kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

সৌদির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে সিদ্ধান্ত

হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন দেশেই সম্পন্ন হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন দেশেই সম্পন্ন হবে

সৌদি আরবের বিমানবন্দরের পরিবর্তে বাংলাদেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেই বাংলাদেশি হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে সম্মত হয়েছে সৌদি সরকার। চলতি বছর থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। এই সিদ্ধান্তের ফলে ঢাকায় বিমানবন্দরে হজ ক্যাম্পে ডিপার্চার ইমিগ্রেশনের সঙ্গেই সৌদি আরবের কর্মকর্তারা আগাম সৌদি ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করবেন। ফলে বাংলাদেশি হজযাত্রীরা সৌদি আরবে বিমান থেকে নেমে সরাসরি হজ টার্মিনালে প্রবেশ করতে পারবেন।

সৌদি সরকারের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদলের (কারিগরি) সঙ্গে গতকাল শুক্রবার ঢাকায় বৈঠকের পর এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী এমপি, ধর্মসচিব আনিছুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেন, কাউন্সেলর (হজ) মাকসুদুর রহমান, যুগ্ম সচিব (হজ) এ বি এম আমিন উল্লাহ নূরী প্রমুখ।

প্রেস ব্রিফিংয়ে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এই সিদ্ধান্তের ফলে হজযাত্রীদের জেদ্দা বিমানবন্দরে ছয়-সাত ঘণ্টা অপেক্ষার কষ্ট লাঘব হবে। এই সিদ্ধান্ত কার্যকরের অংশ হিসেবে হজ ভিসার জন্য এমবাসিতে পাসপোর্ট জমা দেওয়ার আগেই দেশের আটটি বিভাগে প্রত্যেক হজযাত্রীর হাতের ১০ আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসারে আমরা হজযাত্রীদের কষ্ট লাঘব করার চেষ্টা করছি।’

সিদ্ধান্ত অনুসারে আগের মতোই বাংলাদেশ বিমানের হজযাত্রীরা আশকোনা হজ ক্যাম্পে এবং সৌদি এয়ারলাইনসের হজযাত্রীরা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করবেন। এরপর উভয় বিমানের হজযাত্রীদের শাহজালাল বিমানবন্দরের একটি এক্সক্লুসিভ জোনে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে তাঁদের সৌদি আরবের জেদ্দায় ইমিগ্রেশনের যেসব কাজ হতো, তা সম্পন্ন করা হবে। পরে হজযাত্রীরা নিজ নিজ বিমানে আরোহণ করবেন। এক্সক্লুসিভ জোনের সব কার্যক্রম তত্ত্বাবধান করবে সৌদি আরব নিয়োজিত কারিগরি দল।

সৌদি আরবের ডিরেক্টর জেনারেল (পাসপোর্ট) মেজর জেনারেল সোলাইমান আবদুল আজিজ ইয়াহ ইয়াহর নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের উচ্চপর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদল গত ৯ এপ্রিল বাংলাদেশ সফরে আসে। প্রতিনিধিদলটি ঢাকার আশকোনাস্থ হজ অফিস এবং হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বিভিন্ন ভেন্যু পরিদর্শন করে। প্রতিনিধিদলটি ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়, সিভিল এভিয়েশন অথরিটি, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ইমিগ্রেশন, কাস্টমস ও আইটি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বাংলাদেশ বিমান এবং সৌদি এয়ারলাইনসের স্থানীয় প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে। এর পরই সৌদি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশি হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সৌদি আরবের পরিবর্তে বাংলাদেশে সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নেয়। গত বৃহস্পতিবার ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে প্রতিনিধিদলটি তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা