kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বইপ্রেমীর সঙ্গে বাড়ছে বিক্রিও

নওশাদ জামিল   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বইপ্রেমীর সঙ্গে বাড়ছে বিক্রিও

দৃশ্যটি বড় মনোরম। গ্রন্থমেলার সব প্রবেশপথে আগত মানুষের দীর্ঘ সারি। সুশৃঙ্খল এবং সারিবদ্ধভাবে সবাই প্রবেশ করছে গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণে। টানা চার দিন ধরে প্রায় একই ধরনের জনসমাগম। গতকাল শনিবার গ্রন্থমেলা ঘুরে দেখা যায়, বেশির ভাগ স্টল ও প্যাভিলিয়নেই বই ক্রেতাদের ভিড়। যারাই আসছে, হাতে বইয়ের ব্যাগ নিয়ে বেরোচ্ছে। প্রকাশকরা জানায়, মেলায় প্রতিদিন বাড়ছে বইপ্রেমী মানুষের আগমন। সঙ্গে বাড়ছে বিক্রিও। ক্রেতা-পাঠকের সমাগমে রয়েছে ধারাবাহিকতা। এবার তাই বই বিক্রি নতুন মাইলফলক ছোঁবে।

গ্রন্থমেলার ১৬তম দিনে গতকাল দিনভর ছিল বিপুল গ্রন্থপ্রেমী মানুষের ভিড়। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, বাংলা একাডেমির দুই অংশেই মানুষের উপস্থিতি ছিল ব্যাপক। প্রকাশকরা জানায়, তাদের বিক্রিবাট্টাও বেশ। কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় বিক্রি হওয়ায় খুশি তারা। অবশ্য মেলার একেবারে শেষ দিকের কর্নারে যেসব স্টল রয়েছে সেগুলোর প্রকাশকরা বলছে, অবস্থানগত কারণে তারা কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত।

অনুপম প্রকাশনীর প্রধান নির্বাহী মিলন কান্তি নাথ বলেন, ‘মেলায় আর লোকসমাগম কমবে না। কারণ, মেলা তার মূল যৌবনে এসে গেছে। এখন যারা মেলায় আসে, তারা প্রায় সবাই বই কেনে। এ কারণে বিক্রিও হচ্ছে বেশ।’

বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি আল মাহমুদের মৃত্যুর প্রভাব লক্ষ করা গেছে গতকালের গ্রন্থমেলায়। কবির মৃত্যুতে লেখক-প্রকাশকদের মধ্যে দেখা গেছে শোকের ছায়া। গতকাল বিভিন্ন স্টল ও প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখা যায়, পাঠকরা আল মাহমুদের বই খুঁজছে।

গতকাল সকাল ১১টায় শিশু প্রহর উপলক্ষে দ্বার খোলে গ্রন্থমেলার। এ সময় অনেকে স্কুলের ইউনিফর্ম পরে মেলায় আসে ঘুরতে, বই কিনতে।

গতকাল সকাল ১০টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় শিশু-কিশোর সাধারণ জ্ঞান ও উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত নির্বাচন। প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে ২১ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতায় মুনতাজিম রহমান সায়মন (প্রথম স্থান), তাইয়্যেবা ও নুসাইবা নাজমী খান (দ্বিতীয় স্থান) এবং শাহারিয়ার আহম্মেদ (তৃতীয় স্থান) অধিকার করে। উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় নিসার বিন সাইফুল্লাহ জাহিন (প্রথম স্থান), কাশফিয়া কাওসার চৌধুরী (দ্বিতীয় স্থান) ও শাঁওলী সামরিজা (তৃতীয় স্থান) অধিকার করে। প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন শিল্পী অণিমা মুক্তি গমেজ, হাসান মাহমুদ এবং ক্রীড়াবিদ রঞ্জিত চন্দ্র দাস।

গতকাল বিকোল ‘লেখক বলছি’ মঞ্চে নিজেদের নতুন প্রকাশিত গ্রন্থ বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন আসাদ মান্নান, শাকুর মজিদ, পাপীয়া জেরিন, আবদুল্লাহ আল ইমরান ও মাহফুজ রিপন।

পারভীন রেজার কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন : গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিমের সহধর্মিণী প্রতিশ্রুতিশীল কবি ও প্রাবন্ধিক পারভীন রেজা। ক্যানভাস প্রকাশনী থেকে গতকাল প্রকাশিত হয়েছে তাঁর কবিতার বই ‘ডাকাতিয়া জল’। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মোড়ক উন্মোচন মঞ্চে গতকাল বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. মীজানুর রহমান প্রমুখ।

গ্রন্থমেলায় ১৬তম দিনে গতকাল প্রকাশিত হয়েছে নতুন ২০৬টি বই। এর মধ্য থেকে চারটি বইয়ের তথ্য-পরিচিতি তুলে ধরা হলো।

মার্কসবাদ ও আজকের বাস্তবতা : প্রাবন্ধিক ও গবেষক আবুল কাসেম ফজলুল হকের বই। লেখক ষাটের দশকে মার্কসবাদ অধ্যয়ন-অনুশীলনে যুক্ত হন। দীর্ঘদিনের চর্চা ও গবেষণার আলোকে বর্তমান বাস্তবতায় নতুন দৃষ্টিতে বিশ্লেষণ করেছেন মার্কসবাদের প্রাসঙ্গিকতা। প্রকাশক শ্রাবণ প্রকাশনী। দাম ৩৮০ টাকা।

কিশোর কবিতা : বিশিষ্ট কবি কামাল চৌধুরীর কিশোর কবিতার সংকলন। কিশোরদের মন, মানস ও চিন্তা-ভাবনার উপযোগী অসাধারণ সব কবিতা লিখেছেন কবি। বিষয় বৈচিত্র্যের চমৎকারিত্ব, ভাবের ব্যঞ্জনা, ছন্দ ও শব্দের দ্যোতনায় কিশোর মনের আবেগ ও সংবেদকে অভিনব উপস্থাপনায় সাজিয়েছেন। বইটির প্রচ্ছদ ও অলংকরণ নান্দনিক। প্রকাশক শিশু একাডেমি। দাম ৩০০ টাকা।

আমাদের পিকলু বাবু : কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক রেজানুর রহমানের কিশোর উপন্যাস। সহজ ও প্রাণবন্ত ভাষায় লেখক বইটিতে তুলে ধরেছেন শিশু-কিশোরদের মনোজগৎ। প্রকাশক কথাপ্রকাশ। দাম ১৫০ টাকা।

এইসব কলহাস্য : সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক মাহবুব আজীজের উপন্যাস। লেখক তাঁর প্রাণবন্ত গদ্যে তুলে ধরেছেন মানবজীবনের গূঢ় অনুভূতির কথা। প্রকাশক কথাপ্রকাশ। দাম ২২৫ টাকা।  

মূল মঞ্চের আয়োজন : গতকাল বিকেল ৪টায় মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘চিত্রশিল্পী সৈয়দ জাহাঙ্গীর : শ্রদ্ধাঞ্জলি’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মইনুদ্দীন খালেদ। আলোচনায় অংশ নেন শিল্পী ফরিদা জামান, নিসার হোসেন এবং মলয় বালা। সভাপতিত্ব করেন শিল্পী হাশেম খান।

পরে কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি কাজী রোজী এবং মারুফ রায়হান।

আজকের আয়োজন : আজ রবিবার মেলা চলবে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। বিকেল ৪টায় মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক : শ্রদ্ধাঞ্জলি’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা