kalerkantho

রবিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৮। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৮ সফর ১৪৪৩

প্রশ্ন-উত্তর

২৫ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আয়াতুল কুরসি লেখা কাপড় দ্বারা লাশ ঢাকা

প্রশ্ন : মৃত ব্যক্তির খাটের ওপর আয়াতুল কুরসি লেখা কাপড় দ্বারা ঢেকে দেওয়া যাবে কি না?

শিউলি আক্তার, লক্ষ্মীপুর

উত্তর : মৃত ব্যক্তির খাটের ওপর আয়াতুল কুরসি বা অন্য কোনো আয়াত দ্বারা লিখিত কাপড় দ্বারা ঢাকা ইসলামবহির্ভূত কাজ। (ফাতহুল কাদির : ১/১৫০, আহসানুল ফাতাওয়া : ৪/২৩০)

 

দাড়ি খিলাল করার সুন্নত পদ্ধতি কী?

প্রশ্ন : দাড়ি খিলাল করার সুন্নত তরিকা কী? এক হাত দিয়ে, নাকি দুই হাত দিয়ে? যদি এক হাত দিয়ে হয়, তবে হাত একবার লাগানোর পর শুকিয়ে যায়। এরপর বাকি অংশে শুকনা আঙুল দিয়ে খিলাল করা হয়। এতে কি সুন্নত আদায় হবে?

মোরশেদ আলম, চুয়াডাঙ্গা

উত্তর : দাড়ি খিলাল করার সুন্নত পদ্ধতি হলো, প্রথমে ডান হাতের আঙুলে পানি নিয়ে থুতনির নিচে দাড়ির গোড়ায় পানি দেবে। এরপর দাড়ির নিচ দিক থেকে ওপরের দিকে এক হাত দ্বারা তথা ডান হাতের আঙুল দ্বারা ডান দিক থেকে এভাবে খিলাল করবে, যেন হাতের তালু বাইরের দিকে ও হাতের পিঠ ভেতরে অর্থাৎ গলার দিকে হয়। এ ক্ষেত্রে প্রথমবার পানি দেওয়াই যথেষ্ট, পুনরায় পানি দিতে হবে না। (রদ্দুল মুহতার : ১/১১৭, আল ফাতাওয়াত তাতারখানিয়া : ১/২২৪, ফাতাওয়ায়ে রহিমিয়া : ৭/১৩৮)

 

শিশুকে দুধ পান করালে অজুর বিধান

প্রশ্ন : কোনো নারী নামাজের জন্য অজু করার পর তার সন্তানকে দুধ পান করালে কি অজু ভেঙে যাবে?

ফাহমিদা আহমেদ, নোয়াখালী

উত্তর : অজু অবস্থায় শিশুকে দুধ পান করালে অজু ভাঙবে না। (এমদাদুল ফাতাওয়া : ১/৪১, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/৬১)

 

ফোম ও জাজিমের ওপর সিজদার বিধান

প্রশ্ন : অনেকে ঘরে জায়গা কম থাকার কারণে বিছানার ওপর নামাজ পড়ে। এ ক্ষেত্রে আমার প্রশ্ন হলো, ফোম ও জাজিমের ওপর সিজদা শুদ্ধ হবে কি?

কামরুল ইসলাম, উত্তরা

উত্তর : ফোম ও জাজিমের ওপর নামাজ হয়ে যাবে। কিন্তু নাক ও কপালকে শক্ত জায়গা পর্যন্ত চাপিয়ে রাখতে হবে, অন্যথায় নামাজ শুদ্ধ হবে না। (মাজমাউল আনহুর : ১/১৪৮, রদ্দুল মুহতার : ১/৪৫৪, আহসানুল ফাতাওয়া : ৩/৪৩২)

 

তাওবা দ্বারা শিরক গুনাহও মাফ হয়ে যায়?

প্রশ্ন : কেউ শিরক গুনাহ করে আল্লাহর কাছে তাওবা করলে তার গুনাহ মাফ হবে কি না?

রাশেদ আহমদ, কুমিল্লা

উত্তর : শিরক ও যেকোনো প্রকার গুনাহ হয়ে গেলে সঠিকভাবে তাওবা করলে তার তাওবা আল্লাহর কাছে কবুল হবে। তাওবা কবুল হওয়ার জন্য তিনটি শর্ত রয়েছে।

১. চিরতরের জন্য কৃত গুনাহ ছেড়ে দিতে হবে।

২. কৃতকর্মের ওপর অনুতপ্ত হতে হবে।

ভবিষ্যতে না করার দৃঢ়প্রতিজ্ঞা করতে হবে। (আত-তাফসিরুল মাজহারি : ৮/১৭১, রিয়াদুস সালেহিন : ৪৬, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ২/২৪২)



সাতদিনের সেরা