kalerkantho

রবিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৮। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৮ সফর ১৪৪৩

প্রশ্ন-উত্তর

৫ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভায়রার ছেলেকে জাকাত দেওয়া

প্রশ্ন : আমার ভায়রার ছেলে আমার বাসায় থেকে পড়াশোনা করে। সে পৈতৃক সূত্রে ২০ থেকে ২৫ লাখ টাকার জমি পেয়েছে। তবু আমি তার পড়ালেখার খরচ চালাই। আমি কি তার জন্য জাকাতের টাকা খরচ করতে পারব?

মো. আবুল খায়ের, পূর্ব ভাসানটেক, ঢাকা

উত্তর : ভায়রার ছেলে জাকাত খাওয়ার উপযুক্ত হলে তাকে জাকাত দেওয়া বৈধ। তবে নিত্য প্রয়োজনের অতিরিক্ত নিসাব পরিমাণ জমির মালিক হলে সে দরিদ্রের অন্তর্ভুক্ত নয়। তাই তাকে জাকাত দেওয়া বৈধ হবে না। (রদ্দুল মুহতার : ২/৩৪৬, ৬/৩১২, ২/৩৪৭)

 

জিলহজের ১৩ তারিখ নফল রোজা রাখা

প্রশ্ন : আমি জিলহজ মাসের ১৩ তারিখ রোজা রেখেছিলাম। কিন্তু আমাকে আমার বন্ধু-বান্ধব ও পরিবারের সদস্যরা বলল যে এই দিনে রোজা রাখা যায় না। এ ব্যাপারে ইসলামের বক্তব্য কী?

মো. তৈয়ব,  ব্লক : সি, বসুন্ধরা আ/এ

উত্তর : দুই ঈদের দিন এবং কোরবানির ঈদের পরের তিন দিনসহ বছরে সর্বমোট পাঁচ দিন রোজা রাখা নিষিদ্ধ। তাই আপনার ১৩ জিলহজের রোজা বৈধ হয়নি। এ ক্ষেত্রে আপনার বন্ধু-বান্ধব ও পরিবারের লোকজন সঠিক বলেছেন। (মুসনাদে আহমদ, হাদিস : ১০২৮৬)

 

চাঁদা তুলে নফল কোরবানি করা

প্রশ্ন : ইদানীং দেখা যায়, কিছু সংগঠন মানুষ থেকে পাঁচ শ, এক হাজার টাকা করে চাঁদা তুলে রাসুল (সা.)-এর নামে কোরবানি করে তা গরিবদের মধ্যে বিতরণ করে। এবং এগুলোর ছবি তুলে প্রচারণা চালায়। এভাবে চাঁদা তুলে কোরবানি দেওয়ার বিধান কী? সমাজে এ ধরনের প্রথা প্রচলনের ব্যাপারে ইসলামের কি কোনো প্রমাণ আছে?

জহিরুল হক, রামপুরা

উত্তর : কোরবানির মূল উদ্দেশ্য গোশত বিতরণ করা নয়; বরং আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টির লক্ষ্যে পশু জবাই করা কোরবানির মৌলিক উদ্দেশ্য। কেননা গরিবদের গোশত দান করার জন্য কোরবানি করার প্রয়োজন হয় না। কোরবানি ছাড়াও গোশত বা পশু দান-সদকা করা যায়। আর রাসুল (সা.)-এর নামে কোরবানি করা একটি নফল আমল, যা ঘোষণাবিহীন ও এককভাবে করা উত্তম। প্রশ্নোক্ত পদ্ধতিতে চাঁদা সংগ্রহ ও প্রচারণার মাধ্যমে রাসুল (সা.)-এর নামে কোরবানি করার ক্ষেত্রে একাধিক নিষিদ্ধ কাজের সম্ভাবনা আছে। তাই তা পরিহার করে নিজ নিজ উদ্যোগে কোরবানি করতে হবে। (তিরমিজি, হাদিস : ১৪৯৩, ফাতাওয়ায়ে উসমানি : ৪/৬১৪)

 

নফল নামাজে দুই সিজদার মধ্যে দোয়া পড়া

প্রশ্ন : আমরা নামাজে রুকু থেকে ওঠে এবং দুই সিজদার মাঝখানে যে বিশেষ দোয়া পড়ি, তা কি নফল ও সুন্নত নামাজেও পড়া যাবে?

মো. আবুল খায়ের, পূর্ব ভাসানটেক, ঢাকা

 

উত্তর : এসব দোয়া সুন্নত ও নফল নামাজে পড়া মুস্তাহাব। তদ্রুপ একাকী ফরজ নামাজেও পড়া যাবে। তবে জামাতে নামাজ পড়ার ক্ষেত্রে মুসল্লিদের সার্বিক অবস্থার প্রতি লক্ষ্য করে ইমামের জন্য তা না পড়া উত্তম। (রদ্দুল মুহতার : ১/৫০৬)

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা



সাতদিনের সেরা