kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

যে অন্ধ তরুণের কয়েক লাখ হাদিস মুখস্থ

আবরার আবদুল্লাহ   

২৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যে অন্ধ তরুণের কয়েক লাখ হাদিস মুখস্থ

জিহাদ মুতয়িব মালেকি

জিহাদ মুতয়িব ঈসা মালেকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জিহাদ মালেকি নামেই পরিচিত। বিস্ময়কর মেধা ও কৃতিত্বের জন্য এরই মধ্যে মুসলিম বিশ্বে খ্যাতি অর্জন করেছেন এই তরুণ। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হয়েও এই তরুণ মাত্র ১২ বছর বয়সে পবিত্র কোরআন ও মহানবী (সা.)-এর কয়েক লাখ হাদিস মুখস্থ করেন। হাদিসের সঙ্গে সঙ্গে তার সূত্রগুলো, তার বর্ণনাকারী, বিধান-মর্যাদা ও কোন কিতাবে আছে তা মুখস্থ এই তরুণের।

বিজ্ঞাপন

জিহাদের জন্ম ১৪২৩ হিজরি সনে সৌদি আরবের রিয়াদ শহরে। জন্মের পর তিনি পূর্ণ এক মাস এনআইসিইউ বিভাগে ভর্তি ছিল এবং ভুল চিকিৎসার কারণে দৃষ্টিশক্তি হারান। ফলে তিনি কখনো কিছু চোখে দেখেননি। জিহাদ মালেকি মাত্র পাঁচ বছর বয়সে রিয়াদের একটি হিফজ মাদরাসায় লেখাপড়া শুরু করেন এবং অল্প দিনেই সাত পারা মুখস্থ করে ফেলেন। এরপর তাঁর পরিবার মদিনাতুল মুনাওয়ারায় যায় এবং সেখানে মায়ের কাছে ২৩ পারা কোরআন মুখস্থ করেন। সাধারণত হাফিজরা কোরআনের পারা ও পৃষ্ঠা হিসেবে হিফজ করলেও জিহাদ মালেকি সুরা ও আয়াত নম্বর হিসেবেও তা মুখস্থ করেন। ফলে যেকোনো সুরার নাম ও আয়াত নম্বর বললে তিনি তা পাঠ করতে পারেন।  

পবিত্র কোরআনের হিফজ সম্পন্ন করার পর মসজিদে নববীতে শায়খ ইয়াহইয়া বিন আবদুল আজিজ আল-ইয়াহইয়ার কাছে হাদিস মুখস্থ শুরু করেন এবং কৃতিত্বের সঙ্গে তা সম্পন্ন করেন। মাত্র ১২ বছর বয়সে পবিত্র কোরআন ও হাদিসের বিখ্যাত ছয়টি গ্রন্থ (সিহাহ সিত্তা) মুখস্থ করে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। সামাজিক মাধ্যম ইউটিউবে প্রচারিত তাঁর বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা যায়, প্রশ্নকারী হাদিসের শব্দ-বাক্য উচ্চারণ করলে তিনি হাদিস বর্ণনাকারী, হাদিসের নম্বর, হাদিসের বিশুদ্ধতার স্তর বলে দিচ্ছেন। তাঁকে সমকালের ‘ছোট শায়খ আবদুল্লাহ বিন বাজ’ বলে থাকেন।

     বিভিন্ন আরবি গণমাধ্যম অবলম্বনে

 



সাতদিনের সেরা