kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

নিজের জীবন দিয়ে অসংখ্য প্রাণ রক্ষা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিজের জীবন দিয়ে অসংখ্য প্রাণ রক্ষা

নাজিহ শাকের

ইরাকের বালাদ শহরে ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গির আত্মঘাতী বোমা হামলায় মৃত্যু হতে পারত কয়েক শ মানুষের। সে রকম হিসাব কষেই চালানো হয়েছিল হামলা। কিন্তু সেই হামলার তীব্রতা কমাতে বিস্ফোরণের আগ মুহূর্তে আইএস জঙ্গিকে জাপটে ধরে নিজের জীবন উৎসর্গ করলেন নাজিহ শাকের নামের এক মুসলিম যুবক। এর ফলে রক্ষা পেল অসংখ্য প্রাণ। গত শুক্রবার জুমার নামাজের সময় এ ঘটনা ঘটে।

আল মাসদার নিউজ জানায়, জঙ্গি হামলার লক্ষ্য ছিল বালাদ শহরের সৈয়দ মুহাম্মদ মসজিদটি। শুক্রবার জুমার নামাজের সময় যখন বহু মুসল্লির সমাগম হয়েছে, ঠিক সেই সময় হানা দেয় আইএস জঙ্গি। কিন্তু জঙ্গির হাবভাব দেখে নাজিহ শাকের নামের পুণ্যার্থী বুঝতে পারেন,

বিস্ফোরণ ঘটাতেই ওই জঙ্গি পুলিশের পোশাক পরে মসজিদে ঢুকছে। সময় নষ্ট না করে তিনি দৌড়ে গিয়ে মসজিদের মূল অংশে ঢোকার প্রবেশ পথেই আটকে দেন জঙ্গিকে। জঙ্গি আত্মঘাতী জ্যাকেটে বাঁধা বোমায় বিস্ফোরণ ঘটানোর আগ মুহূর্তে তাকে জাপটে ধরেন নাজিহ। এতে বিস্ফোরণের আঘাত অনেকটাই নিজের শরীর দিয়ে আটকে দিতে সক্ষম হন নাজিহ। তবে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় তাঁর দেহ। বালাদ শহরেই বাস করতেন তিনি।

ইরাকি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বালাদের সৈয়দ মুহাম্মদ মসজিদের বিস্ফোরণে ৩৭ জন নিহত ও অন্তত ৭০ জন আহত হয়। কিন্তু নাজিহ শাকের আত্মঘাতী জঙ্গিকে ঝাপটে না ধরলে নিহতের সংখ্যা ২০০-৩০০ ছাড়িয়ে যেতে পারত।

বালাদ শহরের এ আত্মঘাতী হামলার ঠিক আগের দিনই কারাদা এলাকায় একই কায়দায় আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছিল আইএস। তাতে ৩০০ জন নিহত হয়। ওই হামলা ছিল গত ১৩ বছরে ইরাকে সবচেয়ে বড় আত্মঘাতী হামলা। বালাদ শহরও একই পরিণতির শিকার হতে পারত, যদি নাজিহ শাকের নিজের জীবন উৎসর্গ না করতেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা