kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শেষযুগে প্রতারকদের দৌরাত্ম্য বাড়বে

মাইমুনা আক্তার   

১৭ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেষযুগে প্রতারকদের দৌরাত্ম্য বাড়বে

ইসলামে প্রতারণা, ধোঁকাবাজি, মিথ্যা ও ছলছাতুরির কোনো আশ্রয় নেই। কোনো মুমিন এগুলোর আশ্রয় নিতে পারে না। এগুলো মানুষকে অমানুষ করে তোলে। হিদায়াতের আলো থেকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

জান্নাতের পথ থেকে জাহান্নামের পথে ধাবিত করে।

বর্তমান যুগেও যারা এগুলোর আশ্রয় নেয়, তারা বাহ্যিকভাবে অন্যদের তুলনায় ভালো থাকে। কিয়ামত যত কাছে আসবে, তত এই শ্রেণির মানুষের দৌরাত্ম্য বাড়বে, এদের কাছে ভালো মানুষরা জিম্মি হয়ে যাবে। তারা ঈমানদারদের কোণঠাসা করে দেবে, শান্তি ও কল্যাণের পথকে অশান্তির পথ বলে চিত্রিত করবে। তাই বলে তাদের হকপন্থী ভেবে তাদের পথ অনুসরণ করা যাবে না। এবং তাদের সফল ভেবে এ ধরনের ঘৃণ্য কাজে লিপ্ত হওয়া যাবে না। মহানবী (সা.) এ ধরনের নিচ প্রকৃতির লোকদের ব্যাপারে তাঁর প্রিয় উম্মতদের সতর্ক করে গেছেন। আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, অচিরেই লোকদের ওপর প্রতারণা ও ধোঁকাবাজির যুগ আসবে। তখন মিথ্যাবাদীকে সত্যবাদী গণ্য করা হবে, আমানতের খিয়ানতকারীকে আমানতদার, আমানতদারকে খিয়ানতকারী গণ্য করা হবে এবং ‘রুওয়াইবিয়া’ হবে বক্তা। জিজ্ঞাসা করা হলো, ‘রুওয়াইবিয়া’ কী? তিনি বলেন, নিচ প্রকৃতির লোক সে জনগণের হর্তাকর্তা হবে। ’ (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৪০৩৬)

মহান আল্লাহ সবাইকে সব ধরনের ফিতনা থেকে রক্ষা করুন। আমিন



সাতদিনের সেরা