kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে ফেলে বের হননি স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে ফেলে বের হননি স্বামী

গর্ভে অনাগত সন্তান। মা প্রাণপণ চেষ্টা করেছিলেন ঘর থেকে বেরিয়ে নিরাপদে আশ্রয় নিতে। কিন্তু আগুনের লেলিহান শিখা গ্রাস করে তাঁকে। স্বামীও অনেক চেষ্টা করেও তাঁকে নামাতে পারেননি। পরে তিনটি প্রাণই পুড়ে অঙ্গার হয়ে যায়। তাঁদের মরদেহ বের করা হয় এভাবেই। ছবি : মঞ্জুরুল করিম

রিফাত ও রিয়া স্বামী-স্ত্রী। থাকতেন ঢাকার চকবাজারের নন্দ কুমার দত্ত রোডের ‘ওয়াহিদ ম্যানশন’ ভবনের তৃতীয় তলায়। গত বুধবার রাতে ভবনটিতে আগুন লাগে। দুজনই বাসা থেকে বের হওয়ার চেষ্টা চালান। রিফাত বের হতে পারতেন। কিন্তু রিয়া ছিলেন গর্ভবতী ও অসুস্থ, তাই রিয়া বের হতে পারেননি। রিয়াকে একা রেখে বাসা থেকে বের হননি রিফাত। শেষে আগুনে পুড়ে করুণ মৃত্যু হয়েছে এই দম্পতির। একই সঙ্গে পৃথিবীর আলো-বাতাস পাওয়ার আগেই মায়ের গর্ভ থেকে জীবন হারাতে হয়েছে সন্তানকে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রিফাত-রিয়ার বন্ধু ও আত্মীয়স্বজন জানায় এ তথ্য। রিয়া ও রিফাত দুই বছর আগে বিয়ে করেছিলেন। তাঁদের বন্ধু আল-আকসার সাজিদ বলেন, ‘চেহারা দেখে আমার এই দুই বন্ধুর মরদেহ শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। রিয়া খুব অসুস্থ ছিল। অন্তঃসত্ত্বা হওয়া ছাড়াও সে জটিলতায় ভুগছিল।’

জানা যায়, ওয়াহিদ ম্যানশনের চার তলার একটি ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে পাঁচজনের মরদেহ। এখানে থাকতেন মো. দেলোয়ার হোসেন ও তাঁর পরিবার।

এ ছাড়া পাশের একটি ভবনের নিচে পানের দোকান ছিল ইব্রাহিম নামে এক ব্যক্তির। গতকাল মর্গে তাঁর মরদেহ শনাক্ত করতে পারেননি চাচাতো ভাই রহিম।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা