kalerkantho

বুধবার । ২০ শ্রাবণ ১৪২৮। ৪ আগস্ট ২০২১। ২৪ জিলহজ ১৪৪২

প্রশ্ন-উত্তর

১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ধান দেওয়ার শর্তে জমি বন্ধক

প্রশ্ন : আমার কিছু জমি আমার এক আত্মীয় এ শর্তে নিয়েছে যে জমিতে যা ধান উৎপাদন হবে তা থেকে খরচ বাবদ কিছু ধান কর্তন করে আমাকে দিয়ে দেবে। ওই লোক আমার ওই জমি অন্যের কাছে কন্টি বা ঋণ দিয়ে টাকা নিয়ে বিদেশ চলে যায় এবং আমাকে প্রতি মৌসুমে ফসলের প্রাপ্য ধান দিয়ে দেয়। মাঝেমধ্যে ধানের সমমূল্য পরিমাণ টাকা আমাকে দিয়ে দেয়, এটা সুদের আওতায় পড়ে কি না?

উল্লেখ্য, আমার আত্মীয় যখন কন্টি বা ঋণের টাকা ফিরিয়ে দেবে, তখন জমি পুনরায় আমার কাছে ফিরে আসবে।

—সামি, বনশ্রী

উত্তর : ফসলের বিনিময়ে জমি লাগিত করা জায়েজ আছে। তবে ওই জমি থেকে উৎপাদিত ফসলের নির্ধারিত অংশ নির্দিষ্টহারে ফসল দেওয়ার শর্ত করা নাজায়েজ। এ ক্ষেত্রে ফসল না দিয়ে তার মূল্য পরিশোধ করতে কোনো আপত্তি নেই। তবে ঋণের বিনিময়ে জমি বন্ধক নিয়ে বন্ধকদাতার জন্য বন্ধকি বস্তু থেকে কোনোভাবে উপকৃত হওয়া সুদের নামান্তর বিধায় তা নাজায়েজ ও অবৈধ হবে। (রদ্দুল মুহতার : ৬/৪৮২, মাহমুদিয়া : ১৩/৩৩৪, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১১/৩০)

 

ভুলক্রমে ক্রেতার কাছ থেকে বেশি টাকা রাখলে

প্রশ্ন : আমি একজন ব্যবসায়ী। আমি একদিন এক ক্রেতা থেকে পণ্য বিক্রি করার পর হিসাব করছিলাম, হিসাব করার পর টাকাও নিয়ে নিলাম। পরেরবার আবার হিসাব করে দেখি আমি ক্রেতা থেকে ভুলক্রমে টাকা বেশি নিয়ে ফেললাম। এ নিয়ে আমার করণীয় কী?

     —মোহাম্মদ সাব্বির হোসাইন, হাটহাজারী, চট্টগ্রাম

উত্তর : ক্রেতার প্রাপ্য টাকা তাকে ফেরত দেওয়া আবশ্যক।  যেকোনো উপায়ে তার কাছে পৌঁছানো জরুরি। আর ক্রেতা অপরিচিত হওয়ায় সন্ধান পাওয়া না গেলে নিরুপায় অবস্থায় ওই পরিমাণ টাকা সদকা করা আবশ্যক। (মুলতাকাল আবহুর : ১/৫২৯-৫৩০)

 

প্রাণীর ছবি সামনে নিয়ে নামাজ পড়া

প্রশ্ন : যদি কেউ সামনে কোনো প্রাণীর ছবি রেখে নামাজ পড়ে, তাহলে কি তাতে শুধু নামাজ নষ্ট হবে, নাকি তা শিরকের পর্যায়েও পড়বে?

     —হাফিজুর, ঝিনাইদহ

উত্তর : প্রাণীর ছবি সামনে রেখে নামাজ পড়া মাকরুহে তাহরিমি, যা হারামের কাছাকাছি। (তাবয়িনুল হাকায়েক : ১/১৬৬,  হিন্দিয়া : ১/১০৭, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/৫২১)

 

সুদের টাকা মসজিদে খরচ করা

প্রশ্ন : সুদের টাকা মসজিদে ব্যবহার করা যাবে কি? বা অন্য খাতে খরচ করা যাবে কি?

     —রুবেল, পান্থপথ, ঢাকা

উত্তর : সুদের টাকা মসজিদের কোনো কাজে ব্যবহার করা বা অন্য যেকোনো খাতে ব্যবহার করা হারাম। (সুরা আলে ইমরান, আয়াত : ১৩০, রদ্দুল মুহতার : ১/৬৫৮, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৩/৩৭৬)

 

আওয়াবিন নামাজের সময়

প্রশ্ন : আওয়াবিন নামাজের সময় মাগরিবের সুন্নতের পর, নাকি মাগরিবের দুই রাকাত নফল নামাজের পর? এতে কি বিশেষ কোনো সুরা আছে?

     —আরমান, বরিশাল

উত্তর : কিছু আলেমের মতে ফরজের পরই আওয়াবিনের সময় শুরু হয়। অতএব, দুই রাকাত সুন্নতসহ সর্বমোট ছয় রাকাত পড়ার দ্বারা আওয়াবিন পড়ার সওয়াব অবশ্যই পাওয়া যাবে। কিন্তু দুই রাকাত সুন্নত পড়ার পর ছয় রাকাত আওয়াবিন পড়াই শ্রেয়। উল্লেখ্য, হাদিস শরিফে আওয়াবিনের নামাজ সর্বোচ্চ ২০ রাকাত পর্যন্ত পড়ার প্রমাণ পাওয়া যায়। এতে বিশেষ কোনো সুরা নেই। (মাজমাউল আনহুর : ১/১৯৫, তিরমিজি, হাদিস : ৪৩৫, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/১৫৫)

 

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ, বসুন্ধরা, ঢাকা

 



সাতদিনের সেরা