kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১২ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৩০ সফর ১৪৪৪

সুধারণা সুসম্পর্ক গড়ে তোলে

জাওয়াদ তাহের   

১৯ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বর্তমান সময়ে হাজারো বিবাদ ও মতানৈক্যের সূত্রপাত কুধারণার কারণে। অগণিত পরিবার, বন্ধু-বান্ধব ও সমাজে এ কারণেই তাদের মাঝে বিচ্ছেদ ও কলহ হয়েছে। অথচ বাস্তবে কোনো কিছুই নেই। মন্দ ধারণার পরিবর্তে যদি ভালো ধারণা পোষণ করত তাহলে পরস্পর ভালোবাসা ও সম্প্রীতি বৃদ্ধি পেত।

বিজ্ঞাপন

কারো থেকে কোনো মন্তব্য বা কোনো কথা শুনে কোনো ব্যক্তির ব্যাপারে খারাপ ধারণা করা মুমিনের বৈশিষ্ট্য হতে পারে না। মন্দ ধারণা পরস্পরের মাঝে ঘৃণা-বিদ্বেষ তৈরি করে। আর ভালো ধারণা সমাজের মাঝে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য বৃদ্ধি করে। এ জন্য আল্লাহ তাআলা খারাপ ধারণা থেকে বেঁচে থাকার জন্য বিশেষভাবে আদেশ করেছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘হে মুমিনরা, অধিক পরিমাণ অনুমান থেকে বেঁচে থেকো। কোনো কোনো অনুমান গুনাহ। তোমরা কারো গোপন ত্রুটির অনুসন্ধানে পড়বে না এবং তোমাদের একে অন্যের গিবত করবে না। তোমাদের মধ্যে কেউ কি তার মৃত ভাইয়ের গোশত খেতে পছন্দ করবে? এটাকে তো তোমরা ঘৃণা করে থাকো। তোমরা আল্লাহকে ভয় করো। নিশ্চয়ই আল্লাহ অতি তাওবা কবুলকারী, পরম দয়ালু। ’ (সুরা : আল-হুজুরাত, আয়াত : ১২)

কোনো কথা শোনামাত্রই তা বিশ্বাস করে ফেলা এবং এর ফলে কারো প্রতি মন্দ ধারণার কারণে আল্লাহ তাআলা ভর্ত্সনা করেছেন। আল্লাহ বলেন, ‘যখন তোমরা তা শুনলে, তখন কেন মুমিন পুরুষ ও মুমিন নারী নিজেদের সম্পর্কে সুধারণা পোষণ করলে না এবং বললে না—এটা সুস্পষ্ট মিথ্যা?’ (সুরা : আন-নুর, আয়াত : ১২)

একজন মুমিন অন্য মুমিনের ব্যাপারে সব সময় তার দিলকে পরিষ্কার রাখবে। প্রিয় নবী (সা.) সাহাবাদের সে শিক্ষাই দিয়েছেন। আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, নবী (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা ধারণা করা থেকে বিরত থেকো। ধারণা বড় মিথ্যা ব্যাপার। তোমরা দোষ তালাশ করো না, গোয়েন্দাগিরি করো না, পরস্পর হিংসা পোষণ করো না, একে অন্যের প্রতি বিদ্বেষভাব পোষণ করো না এবং পরস্পর বিরোধে লিপ্ত হইয়ো না; বরং তোমরা সবাই আল্লাহর বান্দা ভাই ভাই হয়ে যাও। (সহিহ বুখারি, হাদিস : ৬০৬৪)

অন্য হাদিসে এসেছে, আবদুল্লাহ বিন আমর (রা.) বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে কাবাঘর তাওয়াফ করতে দেখলাম এবং তিনি বলছিলেন, কত উত্তম তুমি হে কাবা, আকর্ষণীয় তোমার খোশবু, কত উঁচু মর্যাদা তোমার (হে কাবা)! কত সম্মান তোমার। সেই সত্তার শপথ, যাঁর হাতে মুহাম্মদের প্রাণ! আল্লাহর কাছে মুমিনের জীবন, সম্পদ ও ইজ্জতের মূল্য তোমার চেয়ে অনেক বেশি। আমরা মুমিন ব্যক্তি সম্পর্কে সুধারণাই পোষণ করি। (সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৩৯৩২)

 



সাতদিনের সেরা