kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিশ্বাসের মিনার

ইসরাফিল (আ.) শিঙ্গা নিয়ে বসে আছেন?

মুফতি আতাউর রহমান   

১২ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইসরাফিল (আ.) শিঙ্গা নিয়ে বসে আছেন?

আয়েশা (রা.) বলেন, ‘রাসুলুল্লাহ (সা.) যখন তাহাজ্জুদের জন্য দাঁড়াতেন, তখন তিনি নামাজের শুরুতে বলতেন, ‘হে আল্লাহ, আপনি জিবরাইল, মিকাইল ও ইসরাফিলের প্রতিপালক, আসমান ও জমিনের স্রষ্টা এবং প্রকাশ্য ও অপ্রাকাশ্য বিষয় সম্পর্কে সম্যক অবগত। ’ (সুনানে তিরমিজি, হাদিস : ৩৪২০)

উল্লিখিত হাদিসের আলোকে আল্লামা ইবনুল কায়্যিম জাওজি (রহ.) বলেন, আল্লাহর প্রধান তিনজন ফেরেশতা হলেন—জিবরাইল, মিকাইল ও ইসরাফিল। (ইগাসাতুল লাহফান : ২/৮৪৩)

ইসরাফিল (আ.) শিঙ্গায় ফুঁ দানকারী হিসেবেই পরিচিত। একাধিক হাদিস দ্বারাও তা প্রমাণিত।

বিজ্ঞাপন

কতিপয় আলেম ইসরাফি (আ.) কর্তৃক শিঙ্গায় ফুঁ দেওয়ার বিষয়ে আলেমদের ঐকমত্যের দাবি করেছেন। (ফাতহুল বারি : ১১/৩৬৮)

তবে হাদিস বিশারদরা বলেন, ইসরাফিল (আ.)-এর শিঙ্গায় ফুঁ দেওয়া সংক্রান্ত হাদিসের বিশুদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন আছে।

ইসরাফিল (আ.)-এর একমাত্র কাজ সিঙ্গা ফুঁ দেওয়া নয়; বরং হাদিসে তাঁর অন্যান্য কাজের বর্ণনাও পাওয়া যায়। ইমাম বাইহাকি (রহ.) বলেন, ‘যখন সময় শেষ হবে এবং এমন সময় আসবে যখন আল্লাহ আকাশ, সমুদ্র ও ভূপৃষ্ঠের সব প্রাণীকে মৃত্যু দানের ইচ্ছা করবেন, তখন ইসরাফিল (আ.)-কে নির্দেশ দেবেন সিঙ্গায় ফুঁ দিতে। কোনো কোনো আলেমের মতে, ইসরাফিল হলেন আরশ বহনকারীদের একজন এবং লৌহে মাহফুজের দায়িত্বপ্রাপ্ত। ’ (শুআবুল ঈমান : ১/৫২৯)

বিশুদ্ধ মতে, ইসরাফিল (আ.) শিঙ্গায় দুবার ফুঁ দেবেন। পবিত্র কোরআনের বর্ণনা থেকেও এমনটি বোঝা যায়। ইরশাদ হয়েছে, ‘এবং শিঙ্গায় ফুঁ দেওয়া হবে, ফলে যাদের আল্লাহ ইচ্ছা করেন তারা ছাড়া আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবীর সবাই মূর্ছিত হয়ে পড়বে। অতঃপর আবার শিঙ্গায় ফুঁ দেওয়া হবে, তখনই তারা দাঁড়িয়ে তাকিয়ে থাকবে। ’ (সুরা ঝুমার, আয়াত : ৬৮)

হাদিসে এসেছে, শিঙ্গা সৃষ্টির পর থেকে তার দায়িত্বপ্রাপ্ত ফেরেশতা ফুঁ দেওয়ার ব্যাপারে আল্লাহর নির্দেশের অপেক্ষা করছেন এবং সে আরশের দিকে তাকিয়ে আছেন। তাঁর চোখ দুটো উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো। তবে এই হাদিসে ইসরাফিল (আ.)-এর নাম সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়নি। (মুসতাদরিকে হাকিম, হাদিস : ১০৭৮)

 



সাতদিনের সেরা