kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিশ্বাসের মিনার

ফেরেশতারা কারো বন্ধু বা শত্রু নন

মুফতি আতাউর রহমান   

১১ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফেরেশতাদের সবাই আল্লাহর অনুগত। তাঁরা যা কিছু করেন আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী করেন। কারো প্রতি তাঁরা শত্রুতা বা বন্ধুত্ব পোষণ করেন না। যদি কিছু ধর্ম ও মতবাদের অনুসারীরা কোনো কোনো ফেরেশতাকে শত্রু বা বন্ধু মনে করে।

বিজ্ঞাপন

পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘যে ব্যক্তি আল্লাহর, তাঁর ফেরেশতাদের, তাঁর রাসুলদের এবং জিবরাইল ও মিকাইলের শত্রু, সে জেনে রাখুক, আল্লাহ নিশ্চয়ই অবিশ্বাসীদের শত্রু। ’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ৯৮)

আল্লামা ইবনে কাসির (রহ.) বলেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ উল্লিখিত আয়াতে জিবরাইল (আ.)-এর সঙ্গে মিকাইল (আ.)-কে যুক্ত করেছেন এ জন্য যে ইহুদিরা তাদের মধ্যে পার্থক্য করতেন। তাদের ধারণা ছিল জিবরাইল (আ.) তাদের শত্রু এবং মিকাইল (আ.) তাদের বন্ধু। কিন্তু আল্লাহ তাদের উভয়কে একত্রে উল্লেখ করে বুঝিয়েছেন যে ব্যক্তি কোনো একজন ফেরেশতার সঙ্গে শত্রুতা পোষণ করে, সে সব ফেরেশতার সঙ্গে শত্রুতা পোষণ করে। এমনকি আল্লাহর সঙ্গে শত্রুতা পোষণ করে। ’ (তাফসিরে ইবনে কাসির : ১/৩৪২)

তিনি আরো বলেন, ‘মিকাইল (আ.)-কে জিবরাইল (আ.)-এর সঙ্গে উল্লেখ করার আরেকটি কারণ হলো মিকাইল (আ.)-ও কখনো কখনো নবীদের কাছে আগমন করতেন। যেমন প্রাথমিক পর্যায়ে নবীজি (সা.)-এর কাছে আগমন করতেন। নবী-রাসুলদের কাছে জিবরাইলই বেশি আগমন করতেন এবং এটা তাঁরই দায়িত্বে। মিকাইল (আ.) বৃষ্টি ও উদ্ভিদের দায়িত্বপ্রাপ্ত। একজন আত্মার খোরাক তথা হিদায়াতের বাহক, অপরজন জীবিকার বাহক। ’ (তাফসিরে ইবনে কাসির : ১/৩৪২)

আল-মাউসুয়াতুল আকাদিয়া

 



সাতদিনের সেরা