kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৬ নভেম্বর ২০২০। ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

অধ্যক্ষের পরামর্শ

প্রত্যাশিত ফল অর্জন করো

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রত্যাশিত ফল অর্জন করো

ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা , প্রিন্সিপাল, সামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ

জেএসসির সাফল্যই তোমাদের ভবিষ্যত্ ভিত্তি। এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েই তোমরা নবম শ্রেণিতে উঠবে। আর নবম শ্রেণি থেকেই তো স্বপ্নপূরণের যাত্রা শুরু। সেই চিন্তা মাথায় রেখেই ভালো করে পরীক্ষা দাও, যাতে প্রত্যাশিত ফল অর্জন করতে পারো। যেহেতু সময় বেশি নেই। এখন শুধু রিভিশন দাও। যে বিষয়টিতে ঘাটতি আছে সে বিষয়টির জন্য সময় একটু বেশি বের করো। উত্তর না জানা সম্ভাব্য প্রশ্নগুলো বাছাই করে দ্রুত উত্তর শিখে নাও। এ ক্ষেত্রে বিষয়সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের সাহায্য নিতে পারো। তবেই পরীক্ষা আশানুরূপ দেওয়া সম্ভবপর হবে। পরীক্ষার হলে যাওয়ার আগেই প্রশ্নের ধরন অনুযায়ী সময় ভাগ করে নাও। উত্তর কিভাবে লিখতে হয়, কয়টি প্রশ্ন থাকবে, কয়টির উত্তর দিতে হবে, মান বণ্টণ সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা রাখো। পরীক্ষা নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকবে। দুর্বল হলে চলবে না। হাতের লেখা যাতে পরিচ্ছন্ন ও সুন্দর হয় সেদিকে খেয়াল রাখবে। কারণ হাতের লেখা সুন্দর হলে বেশি নম্বর পাওয়া যায়। তোমরা সফল হও, উজ্জ্বল হয়ে উঠুক তোমাদের জীবন।     

শিক্ষা বোর্ডের বিশেষ নির্দেশনা

♦    পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষাকক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে।

♦   প্রশ্নপত্রে উল্লিখিত সময় অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে।

♦    সৃজনশীল ও বহু নির্বাচনী পরীক্ষায় একই উত্তরপত্র ব্যবহার করতে হবে।

♦    শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা, চারু ও কারুকলা, কৃষিশিক্ষা, গার্হস্থ্যবিজ্ঞান, আরবি, সংস্কৃত, পালি বিষয়গুলো এনসিটিবির নির্দেশনা অনুসারে ধারাবাহিক মূল্যায়নের মাধ্যমে প্রাপ্ত নম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রকে সরবরাহ করবে। পরীক্ষার্থীর রোল নম্বর পাওয়ার পর সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র পরীক্ষা চলাকালীন বোর্ডের ওয়েবসাইটে অনলাইনের মাধ্যমে ধারাবাহিক মূল্যায়নের প্রাপ্ত নম্বর এন্ট্রি করে প্রেরণ করবে।

♦    পরীক্ষার্থীরা তাদের প্রবেশপত্র নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানপ্রধানের কাছ থেকে পরীক্ষা আরম্ভের কমপক্ষে  তিন দিন আগে সংগ্রহ করবে।

♦    পরীক্ষার্থীরা তাদের নিজ নিজ উত্তরপত্রের OMRফরমে তার পরীক্ষার রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, বিষয় কোড যথাযথভাবে লিখে বৃত্ত ভরাট করবে। কোনো অবস্থায়ই উত্তরপত্র ভাঁজ করা যাবে না।

♦    পরীক্ষার্থীকে প্রতি বিষয়ে স্বাক্ষরলিপিতে অবশ্যই স্বাক্ষর করতে হবে।

♦    প্রত্যেক পরীক্ষার্থী শুধু নিবন্ধনপত্রে বর্ণিত বিষয়/বিষয়গুলোর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। কোনো অবস্থায়ই ভিন্ন বিষয় পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

♦    পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষায় সাধারণ সায়েন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে।

♦    কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে পারবে না।    

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা