kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ ডিসেম্বর ২০২২ । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সৌদি আরবের ৯২তম জাতীয় দিবস

মসজিদুল হারামে রোবটিক সেবার প্রদর্শনী

ইসলামী জীবন ডেস্ক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মসজিদুল হারামে রোবটিক সেবার প্রদর্শনী

কাবা প্রাঙ্গণে রোবটিক সেবা নিচ্ছেন একজন মুসল্লি

সৌদি আরবের ৯২তম জাতীয় দিবস গত ২৩ সেপ্টেম্বর উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে দেশটির মক্কা ও মদিনার পবিত্র দুই মসজিদে মুসল্লিদের প্রদত্ত অত্যাধুনিক সেবা কার্যক্রম প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়। এতে দুই মসজিদের মুসল্লি ও ওমরাহযাত্রীদের জন্য আধুনিক প্রযুক্তি, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসহ সব সেবামূলক কার্যক্রমে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়ার চিত্র তুলে ধরা হয়। নিম্নে মসজিদুল হারামে প্রদত্ত সেবা কার্যক্রমের চিত্র তুলে ধরা হলো—

রোবটের মাধ্যমে পরিচ্ছন্নতা : অত্যাধুনিক প্রযুক্তির রোবটের সাহায্যে পবিত্র মসজিদুল হারাম ও এর চত্বরের আবহাওয়া ও পরিবেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, স্বাস্থ্যসম্মত ও জীবাণুমুক্ত রাখার ব্যবস্থা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

রোবটটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে একাধারে ৫ থেকে ৮ ঘণ্টা কাজ করে এবং ২৩.৮ লিটার ধারণক্ষমতাসম্পন্ন রোবটে ৬০০ বর্গ মিটার স্থান জীবাণুমুক্ত রাখতে ঘণ্টায় দুই লিটার জীবাণুনাশক ব্যবহৃত হয়। মসজিদে আগত মুসল্লি ও ওমরাহযাত্রীদের কভিড-১৯সহ সব ধরনের মহামারি সুরক্ষা দিতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির রোবট পদ্ধতি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসা কুড়িয়েছে।

কোরআন বিতরণে রোবট : ভিড় এড়াতে মসজিদের ভেতর অত্যাধুনিক রোবটের সাহায্যে মুসল্লিদের মধ্যে পবিত্র কোরআন বিতরণ করা হয়। ৪০ কেজি ধারণক্ষমতার রোবটে চারটি তাক রয়েছে, যা ম্যানুয়াল ও অটোমেটিক উভয় পদ্ধতিতে সেবা দিচ্ছে।

নির্দেশনা দিতে রোবট : মুসল্লিদের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর ও ফতোয়া প্রদানে ব্যবহৃত হচ্ছে ২১ ইঞ্চির অত্যাধুনিক টাচ স্কিন রোবট। চার চাকার অত্যাধুনিক রোবট মুসল্লিদের ওমরাহ পালন, ইসলামবিষয়ক জিজ্ঞাসার জবাবসহ ইসলামী বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কথা বলার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে। বিদেশি মুসল্লিদের নির্দেশনা দিতে রোবটের সাহায্যে ১১ ভাষায় তাত্ক্ষণিক অনুবাদ সেবা দেওয়া হচ্ছে। আরবি, ইংরেজি, ফ্রেঞ্চ, রুশ, ফারসি, তুর্কি, চায়নিজ, বাংলা ও হাউসাসহ মোট ১১ ভাষায় ইসলাম বিষয়ক নানা প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়।

জমজমের পানি বিতরণে রোবট : অত্যাধুনিক রোবটের সাহায্যে মুসল্লিদের মধ্যে পবিত্র জমজমের পানি বিতরণ করা হয়। করোনাকালে মুসল্লিদের ভিড় প্রতিকারে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। কারো সরাসরি সহয়তা ছাড়াই তা একাধারে ৫ থেকে ৮ ঘণ্টা জমজমের পানির বোতল বিতরণে কাজ করছে। প্রতি ১০ মিনিটে এক রাউন্ডে ৩০টি জমজমের বোতল বিতরণ করা হয়। এসব বোতল লোড করতে সময় নেয় মাত্র ২০ সেকেন্ড।

সূত্র : হারামাইন ওয়েবসাইট

 



সাতদিনের সেরা