kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

প্রশ্ন-উত্তর

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পুনরায় জামাত হলে তাতে অংশগ্রহণ

প্রশ্ন : যদি কোনো ব্যক্তি মসজিদে এসে জামাত না পায়। কিন্তু দেখে, যেকোনো কারণে নামাজ পুনরায় পড়তে হচ্ছে, তাহলে সে ব্যক্তি ওই দোহরানো নামাজের জামাতে শরিক হতে পারবে কি?

ইসমাইল, পটুয়াখালী

উত্তর : উল্লিখিত অবস্থায় দেখতে হবে যে কী কারণে নামাজ দোহরানো হচ্ছে। যদি কোনো ওয়াজিব বা সাহু সিজদা ছুটে যাওয়ার কারণে নামাজ পুনরায় পড়া হয়, তাহলে নতুন কেউ তাতে শরিক হলে তার নামাজ হবে না। আর যদি কোনো ফরজ ছুটে যাওয়ার কারণে হয়, তাহলে আগন্তুক ব্যক্তি শরিক হতে পারবে। (রদ্দুল মুহতার : ১/৪১৮, হাশিয়াতুত তাহতাভি : ১৩৪, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/৪৪১)

 

নামাজ অবস্থায় ঘড়ি দেখা

প্রশ্ন : অনেক সময় নামাজে দাঁড়ালে সামনের দেয়ালের ঘড়ির দিকে চোখ চলে যায়, অনেকে তাড়া থাকলে বারবার ঘড়ি দেখে। প্রশ্ন হলো, নামাজ অবস্থায় ঘড়ি দেখার বিধান কী?

ইঞ্জিয়ার শাহজাহান, আশুগঞ্জ

উত্তর : নামাজির জন্য নামাজ অবস্থায় দেয়ালের ঘড়ির দিকে ইচ্ছাকৃত তাকানো উচিত নয়, অনিচ্ছাকৃতভাবে ঘড়ির দিকে নজর পড়লে নামাজের কোনো ক্ষতি হবে না। কিবলার দিকে ঘড়ি ইত্যাদি না টাঙিয়ে ডানে-বামে টাঙানো ভালো। (আল মুহিতুল বুরহানি : ১/৩১২, হিন্দিয়া : ১/১০১)

 

অজু ছুটে যাওয়ার পর লজ্জায়

নামাজ না ছাড়া

প্রশ্ন : নামাজের মধ্যে অজু ভেঙে গেলে লজ্জায় নামাজ ত্যাগ না করলে কোন ধরনের গুনাহ হয়? এ গুনাহ থেকে বাঁচার জন্য ইসলামে কোনো পন্থা আছে কি?

সাইফুল ইসলাম, নেত্রকোনা

উত্তর : নামাজের মধ্যে অজু ভেঙে গেলে নামাজ ত্যাগ না করলে বড় ধরনের গুনাহ হয়। বহু ওলামায়ে কেরাম বিনা অজুতে নামাজ পড়লে ঈমান চলে যাওয়ার আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন। তাই এ ধরনের পরিস্থিতিতে পতিত হলে নামাজ ছেড়ে দেবে। গুনাহ থেকে বাঁচার জন্য বেশি মুসল্লিদের কষ্ট না দিয়ে বের হওয়া সম্ভব হলে বের হয়ে অজু করবে। পুনরায় নামাজে শামিল হবে। আর নামাজ শেষ হয়ে গেলে একাকী নামাজ পড়ে নেবে। বের হওয়া সম্ভব না হলে নামাজ ছেড়ে দিয়ে নিজ জায়গায় বসে থাকবে। (হেদায়া : ১/২৪৯, আফকে মাসায়েল আওর উনকা হল : ২/৩২৬)

 

বৃহস্পতিবার আসরের পর নখ কাটা

প্রশ্ন : অনেকে বলে থাকে, বৃহস্পতিবার আসরের পর নখ কাটা মুস্তাহাব। তাই অন্য দিন না কাটা ভালো। কোরআন-হাদিসে এর সপক্ষে কোনো প্রমাণ আছে কি?

সোহেল, নারায়ণগঞ্জ

উত্তর : সপ্তাহের যেকোনো দিন নখ কাটা যায়।  বৃহস্পতিবার নখ কাটা মুস্তাহাব হওয়ার পক্ষে কোনো আমলযোগ্য হাদিস পাওয়া যায় না। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা : ৫/২৪৩, হিন্দিয়া : ৫/৩৫৮)

 

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা

 



সাতদিনের সেরা