kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

দৈনন্দিন ইসলামী প্রশ্ন-উত্তর

২২ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রুকু-সিজদা বেশি করলে সাহু সিজদা

প্রশ্ন : যদি কোনো ব্যক্তি ভুলক্রমে নামাজের কোনো এক রাকাতে দুবার রুকু করে অথবা তিন সিজদা করে ফেলে, তার নামাজের কী অবস্থা হবে? তার ওপর কি সাহু সিজদা ওয়াজিব হবে?

খোরশেদ আলম, ভোলা

উত্তর : নামাজে কোনো ওয়াজিব কিংবা ফরজে ভুলক্রমে তাকরার (বারবার) হলে সাহু সিজদা ওয়াজিব হয়। তাই প্রশ্নে বর্ণিত অবস্থায়ও সাহু সিজদা করতে হবে, অন্যথায় নামাজ পুনরায় পড়তে হবে। (আল মুহিতুল বুরহানি : ১/৫০১, হিন্দিয়া : ১/১২৭, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৪/১৯৩)

 

ফজরের নামাজে ইমামকে শেষ বৈঠকে পেলে

প্রশ্ন : কোনো ব্যক্তি ফজরের সময় এসে দেখে ইমাম সাহেব শেষ বৈঠকে, এ অবস্থায় সে কি ফজরের সুন্নত আদায় করবে, নাকি শেষ বৈঠকে শরিক হবে? যদি শেষ বৈঠকে শরিক হয়, তাহলে নামাজ শেষ করে সঙ্গে সঙ্গে সুন্নত আদায় করে নেওয়া যাবে কি?

আশরাফুল, খুলনা

উত্তর : ফজরের সুন্নত পড়তে গিয়ে ফজরের পুরো জামাত ছুটে যাওয়ার আশঙ্কা হলে সুন্নত না পড়ে জামাতে শরিক হয়ে যাবে। পক্ষান্তরে যদি সুন্নত পড়ার দ্বারা জামাত ছুটে যাওয়ার আশঙ্কা না থাকে বরং ইমামের সঙ্গে শেষ বৈঠকে হলেও শরিক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তাহলে সুন্নত পড়ে নেবে, পরে জামাতে শরিক হয়ে যাবে। উল্লেখ্য, ফজরের সুন্নত ফরজ নামাজের জামাতের আগে পড়তে না পারলে জামাতের পর সূর্যোদ্বয়ের আগে পড়া নিষেধ। সূর্যোদ্বয়ের পর নিষিদ্ধ সময় শেষ হয়ে গেলে মনে চাইলে ওই সুন্নত পড়া যেতে পারে। (রদ্দুল মুহতার : ২/৫৬, রদ্দুল মুহতার : ২/৫৭, আল বাহরুর রায়েক : ২/১২৯, শরহুন নিকায়াহ : ১/২৫০)

 

কাবলাল জুমার সুন্নত এক সালামে কত রাকাত?

প্রশ্ন : কাবলাল জুমার সুন্নত এক সালামে দুই রাকাত, নাকি চার রাকাত? দয়া করে জানাবেন।

শরফুদ্দীন, রাজশাহী

উত্তর : কাবলাল জুমা এক সালামে চার রাকাত পড়া সুন্নত। (শরহু মাআনিল আছার : ১৯৬৫, ১৯৭০, হিন্দিয়া : ১/১২৪)

 

সন্তানদের না দিয়ে স্ত্রীর নামে সম্পত্তি লিখে দেওয়া

প্রশ্ন : আমি আমার সব সম্পদ আমার স্ত্রীর নামে লিখে দিতে চাই, যাতে আমার মৃত্যুর পর আমার ছেলেমেয়ে কেউ ভোগ করতে না পারে। অর্থাৎ ওই সম্পদের পূর্ণাঙ্গ ক্ষমতা আমার স্ত্রীর হাতে থাকবে। সে যাকে ইচ্ছা দিতে পারবে। ইসলামের দৃষ্টিতে এটি করা আমার জন্য জায়েজ হবে?

আতাউর রহমান, খুলনা

উত্তর : জীবিত অবস্থায় অন্য ওয়ারিশদের বঞ্চিত করার উদ্দেশ্যে কোনো নির্দিষ্ট ওয়ারিশের নামে সব সম্পত্তি লিখে দেওয়া ইসলামপরিপন্থী ও গুনাহের কাজ। সুতরাং আপনার জন্য সব সম্পত্তি স্ত্রীর নামে লিখে দেওয়া বৈধ হবে না। (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ২৭০৩, হিন্দিয়া : ৪/৩৯১, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১১/৮১)

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা



সাতদিনের সেরা