kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

তিনি এখন...

   

৫ জুন, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিনি এখন...

একটা মৃত্যু দাগ কেটে যায় তাঁর হৃদয়ে। আগের দিনই নিজের একাডেমিতে ব্যাটিং শিখিয়েছিলেন শাকিলকে। সেই ছেলেটা পর দিন লাশ হয়ে যায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায়। এত দিনে ভোলার মানুষ ভুলেও গেছে খুদে ক্রিকেটারটিকে। কিন্তু ভোলেননি নজরুল হুদা গোফরান। প্রিয় শিষ্যটির নামে গড়েছেন একটি ক্লাব। 'শাকিল একাদশ'-এর সুনামও আছে ভোলা জেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত লিগে। এর আগে ১৯৯৪ সাল থেকে আবহাওয়া অফিস একাদশ নামের আরো একটা ক্লাব চালাতেন নজরুল হুদা গোফরান। সেই ক্লাবের কার্যক্রম স্থগিত রেখে ভোলার সাবেক এই ক্রিকেটার বেশি সময় দেন শাকিল একাদশ, নিজের ফেয়ার প্লে ক্রিকেট একাডেমি আর ভোলা জেলা দলে। লেভেল টু আপগ্রেড করা নজরুল বিসিবির নিয়োগ দেওয়া কোচ। তাই ২০০৮ সালে বাধ্য হয়ে বন্ধ করতে হয়েছিল একাডেমির কাজ। প্রাণের টানে সেটা চালু করেছেন আবারও। তবে খুঁজে পাচ্ছেন না ছাত্র! আফসোসই করলেন এ নিয়ে, 'স্কুলে পড়ার চাপ, প্রাইভেট, পরিবারের অনীহা মিলিয়ে তেমন ছাত্র পাই না আর। এমনো হয়েছে, অনুশীলন করেছি মাত্র দুজন নিয়ে। অথচ ক্রিকেটের জোয়ার চলছে এখন দেশে।'

নজরুল হুদা গোফরানের হাতে গড়া আবু সায়েম চৌধুরী সুযোগ পেয়েছেন জাতীয় অনূর্ধ্ব ১৯ দলে। বয়স ভিত্তিক বিভিন্ন দলের ক্যাম্পিংয়ে ডাক পেয়েছেন আরো ১৩ জন। বিভাগীয় পর্যায়ে তাঁর হাত ধরে ভোলা অনূর্ধ্ব ১৪ আর ১৮ দল শিরোপাও জিতেছে একাধিকবার। এখন স্বপ্ন একটাই। কোনো একজন ছাত্রকে জাতীয় দলে নিয়ে আসা, 'ভোলার কেউ জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলেনি কখনো। এই বদনামটা মেটাতে চাই আমি।'

 

 



সাতদিনের সেরা