kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভালো কাজে পাপ মোচন হয়

নিঃসন্দেহে ভালো কাজগুলো মন্দ কাজগুলোকে মিটিয়ে দেয় -সুরা হুদ, আয়াত : ১১৪

মুফতি মুহাম্মদ মর্তুজা   

২০ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মানুষ মাত্রই ভুল করে, গুনাহে লিপ্ত হয়। এটা মানুষের স্বভাবজাত প্রবণতা। নবী-রাসুলরা ছাড়া সব মানুষই পাপপ্রবণ, তারা ইচ্ছা-অনিচ্ছায় পাপে লিপ্ত হয়েই যায়। তাই মহান আল্লাহ তাঁর বান্দাদের জন্য পাপমোচনেরও অনেক রাস্তা খোলা রেখেছেন।

বিজ্ঞাপন

জীবনকে পাপমুক্ত রাখতে প্রথমত পাপ থেকে বিরত থাকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে, দ্বিতীয়ত বেশি বেশি নেক আমল তথা ভালো কাজ করতে হবে। কারণ ভালো কাজের মাধ্যমে পাপ মোচন হয়।

পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘এবং আপনি নামাজ প্রতিষ্ঠা করুন দিনের দুই প্রান্তে ও রাতের কিছু অংশে; নিঃসন্দেহে ভালো কাজগুলো মন্দ কাজগুলোকে মিটিয়ে দেয়; এটা হচ্ছে একটি (ব্যাপক) উপদেশ, উপদেশ মান্যকারীদের জন্য। ’ (সুরা হুদ, আয়াত : ১১৪)

উল্লিখিত আয়াতে মহান আল্লাহ বলেছেন, ‘ভালো কাজগুলো মন্দ কাজগুলোকে মিটিয়ে দেয়। ’ এখানে ভালো কাজ বলতে অধিকাংশ আলেমের মতে নামাজ বোঝানো হয়েছে। (তাফসিরে তাবারি)

যদিও নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, সদকা, সদ্ব্যবহার প্রভৃতি যাবতীয় সৎ কাজই উদ্দেশ্য হতে পারে। (কুরতুবি)

এর স্বপক্ষে অবশ্য নবীজি (সা.)-এর হাদিসও পাওয়া যায়। হুজাইফা (রা.) বলেন, একদা আমরা ওমর (রা.)-এর কাছে বসে ছিলাম। তখন তিনি বলেন, ফিতনা-ফাসাদ সম্পর্কে রাসুল (সা.)-এর বক্তব্য তোমাদের মধ্যে কে মনে রেখেছো? হুজাইফা (রা.) বলেন, ‘যেমনভাবে তিনি বলেছিলেন হুবুহু তেমনি আমি মনে রেখেছি। ’

উমর (রা.) বলেন, আল্লাহর রাসুল (সা.)-এর বাণী মনে রাখার ব্যাপারে তুমি খুব দৃঢ়তার পরিচয় দিচ্ছো। আমি বললাম [রাসুল (সা.) বলেছিলেন] মানুষ নিজের পরিবার-পরিজন, ধন-সম্পদ, সন্তান-সন্ততি, পাড়া-প্রতিবেশীদের ব্যাপারে যে ফিতনায় পতিত হয়, নামাজ, রোজা, সদকা (ন্যায়ের) আদেশ ও অন্যায়ের নিষেধ তা দূরীভূত করে দেয়...। ’ (বুখারি, হাদিস : ৫২৫)

অর্থাৎ নামাজ, রোজা, সদকা, সৎ কাজে আদেশ, অসৎ কাজে নিষেধ ইত্যাদির মতো ভালো কাজগুলো করলে মহান আল্লাহ বান্দার পাপ মোচন করে দেন। তবে হাদিস বিশারদরা বলেন, এখানে সগিরা গুনাহ বোঝা হয়েছে, কবিরা গুনাহের ক্ষেত্রে অবশ্যই তাওবা করতে হবে এবং সামনে এমন গুনাহে লিপ্ত না হওয়ার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করতে হবে।

এবং তাঁরা উল্লিখিত পাঁচটি আমলকে শরীর, সম্পদ ও বাকশক্তির হক হিসেবে চিহ্নিত করেন। যেমন নামাজ ও রোজা শরীরের হক আদায়ের অন্যতম আমল, সদকা (নফল হোক বা ওয়াজিব) সম্পদের হক আদায়ের আমল এবং সৎ কাজে আদেশ ও অসৎ কাজে বাধা প্রদান বাকশক্তির হক আদায়ের অন্যতম আমল। (উমদাতুল কারি: ৭/৩১১)

মহান আল্লাহ আমাদের বেশি বেশি ভালো কাজ করার তাওফিক দান করুন। আমিন



সাতদিনের সেরা