kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

প্রশ্ন-উত্তর

২১ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হাঁস-মুরগির গলার রগসহ রান্না করার বিধান

প্রশ্ন : আজকাল তরকারির ভেতরে শিং মাছের রগ ও হাঁস-মুরগির গলার রগ এগুলোসহ রান্না করতে দেখা যায়। এ অবস্থায় করণীয় কী? গরু-ছাগলের মাথার ভেতরের মগজ থেকে বিশেষ কোনো অংশ কি রান্নার আগে ফেলে দিতে হয়? হাঁস-মুরগির পুরো মাথা যখন তরকারিতে রান্না করা হয়, তখন খাওয়ার সময় কি কোনো অংশ ফেলে দিতে হবে?

আফজাল, শেওড়াপাড়া, মিরপুর, ঢাকা

উত্তর : হালাল পশু-পাখির মাথা বা গলার ভেতরকার কোনো জিনিস খাওয়া নিষিদ্ধ নয়। তবে কোনো কোনো আলেম গলার অভ্যন্তরীণ রগকে মাকরুহে তানজিহি তথা অনুচিত বলেছেন বিধায় তা খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত। (তালিফাতে রশীদিয়া, পৃ: ৪৫১, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৭/২৯৮)

 

জুতা পায়ে দিয়ে আজান দেওয়া

প্রশ্ন : জুতা, স্যান্ডেল ইত্যাদি পায়ে দিয়ে বা এসবের ওপর পা রেখে আজান দিলে আজান শুদ্ধ হবে কি?

রাহাত, মুন্সীগঞ্জ

উত্তর : জুতা, স্যান্ডেল ইত্যাদি পায়ে দিয়ে কিংবা এগুলোর ওপর পা রেখে আজান দেওয়া জায়েজ। জুতায় অপবিত্র কিছু লেগে থাকার আশঙ্কা থাকলে তা খুলে আজান দেওয়া উত্তম। (ফাতাওয়ায়ে দারুল উলুম : ২/১২১, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/২১৩)

 

টিভির আজানের জবাব দেওয়া

প্রশ্ন : টেলিভিশন ও রেডিওতে প্রতিদিন আজান সম্প্রচার করা হয়। এই আজানের জবাব দেওয়া কি সুন্নত?

রাকিব, ফার্মগেট, ঢাকা

উত্তর : মুয়াজ্জিনের আজান টেলিভিশন-রেডিওতে সরাসরি সম্প্রচার করা হলে মুখে উচ্চারণ করে তার জবাব দেওয়া সুন্নত, অন্যথায় সুন্নত নয়। (বাদায়েউস সানায়ে : ১/৬৪৬, আপকে মাসায়েল আওর উনকা হল : ২/১৭০, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/২০৩)

 

নাজায়েজ ও হারামের মধ্যে পার্থক্য

প্রশ্ন : ইসলামে নাজায়েজ ও হারামের বিধান কি এক? জানিয়ে বাধিত করবেন।

রফিকুল ইসলাম, রামপুরা, ঢাকা

উত্তর : ইসলামী পরিভাষায় নাজায়েজ ও হারাম উভয়টা অবৈধ ও নিষিদ্ধ বোঝানোয় ব্যবহৃত হয়। ক্ষেত্রবিশেষে উভয়ের বিধান ভিন্ন হয়। প্রত্যেক হারাম নাজায়েজ হয়; কিন্তু প্রত্যেক নাজায়েজ হারাম নয়। যদিও নাজায়েজ শব্দ দ্বারা বেশির ভাগ সময় হারাম ও মাকরুহে তাহরিমি বোঝানো হয়, আবার কখনো মাকরুহে তানজিহির জন্যও নাজায়েজ শব্দ ব্যবহার করা হয়। (রদ্দুল মুহতার : ১/১৩১-১৩২, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ২/২০৬)

 

অজু ছাড়া নামাজ পড়ে ফেললে

প্রশ্ন : কোনো ব্যক্তির নামাজের পর যদি স্মরণ হয় যে সে বিনা অজুতে নামাজ পড়েছে, তার করণীয় কী?

আবুল কাসেম, গাজীপুর

উত্তর : ভুলক্রমে বিনা অজুতে নামাজ পড়ার পর স্মরণ হওয়ামাত্র  অজু করে নামাজ আদায় করা ফরজ। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা : ১/৩৯৭, আল বাহরুর রায়েক : ১/২৬৮, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/২৩৩)

 

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা