরুল আহমেদ তানভীর (১৭), শফিকুল ইসলাম তাজুল (২৬), মাতবর সেকান্দর কবির (২৮), নাইম হাসান হেলাল (১৭), হেফজুর রহমান (১৮), আবদুল্লাহ ভুইয়া (১৬), নাইম মিয়া (১৭), আকমল ইসলাম নিয়ামত (১৭), জাহিদুর রহমান (১৭), নিলয় বেপারী (১৭), আরমান খান মিরাজ (১৭), শান্ত মিয়া (২৩), অলিউর রহমান (২৫), নেজামুল হোসেন (৩৩), নয়ন ইসলাম (১৭), শফিকুল ইসলাম মোল্লা (১৭), নাইম ইসলাম (১৭), ফজলুল হক এনামুল (১৭), মামুনুর রশিদ জলিল (১৮), জাফরুল হোসেন (৩৩), তানভীর আহমেদ (২১), রাকিব মিয়া (১৭) ও সুমন আহমেদ (১৬)।

আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তাঁরা দালালকে টাকা দিয়ে অবৈধভাবে ইউরোপে যাচ্ছিলেন। তিউনিশিয়ায় বাংলাদেশের দূতাবাস নেই। প্রতিবেশী লিবিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে গতকাল যোগাযোগ করা যায়নি। ত্রিপোলির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে জাতিসংঘ সমর্থিত ত্রিপোলিভিত্তিক সরকারের সঙ্গে বিদ্রোহী হাফতার বাহিনীর ব্যাপক সংঘর্ষ চলছে। জাতিসংঘ বলেছে, ওই সংঘাতে ৯০ হাজারেরও বেশি লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

এদিকে লিবিয়ার কোস্ট গার্ড গত রবিবার জানায়, পশ্চিম লিবিয়া উপকূলের কাছে রাবারের একটি নৌকা ডুবে দুজন অভিবাসী মারা গেছে। এ ছাড়া ২৫ অভিবাসী নিখোঁজ রয়েছে। ওই নৌকাটিও অবৈধভাবে ইউরোপে যাচ্ছিল। ওই নৌকার আরোহীরা আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

গত মাসে লিবিয়া থেকে ইউরোপ যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে শুধু নৌকাডুবির ঘটনায়ই অন্তত ৩৭ জন নিহত/নিখোঁজ হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, ডুবে যাওয়া ওই নৌকার কয়েকজন আরোহীকে উদ্ধার করা সম্ভব না হলে হয়তো কোনো দিন সেই নৌকাডুবির খবর জানাই যেত না।

 

 

মন্তব্য