kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

প্রশ্ন-উত্তর

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সুরা ইয়াসিন ও ওয়াকিয়া নামাজে পাঠ

প্রশ্ন : সকাল-সন্ধ্যা সুরা ইয়াসিন ও ওয়াকিয়া পাঠ সম্পর্কে হাদিসে যে ফজিলত বর্ণিত হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি এই দুই সুরা ফজরের নামাজ এবং মাগরিবের ফরজ ও সুন্নত নামাজে পড়ে নেয়, তাহলে সে হাদিসে বর্ণিত ফজিলত পাবে কি?

ইয়াহইয়া, হবিগঞ্জ

উত্তর : সুরা ইয়াসিন ও ওয়াকিয়া পাঠের ফজিলত পেতে হলে তা নামাজের বাইরে তিলাওয়াত করা উত্তম। কেউ নামাজে পড়ে নিলেও ওই ফজিলত পাওয়ার আশা করতে পারে। তবে এটাকে নিয়ম বানিয়ে নেওয়া অনুচিত। (মিরকাত : ৪/৬৫৮, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ২/১৩২)

 

ফজরের পর মুসল্লিদের নিয়ে সুরা হাশরের শেষ তিন আয়াত পড়া

প্রশ্ন : নবীজি (সা.) ২৩ বছর ইমামতি করেছিলেন। তিনি কি প্রতিদিন ফজরের নামাজ শেষে মোনাজাতের আগে মুসল্লিদের নিয়ে সুরা হাশরের শেষ তিন আয়াত পড়তেন?

জুবায়ের আহমদ, টঙ্গী

উত্তর : ফজর ও মাগরিবের নামাজের পর সুরা হাশরের শেষ তিন আয়াত পড়ার কথা হাদিসে এসেছে। কিন্তু নবীজি (সা.) প্রত্যহ ফজরের নামাজের পর সাহাবায়ে কেরামকে নিয়ে সম্মিলিতভাবে এই আয়াতগুলো পড়ার কথা কোনো কিতাবে পাওয়া যায় না। তাই ইমাম-মুক্তাদি সবাই ব্যক্তিগতভাবে এই আয়াতগুলো পড়বে। তবে মুসল্লিদের শেখানোর লক্ষ্যে তাদের নিয়ে ইমাম সাময়িক উচ্চ স্বরে পড়লে কোনো আপত্তি নেই। (তিরমিজি, হাদিস : ৫/২৭, আল ফিকহুল ইসলামি ওয়া আদিল্লাতুহু : ১/৮২৩)

 

মাথা মুণ্ডানোর বিধান

প্রশ্ন : অনেকে বলে যে মাথা মুণ্ডানো সুন্নত। এ কথার কোনো ভিত্তি আছে কি?

নওশাদ, রংপুর

উত্তর : মাথায় চুল রাখার ক্ষেত্রে ‘লিম্মা’, ‘জুম্মা’, ‘ওয়াফরা’—এর যেকোনো এক পদ্ধতিতে চুল রাখা সুন্নত। একেবারে মুণ্ডন করে ফেলা সুন্নত কি না—এ ব্যাপারে দ্বিমত আছে। তবে নির্ভরযোগ্য অভিমত অনুযায়ী, এটা সুন্নতের পর্যায়ভুক্ত। (আবু দাউদ, হাদিস : ২৪৯, শরহুত তিবি : ২/৮৭, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ৫/১৪৯, আহসানুল ফাতাওয়া : ৮/৮০)

 

সার্ভিসিং বিল থেকে ড্রাইভারকে কিছু দেওয়া

প্রশ্ন : আমি একটি গাড়ি সার্ভিসিং কম্পানির মালিক। বিভিন্ন ড্রাইভার আমার কাছে এসে গাড়ি ঠিক করে। আমি বাজারদরে সার্ভিসিং করি। গাড়ির মালিকের কাছ থেকে যত টাকা নিই, তত টাকার ভাউচার করি এবং গাড়ি সার্ভিসিংয়ের লভ্যাংশ থেকে ড্রাইভারকে কিছু টাকা খুশি হয়ে বখশিশ দিই। এভাবে খুশি হয়ে ড্রাইভারকে বখশিশ দিলে তা জায়েজ হবে কি? যদি ড্রাইভার আমার কাছ থেকে বখশিশ চেয়ে নেয়, তাহলে কি জায়েজ হবে?

বেলাল, ধোলাইখাল

উত্তর : প্রশ্নোক্ত অবস্থায় আপনি খুশি হয়ে ড্রাইভারকে বখশিশ দিতে পারবেন। তবে ড্রাইভারের জন্য চেয়ে নেওয়ার অধিকার নেই। এমনকি সে চাইলে আপনিও তাকে দিতে বাধ্য নন। হ্যাঁ, স্বেচ্ছায় দিলে অবৈধ হবে না। (রদ্দুল মুহতার : ৫/৩৬২, আল মুহিতুল বুরহানি : ৫/৩৬৮, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৬/৬১৮)

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা

 



সাতদিনের সেরা