kalerkantho

বুধবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৮। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২১ সফর ১৪৪৩

প্রশ্ন-উত্তর

৪ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যাঁরা নবী নন, তাঁদের নামের সঙ্গে (আ.) বলা

প্রশ্ন : যাঁরা নবী ছিলেন না। যেমন—খিজির (আ.) এবং মারইয়াম ও হাজেরা তাঁদের ‘আলাইহিস সালাম’ এবং ‘আলাইহাস সালাম’ বলার বিধান কী?

রাজীব চৌধুরী, চকবাজার, ঢাকা

উত্তর : ইসলামী আইনজ্ঞদের মতে, নবী ও ফেরেশতা ছাড়া অন্য অলি-বুজুর্গদের জন্য ‘আলাইহিস সালাতু ওয়াসসালাম’ ব্যবহার করা জায়েজ নেই। আবার অনেকেই ‘আলাইহিস সালাম’ তথা শুধু সালাম শব্দ ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছেন। তবে সতর্কতাস্বরূপ ‘আলাইহিস সালাম’ও ব্যবহার না করা উচিত। (আদ্দুররুল মুখতার : ২/২৪৮, রুহুল মাআনি : ১২/২৬১)

 

সুদের টাকা নিকটাত্মীয়কে দেওয়া

প্রশ্ন : আমার কাছে একটি ফান্ড থেকে কিছু সুদের টাকা এসেছে। ওই টাকা কি গরিব আত্মীয়কে দিতে পারব?

গোলাম খালেক, নারায়ণগঞ্জ

উত্তর : সুদের টাকা প্রকৃত মালিক বা তার অবর্তমানে ওয়ারিশদের কাছে পৌঁছানো আবশ্যক। যদি মালিক বা ওয়ারিশ পাওয়া না যায়, তাহলে মালিকের পক্ষ থেকে দায়মুক্ত হওয়ার উদ্দেশ্যে সওয়াবের নিয়তবিহীন গরিব আত্মীয়দের দেওয়া যাবে। (হিন্দিয়া : ৫/৩৪৯, এমদাদুল আহকাম : ৩/৪৫৫, আফকে মাসায়েল আউর উনকা হল : ৬/২৪০)

 

মালিক থেকে মজুরি বেশি নিয়ে শ্রমিককে কম দেওয়া

প্রশ্ন : কোনো কন্ট্রাক্টর যদি মালিক থেকে প্রত্যেক শ্রমিক বাবদ মজুরি ৬০০ টাকা করে ধার্য করে এবং শ্রমিকদের ৫০০ টাকা করে দিয়ে কাজ করায়, এতে কি ইসলামের কোনো নিষেধাজ্ঞা আছে?

বদিউজ্জামান, সিলেট

উত্তর : প্রশ্নে বর্ণিত পদ্ধতিতে যদি কন্ট্রাক্টর মালিককে জানিয়ে প্রত্যেক শ্রমিক থেকে এক শ টাকা করে নিয়ে থাকে, তাহলে তা কন্ট্রাক্টরের কমিশনের অন্তর্ভুক্ত হবে। এটি বৈধ। আর মালিকের অজান্তে এমন কাজ করা হলে তা ধোঁকার শামিল। এরূপ করলে গুনাহগার হবে। (রদ্দুল মুহতার : ৬/৪৭, রদ্দুল মুহতার : ৬/৬৩, এমদাদুল ফাতাওয়া : ৪/১৪০, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১০/৪৫৭)

 

নিচতলা মালিকানায় থাকার শর্তে মসজিদের জন্য জমি ওয়াকফ করা

প্রশ্ন : জনৈক ব্যক্তি এই শর্তে মসজিদের জায়গা ওয়াকফ করতে চায় যে মসজিদ হবে দ্বিতীয় তলায়, নিচের তলাতে তাকে পরিবার নিয়ে থাকতে দিতে হবে এবং মসজিদের ওপরে দোকান হবে। এখন আমার প্রশ্ন হলো, তার শর্তের অবস্থান কিরূপ এবং এ ধরনের শর্তসাপেক্ষে তার ওয়াকফকৃত জায়গাতে মসজিদ নির্মাণ করার বিধান কী?

রফিক, ঝিনাইদহ

উত্তর : নিচতলায় নিজ মালিকানা বহাল থাকার শর্তে ওয়াকফ করা হলে, সেখানে নির্মিত মসজিদ ইসলামী মসজিদ হিসেবে গণ্য হয় না। তাই দোতলায় নামাজ আদায় শুদ্ধ হলেও তার ওপর ইসলামী মসজিদের বিধান অর্পিত হবে না। (ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৭/২২৭, রদ্দুল মুহতার : ৪/৩৫৭)

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা