kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বাংলাদেশ প্রতিদিনের ১০ বছরে পদার্পণ

পাঁচ বরেণ্য ব্যক্তিকে সম্মাননা

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে : বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



পাঁচ বরেণ্য ব্যক্তিকে সম্মাননা

বাংলাদেশ প্রতিদিনের দশম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে গতকাল ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় পাঁচ গুণীকে সম্মাননা দেওয়া হয়। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে এই সম্মাননা তুলে দেন বিশিষ্ট শিল্পপতি বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। ছবি : কালের কণ্ঠ

দশম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে পাঁচ বরেণ্য ব্যক্তিকে সম্মাননা দিয়েছে বাংলাদেশ প্রতিদিন। বাংলা ভাষার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি শামসুর রাহমান (মরণোত্তর), বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন, খ্যাতনামা অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী ও ফরিদা আখতার ববিতা এবং খ্যাতনামা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেতকে এই সম্মাননা দেওয়া হয়।

গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) নবরাত্রি হলে এ উপলক্ষে ছিল বর্ণাঢ্য আয়োজন। সকাল থেকে সেখানে ছিল ফুল নিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে আসা লোকের ভিড়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে বরেণ্যজনদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন বিশিষ্ট শিল্পপতি  বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। কবি শামসুর রাহমানের সম্মাননা গ্রহণ করেন তাঁর পুত্রবধূ টিয়া রাহমান। ববিতা আমেরিকায় অবস্থান করায় তাঁর পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন ছোট বোন অভিনেত্রী গুলশান আখতার চম্পা।  

অনুষ্ঠানে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘এ দেশের গুণী ও কৃতী সন্তানদের সম্মাননা জানাতে পেরেছি। তাই আমরা সম্মানিত বোধ করছি। ১০ বছর ধরে বাংলাদেশ প্রতিদিন দেশের সর্বস্তরের মানুষের কথা নির্ভীকভাবে বলে যাচ্ছে। প্রত্যাশা করি আগামী দিনেও তারা বস্তুনিষ্ঠ নির্ভীক সাংবাদিকতার এই ধারাকে অব্যাহত রেখে এগিয়ে যাবে।’ 

অনুষ্ঠানে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, ‘এ দেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাকে মানুষের মনে জাগিয়ে রাখতে হবে। আজকের তরুণদের জানাতে হবে এ দেশ কিভাবে স্বাধীন হয়েছে। স্বাধীনতাবিরোধীদের ভূমিকা কী ছিল সেটাও তরুণদের জানাতে হবে। আমি মনে করি প্রথম শ্রেণি থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত সব শ্রেণিতে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা বিষয়ে পাঠ্য থাকা উচিত। ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ সব সময় মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে, স্বাধীনতার পক্ষে কাজ করবে।’

আহমেদ আকবর সোবহান আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন, দৈনিক কালের কণ্ঠ, ডেইলি সান, নিউজটোয়েন্টিফোর, রেডিও ক্যাপিটাল, বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। আমি সব সময় একটি কথাই বলি, স্বাধীনতার সপক্ষে, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে আমাদের মিডিয়া আজীবন কাজ করবে।’

বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত আনন্দিত যে আমাদের প্রধানমন্ত্রী নারী, স্পিকার নারী, অনেক বিশিষ্টজনও নারী। বাংলাদেশ প্রতিদিনে ১০ বছর ধরে নারীদের নিয়ে প্রতিদিন একটি করে লেখা প্রকাশিত হচ্ছে। নারীরা যেন সব কিছুতে অগ্রগামী থাকতে পারে। আজকে নারী-পুরুষে কোনো ভেদাভেদ নেই।’ তিনি বলেন, ‘জনগণের পক্ষে থাকতে গিয়ে আমাদের সম্পাদকরা, প্রকাশক ও সংবাদকর্মীরা অনেক মামলা-মোকদ্দমার শিকার হয়েছেন। আগামী দিনেও মামলা হতে পারে। কিন্তু আমরা সত্য থেকে বিচ্যুত হবো না।’

বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান ঢাকা মহানগরীকে সুন্দর করে গড়ে তোলা কঠিন নয় উল্লেখ করে বলেন, ‘গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবং ঢাকা সিটির দুই মেয়র (উত্তরে আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণে সাঈদ খোকন) মিলে ঢাকাকে সুন্দর করা কোনো কঠিন বিষয় নয়। কেবল আমাদের সবার কমিটমেন্ট ঠিক থাকতে হবে। গণপূর্তমন্ত্রী একজন বিশিষ্ট আইনজ্ঞ। তাঁর লেখায় জানতে পারলাম, এখনো তিনি হাইকোর্টকে মিস করেন। আমি মনে করি, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রীর কাজ করার বিরাট সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। ঢাকা সিটিসহ পুরো দেশকে সুন্দর করার দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী তাঁকে দিয়েছেন।’

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন একটি বাসযোগ্য নিরাপদ নগরী গড়তে শুরু থেকেই কাজ করে যাচ্ছে। আমরা সবাই মিলে একটি পরিচ্ছন্ন নিরাপদ ঢাকা গড়ব।’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে এই গণমানুষের পত্রিকার সহযোগিতা কামনা করছি। ঢাকা শহরকে নিরাপদ বাসযোগ্য করে তুলতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।’

সারাহ বেগম কবরী বলেন, শুরু থেকেই সংবাদের স্বকীয়তায় বাংলাদেশ প্রতিদিন হটকেকে পরিণত হয়। সাধারণ মানুষের, আমজনতার প্রিয় এই পত্রিকাকে অভিনন্দন জানাই। সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, ‘আমি প্রতিদিন অনেক পত্রিকা নেই এবং পড়ি। কিন্তু সারা দিনে বাংলাদেশ প্রতিদিন না পড়লে মনে হয় কিছু একটা বাদ পড়েছে।’ হানিফ সংকেত বলেন, ‘আমাকে সম্মাননা দেওয়ায় আমি আনন্দিত, উত্ফুল্ল, উচ্ছ্বসিত ও উদ্দীপ্ত। সবাই জনগণকে ব্যবহার করে। এই জনগণের পক্ষে কথাটি বাংলাদেশ প্রতিদিন যথার্থভাবে বজায় রেখেছে। অবিশ্বাসের আঘাতে যখন বিশ্বাসের মৃত্যু হচ্ছে তখন এ পত্রিকা বিশ্বাসযোগ্যতাকে বাঁচিয়ে রাখবে বলে আশা করি।’ অভিনেত্রী ববিতার পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করে তাঁর পাঠানো শুভেচ্ছা বক্তব্য পাঠ করে শোনান বোন চম্পা।

বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যানের সঙ্গে থেকে শুভেচ্ছা গ্রহণ করেন বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম। সঙ্গে ছিলেন পত্রিকাটির নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান। সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কালের কণ্ঠ সম্পাদক বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠ’র নির্বাহী সম্পাদক, বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক মোস্তফা কামাল।

অনুষ্ঠানে ছিলেন ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের প্রকাশক ময়নাল হোসেন চৌধুরী, ডেইলি সান সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোরডটকমের সম্পাদক জুয়েল মাজহার, নিউজ টোয়েন্টিফোরের ইনচার্জ হাসনাইন খুরশিদসহ ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া পরিবারের সাংবাদিক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মাহবুব তালুকদার, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খানসহ রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন,  আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, শোবিজ, ক্রীড়াঙ্গনসহ বিভিন্ন অঙ্গনের বিশিষ্টজনেরা। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ প্রতিদিনের বর্ষসেরা কর্মী হিসেবে পুরস্কৃত করা হয় বার্তা, অনলাইন, বিজ্ঞাপন, সার্কুলেশনসহ বিভিন্ন বিভাগের ১৪ কর্মীকে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা