kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ডে এক আলোর স্তম্ভ

দ্য গ্লোরি অব বঙ্গবন্ধু

মুহাম্মাদ ইয়ামিন   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ডে এক আলোর স্তম্ভ

দ্য গ্লোরি অব বঙ্গবন্ধু, মোহাম্মদপুর, ঢাকা

মোহাম্মাদপুর বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন বাঁশবাড়ী রোডের মাথায় দাঁড়িয়ে আছে আল্লাহর ৯৯ নামসংবলিত দৃষ্টিনন্দন একটি মিনার। নাম ‘দ্য গ্লোরি অব বঙ্গবন্ধু’। ২০১৯ সালের শেষভাগে মিনারটি উদ্বোধন করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের তৎকালীন কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব। সরকার রায়ের বাজারে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় কবরস্থান নির্মাণের সুযোগ করে দেওয়ায় ধন্যবাদ জ্ঞাপনের জন্য স্থাপত্যটি নির্মাণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

উদ্বোধনের সময় থেকেই মিনারটি স্থানীয় বাসিন্দা, পথচারী ও শিল্পানুরাগী মানুষের প্রশংসা কুড়িয়ে আসছে।

আল্লাহর ৯৯ নামসংবলিত দৃষ্টিনন্দন মিনার ‘দ্য গ্লোরি অব বঙ্গবন্ধু’ পথচারীদের দৃষ্টির শিথিলতা ও অন্তরের প্রশান্তি। ব্যস্ত সড়কের মাঝে স্বগর্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে মিনারটি। শরীরজুড়ে অঙ্কিত আল্লাহর নাম। যা সাদা দেয়ালের ওপর কালো অক্ষরে প্রস্ফুটিত। একেবারে ওপড়ে একটি সুন্দর চিকন গোল্ডেন কালারের তামার পাত। পাতটির আকৃতি চাঁদের মতো। দিনে সূর্যের আলোয় জ্বলজ্বল করে চাঁদটি এবং মিনারটিকে সৌন্দর্যমণ্ডিত করে বেশ।

নান্দনিক মিনারটি সম্পর্কে আল্লাহ কারিম মসজিদের ইমাম মাওলানা এমদাদুল্লাহ মাহমুদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, মিনারটিতে আল্লাহর নামের যে অনুলিপি দেখছেন তা আমি লিখে দিয়েছি। খুব ভালো লাগে এই ভেবে যে আমার লিখে দেওয়া আল্লাহর ৯৯ নাম এমন সুন্দর একটি মিনারে স্থান পেয়েছে। ’ তিনি আরো জানান, মিনারটি মার্বেল ও দামি পাথর দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। আমার মসজিদ থেকে মিনারটি দেখা যায়। আন নূর ইসলামিয়া নৈশ মাদরাসার (মোহাম্মাদপুর) শিক্ষাসচিব মাওনালা গোলাম রাব্বি আল্লাহর গুণবাচক নামসংবলিত এই মিনার বিষয়ে বলেন, এমন মিনার হওয়া ইতিবাচক। এতে ইসলামী সংস্কৃতির প্রসার ঘটে। তবে নামগুলো যদি মনের ভেতর গেঁথে রাখা যায়, তাহলে সেটি আরো উত্তম। শহরের সৌন্দর্য বর্ধনে এমন উদ্যোগ প্রশংসনীয়।

 

 



সাতদিনের সেরা