kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বাংলা মডেল টেস্ট

সময় : ৩ ঘণ্টা
পূর্ণমান : ১০০
বিষয় কোড : ১০১

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১৯ মিনিটে



বাংলা মডেল টেস্ট

  [দ্রষ্টব্য : ডান পাশের সংখ্যা প্রশ্নের পূর্ণমান জ্ঞাপক। প্রদত্ত উদ্দীপকগুলো মনোযোগ সহকারে পড়ে সংশ্লিষ্ট প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও। গদ্যাংশ ও কবিতাংশ থেকে দুটি করে মোট চারটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। একই প্রশ্নের উত্তরে সাধু ও চলিত ভাষারীতির মিশ্রণ দূষণীয়।]

     ক অংশ - গদ্য

১।   মোশতাক ও মামুন দুজনই সহপাঠী ও উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত। পেশাগত জীবনে মোশতাক বড় ব্যবসায়ী। বাড়ি-গাড়ি, টাকাকড়ি কোনো কিছুরই অভাব নেই তার। সবাই তাকে এক নামে চেনে। আর মামুন শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেয়। ঘূর্ণিঝড়ে তাদের গ্রামে বিপর্যয় ঘটে গেলে মামুন তার ছাত্রদের নিয়ে ত্রাণসামগ্রী সংগ্রহ করে অসহায় মানুষদের কাছে পৌঁছে দিয়ে আত্মসুখ অনুভব করে। অন্যদিকে মোশতাক সাহায্যের বদলে অসহায় মানুষদের কাছ থেকে কম দামে বিঘার পর বিঘা জমি কিনে নেয়।

     ক) ‘হাস্য-লাস্য-ভাষ্য’ মমতাজউদদীন আহমদের কী ধরনের রচনা?  ১

     খ) কবিরাজ মোড়লের জন্য কেন ফতুয়া সংগ্রহ করতে বলেছে? ব্যাখ্যা করো।  ২

     গ) উদ্দীপকের মোশতাক ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার মোড়ল চরিত্রের সঙ্গে কিভাবে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা করো। ৩

     ঘ)   ‘প্রেক্ষাপট ভিন্ন হলেও উদ্দীপকের মামুন ও ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার লোকটির অনুভূতি এক সূত্রে গাঁথা’— মন্তব্যটির যথার্থতা যাচাই করো। ৪

২।   পলাশতলা গ্রামের গৃহস্থ বধূরা নববর্ষে নানা আচার-অনুষ্ঠান পালন করে থাকে। বছরের প্রথম দিন সকালে গৃহকর্ত্রী শুকনো চাল ও শুকনো নিমপাতা ভেজে গুঁড়া করে তা লবণ, মরিচ ও পেঁয়াজ দিয়ে মেখে বাড়ির সবাইকে একটু করে খেতে দেন। তারপর সকালের নাশতায় লাল মরিচ দিয়ে পানতা ভাত পরিবেশন করেন। তাদের বিশ্বাস, বছরের প্রথম দিন এই আচার পালন করলে সারা বছর আর কোনো রোগ-বালাই তাদের যেমন কাবু করবে না, তেমনি সংসারের অভাবও দূরীভূত হবে।

     ক)   ‘আবহমান’ শব্দের অর্থ কী?  ১

     খ) ’৫২-র ভাষা আন্দোলনের পর বাংলাদেশে কিভাবে বর্ষবরণ করা হয়? ব্যাখ্যা করো। ২

     গ) উদ্দীপকের পলাশতলা গ্রামের গৃহস্থ বধূদের আচার-অনুষ্ঠান ‘বাংলা নববর্ষ’ প্রবন্ধের কোন দিকের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা করো।  ৩

     ঘ) সাদৃশ্যগত দিকটিতে ‘বাংলা নববর্ষ’ প্রবন্ধের মূল সুরটি ফুটে উঠেছে কি? তোমার বক্তব্যের সপক্ষে যুক্তি

     দাও।             ৪

৩।   বাংলা শিক্ষক বঙ্কিমচন্দ্র ক্লাসে প্রায়ই সংস্কৃত শব্দ ব্যবহার করেন। তাঁর মতে, সংস্কৃত ভাষা থেকে বাংলা ভাষার জন্ম। উদাহরণ হিসেবে তিনি চন্দ্র—চন্দ—চাঁদ এর কথা বলেন। এ বিষয়ে কৌতূহলী ইংরেজি ভাষার শিক্ষক আজিজ আহমেদ লক্ষ করেন, সংস্কৃত ভাষায় লোকে কথা বলত না; কথা বলত অন্য ভাষায়। তাই তিনি বাংলা শিক্ষকের সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করেন।

     ক)   ‘শ্লোক’ কী?  ১

     খ)   যিশুখ্রিস্টের জন্মের আগেই কী পাওয়া যায়? ব্যাখ্যা করো।     ২

     গ)   উদ্দীপকের ইংরেজি শিক্ষকের অনুসন্ধানে উন্মোচিত বাংলা ভাষার শব্দের গতিপথ ‘বাংলা ভাষার জন্মকথা’ প্রবন্ধের সঙ্গে কিভাবে সাদৃশ্যপূর্ণ ? ব্যাখ্যা করো।     ৩

     ঘ) সাদৃশ্যগত দিকটিতে কি বাংলা ভাষার জন্মকথা প্রবন্ধের মূল বক্তব্য প্রতিফলিত হয়েছে? তোমার উত্তরের সপক্ষে যুক্তি দাও।   ৪

     খ অংশ - পদ্য

৪।   ১. বারে বারে আমি আসি ফিরে মাগো, এই বাংলার নীড়ে

     ডাহুক যেখানে ডাক দিয়ে যায়, বাতাস বাজায় বাঁশি

     জনমে জনমে চিরদিন যেন তোর কোলে ফিরে আসি।

     ২. মধুর চেয়ে আছে মধুর, সে এই আমার দেশের মাটি

     আমার দেশের পথের ধুলা খাঁটি সোনার চাইতে খাঁটি।

     ক) মধুসূদন দত্তের পত্রকাব্যের নাম কী?     ১

     খ) কবি কেন আশা করেন যে দেশমাতৃকা তাঁকে ক্ষমা করে দেবেন? ব্যাখ্যা করো।    ২

     গ) উদ্দীপক দুটিতে ‘বঙ্গভূমির প্রতি’ কবিতার কোন দিকটি ফুটে উঠেছে? ব্যাখ্যা করো। ৩

     ঘ) “উদ্দীপক ও ‘বঙ্গভূমির প্রতি’ কবিতার মূল চেতনা একই ধারায় প্রবাহিত” মন্তব্যটি বিশ্লেষণ করো। ৪

৫।   বর্গাচাষি কালু শেখ ওসমান চৌধুরীর জমিতে ধান-পাট চাষ করে ফসলের অর্ধেক ভাগ পায়। তার হালের গরুটি মরে যাওয়ায় সে চৌধুরী সাহেবের কাছ থেকে গরু কেনার জন্য কাগজে টিপসই দিয়ে নগদ ২০ হাজার টাকা ধার নেয়। দুই বছর পর টাকাটা পরিশোধ করতে গিয়ে জানতে পারে যে ভিটেমাটি বন্ধক রেখে সে নাকি ওই টাকাটা নিয়েছে। অশিক্ষিত কালু শেখ কাগজে কী লেখা ছিল তা পড়তে না পারায় দলিলের শর্তানুসারে সে ভিটেছাড়া হয়ে পথে নামে।

     ক) ‘খত’ শব্দের অর্থ কী?   ১

     খ) উপেন তার ভিটে মাকে ধিক্কার দিল কেন? ব্যাখ্যা করো।   ২

     গ) উদ্দীপকের কালু শেখ ‘দুই বিঘা জমি’ কবিতার উপেনের সঙ্গে কিভাবে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা করো।  ৩

     ঘ) “সাদৃশ্য থাকলেও ‘দুই বিঘা জমি’ কবিতার উপেনের পরিণতি আরো বেশি মর্মান্তিক”—মন্তব্যটির যথার্থতা যাচাই করো। ৪

৬।   আখতার একজন দিনমজুর। তার স্ত্রী রুবিনাও বাসাবাড়িতে ঠিকা ঝির কাজ করে। দুজনের রোজগারে ঢাকা শহরে ঘরভাড়া দিয়ে চলতে কিছুটা কষ্ট হলেও মেয়েটিকে স্কুলে পড়ায়। দিন শেষে ঘরে ফেরার সময় আখতার স্ত্রী ও মেয়ের জন্য প্রায়ই ডিম-দুধ, ফল-মূল কিনে আনে। সে জানে, সংসারে তার স্ত্রী তার চেয়ে কম পরিশ্রম করে না। তারও ভালো খাবার ও বিশ্রামের প্রয়োজন রয়েছে।

     ক) বাঙালি পল্টন কত সালে ভেঙে দেওয়া হয়? ১

     খ) কবি নারী-পুুরুষের মধ্যে ভেদাভেদ করেন না কেন? ব্যাখ্যা করো। ২

     গ) উদ্দীপকের রুবিনার সঙ্গে ‘নারী’ কবিতার কী বৈসাদৃশ্য রয়েছে? ব্যাখ্যা করো।    ৩

     ঘ) “বৈসাদৃশ্যগত দিকটিতে ‘নারী’ কবিতার কবি একটি বিশেষ বার্তা দিতে চেয়েছেন”—মন্তব্যটির যথার্থতা বিশ্লেষণ করো। ৪

     নির্মিতি অংশ — মান : ৩০

৭।   যেকোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :        ৫দ্ধ১=৫

     ক) সারাংশ লেখো :

     কোথা থেকে এসেছে আমাদের বাংলা ভাষা? ভাষা কি জন্ম নেয় মানুষের মতো? বা যেমন বীজ থেকে গাছ জন্মে তেমনভাবে জন্ম নেয় ভাষা? না, ভাষা মানুষ বা তরুর মতো জন্ম নেয় না। বাংলা ভাষাও মানুষ বা তরুর মতো জন্ম নেয়নি, কোনো কল্পিত স্বর্গ থেকেও আসেনি। এখন আমরা যে বাংলা বলি এক হাজার বছর আগে তা ঠিক এমন ছিল না। সে ভাষায় এ দেশের মানুষ কথা বলত, গান গাইত, কবিতা বানাত। মানুষের মুখে মুখে বদলে যায় ভাষার ধ্বনি। রূপ বদলে যায় শব্দের, বদল ঘটে অর্থের। অনেক দিন কেটে গেলে মনে হয় ভাষাটি একটি নতুন ভাষা হয়ে উঠেছে। আর সে ভাষার বদল ঘটেই জন্ম হয়েছে বাংলা ভাষার।

     অথবা, খ) সারমর্ম লেখো :

     ভদ্র মোরা, শান্ত বড়ো, পোষ-মানা এ প্রাণ

     বোতাম-আঁটা জামার নিচে শান্তিতে শয়ান।

     দেখা হলেই মিষ্ট অতি,

     মুখের ভাব শিষ্ট অতি,

     অলস দেহ ক্লিষ্ট গতি,

     গৃহের প্রতি টান—

     তৈল-ঢালা স্নিগ্ধ তনু নিদ্রা রসে ভরা

     মাথায় ছোটো, বহরে বড় বাঙালি সন্তান।

     ইহার চেয়ে হতাম যদি আরব বেদুইন,

     চরণ-তলে বিশাল মরু দিগন্তে বিলীন।

     ছুটছে ঘোড়া উড়ছে বালি,

     জীবনস্রোত আকাশে ঢালি

     হূদয়-তলে বহ্নি জ্বালি, চলছি নিশিদিন—

     বরশা হাতে, ভরসা প্রাণে,

     সদাই নিরুদ্দেশ

     মরুর ঝড় যেমন বহে সকল বাধা-হীন।

৮।   যেকোনো একটির ভাব-সম্প্রসারণ করো :

     ক) বাংলার ইতিহাস এ দেশের মানুষের রক্ত দিয়ে রাজপথ রঞ্জিত করার ইতিহাস।

     খ) আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি,

     আমি কি ভুলিতে পারি।

৯। ক) মনে করো, তোমার নাম তাহমিদ। তুমি শৈলপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ময়মনসিংহ-এর অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। তোমার রোল নম্বর ০৫। হঠাত্ তোমার বাবা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে তোমার লেখাপড়া বন্ধ হতে বসেছে। এ অবস্থায় বিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ তহবিল থেকে সাহায্য চেয়ে প্রধান শিক্ষকের নিকট একখানা আবেদপত্র লেখো।      ৫

     অথবা, খ) মনে করো, তুমি নুজহাত। তোমার ঢাকার বন্ধু নাবিলার মা সম্প্রতি ইন্তেকাল করেছেন। এ অবস্থায় তোমার বন্ধুকে সান্ত্বনা জানিয়ে একটি পত্র লেখো।

১০। যেকোনো একটি বিষয়ে প্রবন্ধ রচনা করো :     ১৫

     ক) বাংলাদেশের কৃষক       খ) বিজয় দিবস                গ) বাংলাদেশের ষড়ঋতু

বহু নির্বাচনী অংশ (মান-৩০)

     উদ্দীপকটি পড়ে ১, ২ ও ৩ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও :

     হাসান সাহেব বিদেশ থেকে এসে তাঁর বন্ধু আজিজ সাহেবের গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে গেলে তিনি হস্তচালিত তাঁতে বোনা দেশি কাপড়ের একটি পাঞ্জাবি বন্ধুকে উপহার দেন।

১।   আজিজ সাহেবের দেওয়া উপহারটিকে শিল্পগুণ বিচারে কোন শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত করা যায়? 

     ক) পোশাকশিল্প           খ) লোকশিল্প

     গ) কারুশিল্প       ঘ) চারুশিল্প

২।   উক্ত শ্রেণিভুক্ত উপহারটির স্বাক্ষর কোন কাপড়?

     ক) মসলিন         খ) জামদানি

     গ) খাদি          ঘ) টাঙ্গাইল-তাঁত

৩।   এরূপ উপহার দেওয়ার পেছনে আজিজ সাহেবের উদ্দেশ্যকে ‘আমাদের লোকশিল্প’ প্রবন্ধের আলোকে বলা যায়—

     i. দেশীয় ঐতিহ্যের সংরক্ষণ        ii. অর্থ সাশ্রয়

     iii. দেশীয় জিনিসের প্রতি আগ্রহী ও শ্রদ্ধাশীল করে তোলা

     নিচের কোনটি সঠিক?

     ক) i       খ) ii     গ) iও ii          ঘ) iও iii

৪।   আমার একার সুখ, সুখ নহে ভাই

     সকলের সুখ সখা, সুখ শুধু তাই।

     —উদ্দীপকের এই ভাব ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার কার সঙ্গে বৈসাদৃশ্যপূর্ণ?

     ক) লোক          খ) মোড়ল

     গ) কবিরাজ        ঘ) হাসু

৫।   উক্ত বৈসাদৃশ্য যে চরণে প্রকাশিত—

     i. মোড়ল যে অত্যাচারী, পাপী

     ii. আমাকে শান্তি দাও। সুখ দাও

     iii. সোজা নয়, খুব কঠিন কাজ। যাও সুখী মানুষকে খুঁজে দেখো

     নিচের কোনটি সঠিক?

     ক) i    খ) ii    গ) iiii       ঘ) iও iii

     ‘প্রবাস বন্ধু’ গল্পের লেখক আফগানিস্তানে গেলে তাঁর দেখভালের দায়িত্বে নিয়োজিত আবদুর রহমান প্রথম রাতেই তাঁর একার জন্য যে শাহি খাবার পরিবেশন করে তা কমপক্ষে ছয়জন খেতে পারত। লেখক খাবারের পরিমাণ দেখে বিস্মিত হলে সে জানায় যে আরো খাবার রয়েছে, দুশ্চিন্তার কারণ নেই।

৬।   উদ্দীপকের লেখকের খাবারের সঙ্গে ‘মংড়ুর পথে’ রচনার লেখকের খাবারের বৈসাদৃশ্য হলো—

     i. পোড়া মরিচ কচলে নুন-তেল দিয়ে ভর্তা করল

     ii. ধানি লঙ্কা পুড়ে নুন ও পেঁয়াজ দিয়ে ভর্তা করল

     iii. একটা প্লেটে তার সঙ্গে দিল কচি লেবুপাতা

     নিচের কোনটি সঠিক?

   ক) i ও ii  খ) i ও iii

     গ) ii ও iii     ঘ) i, ii ও iii

৭।   বৈসাদৃশ্যগত দিকটিতে প্রকাশ পেয়েছে মিয়ানমারে অধিবাসীদের—

     ক) খাদ্যাভ্যাস                 খ) ভোজন বিলাসিতা

     গ) কৃপণতা        ঘ) মিতব্যয়িতা

     মুদি দোকানি রমিজ মিয়া প্রতিদিন সকালে দোকান ঝাড়ু দিয়ে এক মগ পানি সারা দোকানে ও বাইরে ছিটিয়ে দেন। তাঁর বিশ্বাস, এতে তাঁর দোকানের বিক্রি ভালো হবে।

৮।   উদ্দীপকের রমিজ মিয়ার এই কাজ ‘বাংলা নববর্ষ’ প্রবন্ধের কোন অনুষ্ঠানকে নির্দেশ করে?           ক) হালখাতা           খ) পুণ্যাহ

     গ) আমানি         ঘ) বৈশাখী মেলা

৯।   উক্ত অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য হলো—

     ক) পরিবারের সবার কল্যাণ কামনা    খ) খাজনা আদায়

     গ) জীবনযাত্রায় গতিশীলতা আনয়ন    ঘ) বকেয়া আদায় ও মিষ্টিমুখ করানো

১০।  প্রাকৃত ভাষাগুলো কথ্য ও লিখিত ভাষারূপে ভারতের বিভিন্ন স্থানে প্রচলিত থাকে মোটামুটি কত দিন?

     ক) ১২০ থেকে ৮০০ খ্রিস্টপূর্ব খ) খ্রিস্টপূর্ব ৮০০ থেকে ৪০০ অব্দ পর্যন্ত

     গ) খ্রিস্টপূর্ব ৪৫০ থেকে ১০০০ খ্রি.  ঘ) ৮০০ খ্রি. থেকে ১২০০ খ্রি.

১১।  ‘বাঁশের চেয়ে কঞ্চি বড়’ প্রবাদটি ‘দুই বিঘা জমি’ কবিতার কোন চরণের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ?

     ক) ঝুঁটি বাঁধা উড়ে সপ্তম সুরে পাড়িতে লাগিল গালি         খ) শুনি বিবরণ ক্রোধে তিনি কন, মারিয়া করিব খুন

     গ) বাবু কহে হেসে, বেটা সাধু বেশে পাকা চোর অতিশয়          ঘ) বাবু যত বলে, পারিষদ দলে বলে তার শত গুণ

১২।  কাজী নজরুল ইসলাম প্রশংসা পেয়েছেন—

     ক) আরবি-ফারসি শব্দ ব্যবহার করে খ) বিদ্রোহী কবিতা ও গান রচনা করে

     গ) সাম্যবাদী চেতনাভিত্তিক কবিতা, শ্যামাসংগীত ও গজল লিখে      ঘ) সাহিত্যের সব শাখায় বিচরণ করে

১৩। জেগে উঠো আজ সাহসী যৌবন, আনো নব উত্থান

     দ্রোহের আগুনে পোড়াও ওদের, গাও বিজয় গান।

     উদ্দীপকের ভাব ‘একুশের গান’ কবিতার যে চরণের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ তা হলো—

     i. জাগো নাগিনীরা জাগো নাগিনীরা জাগো কাল বোশেখিরা

     ii. জাগো মানুষের সুপ্ত শক্তি হাটে মাঠে বাঁকে

    iii . দারুণ ক্রোধের আগুনে আবার জ্বালব ফেব্রুয়ারি

     নিচের কোনটি সঠিক?

  ক) i ও ii  খ) i ও iii

     গ) ii ও iii     ঘ) i, ii ও iii

১৪।  ‘রুপাই যেমন বাপের বেটা কেউ দেখেছ হেন?’ চরণটি দিয়ে কী বুঝিয়েছে?

     ক) রুপাই তার পিতার মতোই যোগ্য চাষি                    খ) রুপাই পুত্র হিসেবে বাপের নাম রেখেছে

     গ) গুণ ও কর্মদক্ষতার রুপাইয়ের জুড়ি মেলা ভার              

     ঘ) রুপাই একজন দক্ষ কৃষক ও ভালো শিল্পী

১৫।  ‘বাবুরের মহত্ত্ব’ কবিতায় বাবুরের প্রতি চৌহানের আনুগত্যের চরম প্রকাশ কোন চরণে প্রকাশ পেয়েছে?

     ক) হরিতে ইহারই প্রাণ/পথে পথে আমি করিতেছি সন্ধান?          খ) ভারতের রাজপদ/সাজে আপনারে, অন্য কারেও নয়

     গ) বীরভোগ্যা এ বসুধা, এ কথা সবাই কয়                   ঘ) সঁপিনু জীবন, করুন এখন দণ্ডবিধান মোর

১৬।  ‘সুখে থেকো, ভালো থেকো, মনে রেখো এই আমারে’—উদ্দীপকের এই ভাব ‘বঙ্গভূমির প্রতি’ কবিতার যে চরণে প্রাকাশ পেয়েছে—

     ii. রেখো, মা, দাসেরে মনে/এ মিনতি করি পদে

     ii. কিন্তু যদি রাখ মনে/নাহি, মা, ডরি শমনে

     iii. সেই ধন্য নরকুলে/লোকে যারে নাহি ভুলে

     নিচের কোনটি সঠিক?

     ক) i ও ii  খ) i ও iii

     গ) ii ও iii     ঘ) i, ii ও iii

১৭।  বাক্যের অন্তর্গত পদগুলোর মধ্যে অর্থের সংগতি ও ভাবের মিলবন্ধনকে কী বলে?

     ক) আকাঙ্ক্ষা   খ) আসত্তি

     গ) আসক্তি   ঘ) যোগ্যতা

১৮।  একটি উদ্দেশ্য ও একটি বিধেয় ক্রিয়ার সমষ্টি যদি নিজে একটি স্বাধীন বাক্য হিসেবে ব্যবহূত না হয়ে অন্য কোনো বৃহত্তর বাক্যের অংশরূপে ব্যবহূত হয়, তবে তাকে কী বলে?

     ক) খণ্ড বাক্য       খ) অধীন বাক্য

     গ) পরাধীন বাক্য ঘ) জটিল বাক্য

১৯।  যৌগিক বাক্যের উদাহরণ কোনটি?

     ক) আমি বহু কষ্টে সাঁতার শিখেছি খ) এতক্ষণ অপেক্ষা করলাম কিন্তু গাড়ি পেলাম না

     গ) যদিও তার টাকা আছে, তবু তিনি দান করেন না

     ঘ) তুমি আসবে বলে আমি অপেক্ষা করে আছি

২০।  একই ধরনের একাধিক বাক্য বা বাক্যাংশকে আলাদা করতে কোন বিরাম চিহ্ন বসে?

     ক) হাইফেন        খ) কোলন

     গ) কমা          ঘ) সেমিকোলন

২১।  কোন বানানে সামান্যরূপে পদান্তে ও-কার প্রদান করা যায়?

     ক) ক্রিয়াপদের বানানে পদান্তে খ) বর্তমান অনুজ্ঞার পদান্তে

     গ) আনো প্রত্যয়ান্ত শব্দের শেষে ঘ) অর্থ বা উচ্চারণ বিভ্রান্তির সুযোগ থাকলে

২২।  সন্ধিতে (তত্সম শব্দে) প্রথম পদের শেষে ম্ থাকলে ক-বর্গের পূর্বে ম্ স্থানে ং (অনুস্বার) হবে—এর উদাহরণ কোনটি?

     ক) আকাঙ্ক্ষা        খ) অঙ্কুর

     গ) সংগীত         ঘ) পঙ্কজ

২৩।  ‘ভুবন’ শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি?

     ক) ধরা           খ) ভূপতি

     গ) পাথার         ঘ) বায়ু

২৪।  ‘শ্রুতি’ শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি?

     ক) অহি           খ) শির

     গ) ভানু           ঘ) কর্ণ

২৫।  ‘একমাত্র সন্তান’ অর্থে কোন বাগধারাটি হবে?

     ক) সোনার পাথর বাটি      খ) শিবরাত্রির সলতে

     গ) দুধে-ভাতে থাকা        ঘ) নাড়ির টান

২৬।  সন্ধি ও সমাসযোগে গঠিত শব্দের বানানে দন্ত্য-ন বহাল থাকে—এর উদাহরণ কোনটি?

     ক) অনন্ত          খ) দুর্নাম

     গ) হর্ন           ঘ) লন্ডন

২৭।  ‘লণ্ঠন’ শব্দে দন্ত্য-ন কেন হয়েছে?

     ক) সন্ধি ও সমাসযোগে গঠিত শব্দের বানানে দন্ত্য-ন হয়          খ) যুক্ত ব্যঞ্জন গঠনে ট-বর্গের দন্ত্য-ন হয়

     গ) তদ্ভব, দেশি ও বিদেশি শব্দে সর্বত্র দন্ত্য-ন হয়             

     ঘ) যুক্ত ব্যঞ্জন গঠনে ত-বর্গের পূর্বে দন্ত্য-ন হয়

২৮।  ‘দুঃখ শব্দে কোন নিয়মে বিসর্গ হয়েছে?

     ক) পদান্তে বিসর্গ (ঃ) থাকবে না    খ) পদমধ্যস্থ বিসর্গ (ঃ) থাকবে

     গ) অভিধানসিদ্ধ হলে পদমধ্যস্থ বিসর্গ (ঃ) বর্জনীয়         ঘ) অভিধানসিদ্ধ হলে পদের মধ্যে বিসর্গ (ঃ) থাকবে

২৯।  ‘নেপালি’ শব্দে কেন ই-কার হয়েছে?

     ক) ভাষা ও জাতির নাম বলে      

     খ) বিশেষণ বাচক আলি প্রত্যয় যুক্ত শব্দে ই-কার হবে

     গ) অতত্সম শব্দ বলে     

     ঘ) তত্সম শব্দ বলে

৩০।  যেসব অব্যয় বৈপরীত্য বা অনুমান প্রকাশ করে, তাদের আগে কোন বিরাম চিহ্ন বসে?

     ক) দাঁড়ি          খ) কোলন ড্যাস

     গ) হাইফেন        ঘ) সেমিকোলন

বাংলা মডেল প্রশ্নের সৃজনশীল অংশের ব্যাখ্যাসহ উত্তর

 

বাংলা পাঠ্যসূচিতে ১০টি গদ্য ও ১০টি পদ্য রয়েছে। এর মধ্যে পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের সৃজনশীল অংশে গদ্যাংশ থেকে ৩টি ও পদ্যাংশ থেকে ৩টি করে মোট ৬টি প্রশ্ন থাকে, যেখান থেকে দুটি দুটি করে মোট চারটি প্রশ্নের উত্তর লিখতে হয়। প্রতিটি প্রশ্নের স্তর চারটি করে, যেমন—জ্ঞানমূলক, অনুধাবনমূলক, প্রয়োগ ও উচ্চতর দক্ষতা। নিচে বাংলা মডেল টেস্টের এক (১) নম্বর প্রশ্নটির উত্তর ব্যাখ্যাসহ আলোচনা করা হলো—

 

মডেল টেস্টের ১ নম্বর প্রশ্ন : 

ব্যাখ্যাসহ উত্তর

জ্ঞান স্তর (ক): সৃজনশীল অংশের ক্ষেত্রে জ্ঞানমূলক প্রশ্নের উত্তরের অংশটি শুদ্ধ হলেই ১ নম্বর পাওয়া যায়। বাংলা নমুনা প্রশ্নের ১ নম্বরে যে জ্ঞানমূলক প্রশ্নটি রাখা হয়েছে, সেটি এমন—(ক) ‘হাস্য-লাস্য-ভাষ্য’ মমতাজউদ্দীন আহমদের কী ধরনের রচনা? এই প্রশ্নটির উত্তর এক বাক্যেই দেওয়া যায়, যেমন—(ক) উত্তর : ‘হাস্য-লাস্য-ভাষ্য’ মমতাজউদ্দীন আহমদের একটি নাটক।

অনুধাবন স্তর (খ) : অনুধাবন স্তরের মান অনুসারে দুই অংশে উত্তর করতে হবে। যেমন—(খ) কবিরাজ মোড়লের জন্য কেন ফতুয়া সংগ্রহ করতে বলেছে, তা লিখতে হবে? ব্যাখ্যা করো। এ ক্ষেত্রে প্রথম প্যারায় এক বাক্যে কেন ফতুয়া সংগ্রহ করতে বলেছে, তা লিখতে হবে। দ্বিতীয় প্যারায় লেখক ও গল্পের নাম লিখে ফতুয়া সংগ্রহ করতে বলার কারণ দু-তিনটি বাক্যে অর্থাত্ অল্প কথায় বুঝিয়ে লিখতে হবে। যেমন—(খ) উত্তর : কবিরাজ মোড়লের সুস্থতার জন্য ফতুয়া সংগ্রহ করতে বলেছে।

মমতাজউদ্দীন আহমদের ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার মোড়লের কঠিন অসুখ করেছে। কবিরাজ রোগীর নাড়ি পরীক্ষা করে বলেছে যে মোড়লের সুস্থতার জন্য একটি ফতুয়া সংগ্রহ করতে হবে, তবে ফতুয়াটা হতে হবে একজন সুখী মানুষের। সেই ফতুয়া বা জামাটা গায়ে দিলে তত্ক্ষণাত্ মোড়লের হাড় মড়মড় রোগ ভালো হয়ে যাবে।

প্রয়োগ স্তর (গ) : প্রয়োগ স্তরে তিনটি অংশে উত্তর করতে হয়। এ ক্ষেত্রে উদ্দীপকের সঙ্গে কিভাবে গদ্য-পদ্যটি সাদৃশ্য বা বৈসাদৃশ্যপূর্ণ তা প্রথম প্যারায় এক বাক্যে লিখতে হবে। দ্বিতীয় প্যারায় পঠিত গদ্য-পদ্যের সেই সাদৃশ্য-বৈসাদৃশ্যপূর্ণ বিষয়টুকু লিখতে হবে। তৃতীয় প্যারায় উদ্দীপকের সঙ্গে পাঠ্য বিষয়ের লিখিত অংশের মিল-অমিলের প্রসঙ্গ দু-একটি বাক্যে লিখতে হয়। বাংলা নমুনা প্রশ্নের ১ নম্বরে যে প্রয়োগমূলক প্রশ্নটি রাখা হয়েছে, সেটি হলো এমন—(গ) উদ্দীপকের মোশতাক ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার মোড়ল চরিত্রের সঙ্গে কিভাবে সাদৃশ্যপূর্ণ? ব্যাখ্যা করো। ওপরের কৌশল অনুযায়ী এর উত্তর হবে—(গ) উত্তর : উদ্দীপকের মোশতাক ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার মোড়ল চরিত্রের সঙ্গে অন্যের সম্পদ আত্মসাত্ করার দিক থেকে সাদৃশ্যপূর্ণ।

‘সুখী মানুষ’ নাটিকার মোড়ল একটা কঠিন লোক। সে সুবর্ণপুরের মানুষের ওপর অনেক অত্যাচার করেছে। অন্যের গরু কেড়ে, ধান লুট করে সে তার সম্পদ বৃদ্ধি করেছে; এমনকি আত্মীয় হওয়া সত্ত্বেও সে হাসুর মুরগি জবাই করে খেয়েছে। অন্যের কান্না দেখলে তার কোনো কষ্ট হয় না। সে লোভী বলে মানুষকে কষ্ট দিয়ে, ঠকিয়ে আনন্দ পায়।

উদ্দীপকের মোশতাক সম্পদশালী হওয়া সত্ত্বেও লোভের কারণে অসহায় মানুষদের কাছ থেকে কম দামে জমি কিনে নেয়। মোশতাক চরিত্রের এই দিকটি ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার মোড়ল চরিত্রের উপর্যুক্ত বক্তব্যের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

উচ্চতর দক্ষতা স্তর (ঘ) : উচ্চতর দক্ষতার ক্ষেত্রে চারটি অংশে উত্তর লিখতে হয়। এ অংশে উদ্দীপকের আলোকে পরীক্ষার্থীর মতামত প্রতিষ্ঠা করতে বলা হয়। যেমন—নমুনা প্রশ্ন অনুযায়ী (ঘ) ‘প্রেক্ষাপট ভিন্ন হলেও উদ্দীপকের মামুন ও ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার লোকটির অনুভূতি এক সূত্রে গাঁথা’—মন্তব্যটির যথার্থতা যাচাই করো। এখানেও প্রয়োগ স্তরের মতো দ্বিতীয় প্যারায় মামুন ও ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার লোকটির অনুভূতি এবং তৃতীয় প্যারায় ‘প্রেক্ষাপট ভিন্ন হলেও উদ্দীপকের মামুন ও ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার লোকটির অনুভূতি এক সূত্রে গাঁথা’—মন্তব্যটির যথার্থতা তুলে ধরতে হবে। যেমন—(ঘ) উত্তর : ‘সত্পথে নিজ পরিশ্রমের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করলেই জীবনে শান্তি মেলে’—উদ্দীপকের মামুন ও ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার লোক উভয়ই এই অনুভূতি লালন করে।

‘সুখী মানুষ’ নাটিকার বনের মধ্যে বসবাসকারী লোক নিজের শ্রমে উপার্জিত অর্থ দিয়ে কোনোভাবে জীবিকা নির্বাহ করে। সে সারা দিন বনে বনে কাঠ কাটে। সেই কাঠ বাজারে বেচে যা পায় তা দিয়ে চাল-ডাল কিনে মনের সুখে খেয়েদেয়ে শুয়ে পড়ে। এক ঘুমেই তার রাত ফুরিয়ে যায়। তার জামা-জুতা-সোনা-দানা অর্থাত্ বাড়তি কোনো সম্পদ নেই বলে চুরিরও কোনো ভয় নেই; এমনকি তার নিজের গায়ের একটা জামা না থাকলেও তার মনে কোনো দুঃখ নেই; বরং এ কারণে সে নিজেকে সুখী মনে করে।

উদ্দীপকের মামুনও অসহায় মানুষদের জন্য কিছু করতে পেরে আত্মসুখ অনুভব করে।

উপর্যুক্ত বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তাই বলা যায়, প্রেক্ষাপটের ভিন্নতা থাকা সত্ত্বেও উদ্দীপকের মামুন ও ‘সুখী মানুষ’ নাটিকার লোকটির অনুভূতি এক সূত্রে গাঁথা, যার নাম আত্মসুখ।

[মডেল টেস্টের বাকি উত্তর পাবে মূল পত্রিকার পড়ালেখা পাতায়। ১৫ অক্টোবর থেকে ধারাবাহিকভাবে ছাপা হবে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা