kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩০ আষাঢ় ১৪২৭। ১৪ জুলাই ২০২০। ২২ জিলকদ ১৪৪১

মেয়ের সামনেই যুবদল নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

চালকের ঘুষিতে ট্রাক শ্রমিক নিহত

পাবনা প্রতিনিধি   

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেয়েকে কোচিং সেন্টার থেকে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার সময় পাবনার ফরিদপুর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম লিটনকে (৪২) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার নেছরাপাড়া এলাকায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

এদিকে গতকাল রংপুরে ট্রাকচালকের ঘুষিতে নিহত হয়েছেন এক ট্রাক শ্রমিক।

পাবনায় যুবদল নেতা খুন : ফরিদপুর উপজেলায় খুন হওয়া যুবদল নেতা সাইফুল ইসলাম লিটন সদর ইউনিয়নের মৃত গোলজার হোসেনের ছেলে। তাঁর রাজনৈতিক পরিচয় কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি জহুরুল ইসলাম বকু।

জহুরুল ইসলাম জানান, ঘাড়ে ও মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ঘটনাস্থলেই সাইফুলের মৃত্যু হয়েছে। রাজনৈতিক বিরোধের কারণে নিজেদের কেউ কিংবা অন্য কোনো দলের কেউ তাঁকে হত্যা করেছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, সে রকম কিছু নয়। তাঁদের ধারণা, অন্য কোনো বিরোধের জের ধরেই যুবদল নেতা সাইফুল ইসলামের ওপর হামলা করা হয়েছে।

গতকাল রাত ৮টার দিকে এই প্রতিবেদন লেখার সময় এই যুবদল নেতার মরদেহ পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছিল।

ফরিদপুর থানার ওসি হাবিবুর রহমান জানান, সাইফুল তাঁর স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে কোচিং সেন্টার থেকে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তরা তাঁর ওপর হামলা চালায়। তবে মেয়ের কোনো ক্ষতি হয়নি। আগের কোনো বিরোধের জের ধরে তাঁকে খুন করা হয়েছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে।

রংপুরে ট্রাকচালকের ঘুষিতে শ্রমিক নিহত : রংপুর শহরের শাপলা চত্বর এলাকায় ট্রাকস্ট্যান্ডে এক চালকের ঘুষিতে রায়হান (৩৫) নামের এক ট্রাক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। তিনি নগরের ফতেহপুর তিনঘড়ি এলাকার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের স্ত্রী রুবী বেগম জানান, শহরের কামারপাড়া এলাকার হবিবর রহমানের ছেলে ট্রাকচালক মনোয়ার হোসেন কাজে যেতে বললে রায়হান অস্বীকৃতি জানান। একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে বাগিবতণ্ডা হয় এবং মনোয়ার ক্ষিপ্ত হয়ে রায়হানের বুকে সজোরে ঘুষি মারেন। স্থানীয়রা তাঁকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে মারা যান রায়হান।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা