kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

যা আছে উসমানীয় আমলের টিকা সনদে

শেখ আবদুল্লাহ বিন মাসউদ   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যা আছে উসমানীয় আমলের টিকা সনদে

বর্তমানে করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণের সার্টিফিকেট স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গুরুত্ব লাভ করেছে। টিকা গ্রহণের সার্টিফিকেট ছাড়া বিদেশিদের প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে না বহু দেশ। কিন্তু শত বছর আগে টিকা গ্রহণের সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়েছিল উসমানীয়দের শাসনাধীন তুরস্কে। সম্প্রতি উসমানীয় খেলাফত আমলের একটি ‘ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকে দাবি করছেন, এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন টিকা সার্টিফিকেট। তবে তারা সুনির্দিষ্ট কোনো প্রমাণ পেশ করেনি।

শতাব্দীকালের প্রাচীন সার্টিফিকেট : সনদে তারিখ উল্লেখ করা হয়েছে হিজরি ১৩২৬ মোতাবেক ১৯০৮ খ্রিস্টাব্দ। এ হিসাবে সনদ ১১৩ বছরের প্রাচীন। এ সময় উসমানীয় খেলাফতের প্রধান ছিলেন সুলতান দ্বিতীয় আবদুল হামিদ।

যা আছে সার্টিফিকেটে : টিকা সনদের সবচেয়ে ওপরে লেখা আছে ‘বিসমিল্লাহির রহমানির রাহিম’। এরপর আরবি বর্ণে তুর্কি ভাষা এবং ফরাসি ভাষায় লেখা আছে ‘সার্টিফিকেট ডু ভ্যাকসিন’।

টিকাগ্রহীতা : টিকা গ্রহণকারীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে ইসমাইল আফেন্দি। টিকা গ্রহণের সময় তাঁর বয়স ছিল ১০ বছর। তাঁর পিতা মেহমেদ আগা পেশায় একজন চালক ছিলেন। তাঁরা ছিলেন ইস্তাম্বুল শহরের অধিবাসী এবং ইসলাম ধর্মাবলম্বী।

বিবরণ : টিকা সনদের বিবরণে লেখা হয়েছে, মহামারি থেকে সুরক্ষার জন্য উল্লিখিত ব্যক্তিকে স্বেচ্ছায় ও আইনানুগভাবে টিকা দেওয়া হয়েছে। তাঁকে হাম-বসন্ত রোগের জন্য টিকা দেওয়া হয়। সনদটি ওই ব্যক্তিকে ১৩ তারিখ, মাস অস্পষ্ট, ১৩২৬ হিজরিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোস্তফা বিন হুসাইন সনদে স্বাক্ষর করেন।

সিল : সনদে সুলতান আবদুল হামিদ খান বিন আবদুল মজিদ আল-মুজাফফার দাইমির সিল রয়েছে।

সূত্র : জাকাত ডট লাদুনি ডট আইডি

 



সাতদিনের সেরা