kalerkantho

শুক্রবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৮। ৬ আগস্ট ২০২১। ২৬ জিলহজ ১৪৪২

ডেনমার্কে ইসলামের ক্রমবিকাশ

আবরার আবদুল্লাহ   

১৬ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ডেনমার্কে ইসলামের ক্রমবিকাশ

পৃথিবীর অন্যতম ধনী ও আধুনিক রাষ্ট্র ডেনমার্ক ইউরোপের উত্তর-পশ্চিম অংশে অবস্থিত। এটি একটি স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশ। সবুজ ভূমি, পাহাড়, নদী ও প্রাকৃতিক সম্পদে সমৃদ্ধ দেশটিতে সাংবিধানিক রাজতন্ত্র থাকলেও সংসদীয় গণতান্ত্রিকব্যবস্থায় দেশ পরিচালিত হয়। অসংখ্য দ্বীপ ও দ্বীপভূমি নিয়ে গঠিত ডেনমার্কের মোট আয়তন ৪২ হাজার ৯৪৩ বর্গ কিলোমিটার। এর মধ্যে মাত্র ৬৮ কিলোমিটার স্থল সীমান্ত। যা দেশটিকে জার্মানির সঙ্গে যুক্ত করেছে। কোপেনহেগেন ডেনমার্কের রাজধানী ও প্রধান শহর। সাগর বেষ্টিত হওয়ায় এবং ডেনমার্কের কোনো অংশ থেকেই সাগরের দূরত্ব ৬৪ কিলোমিটারের বেশি নয়, ফলে সমগ্র দেশেই উপকূলীয় আবহাওয়া বিরাজমান। নিত্যদিনের বর্ষা, কুয়াশা ও মেঘাচ্ছন্ন আকাশের সঙ্গে ডেনিস জনগণ অভ্যস্ত। স্বায়ত্ত শাসিত গ্রিনল্যান্ড ও ফারোজ আইসল্যান্ড ডেনমার্কের অধীন।

মুসলিমরা ডেনমার্কের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় জনগোষ্ঠী। ২০২০ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশটিতে মুসলিম জনসংখ্যা দুই লাখ ৫৬ হাজার, যা মোট জনসংখ্যার ৪.৪ শতাংশ। অক্টোবর ২০১৯ প্রকাশিত ‘ওয়ার্ল্ড পপুলেশন রিভিউ’-এর প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ডেনমার্কে বসবাসরত মুসলিমদের সংখ্যা তিন লাখ ১৩ হাজার ৭১৩ জন এবং ডেনিস জনগণের ৫.৪০ শতাংশ মুসলিম। গত কয়েক দশকে ডেনমার্কে মুসলমানের সংখ্যা বাড়ছে। ১৯৮০ সালে দেশটিতে মুসলমানের সংখ্যা ছিল ৩০ হাজার, যা ছিল মোট জনসংখ্যার মাত্র ০.৬ শতাংশ। বর্তমানে তা তিন লাখে উন্নীত হয়েছে।

মধ্যযুগে জেরুজালেমের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে মুসলিম ও সম্মিলিত খ্রিস্টান বাহিনীর মধ্যে সংঘটিত ক্রুসেড যুদ্ধে অংশ নিয়েছিল ডেনমার্কের সামরিক বাহিনী। তখন থেকেই ডেনমার্ক ইসলামের সঙ্গে পরিচিত হয়। ১৮৮০ সালে অনুষ্ঠিত জরিপে আটজন মুসলিমের বিবরণ পাওয়া যায়। ধারণা করা হয়, এ সময় থেকেই দেশটিতে ইসলামের যাত্রা শুরু হয়। তবে দেশটিতে ইসলামের বিপুল প্রচার শুরু হয় ১৯৫০ সালের পর। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর যুগোস্লাভিয়া, তুরস্ক, পাকিস্তান ও উত্তর আফ্রিকার বিপুলসংখ্যক মুসলিম ভাগ্যান্বেষণে ডেনমার্কে আসে। ১৯৭৩ সালে অভিবাসী আইনে পরিবর্তন আনলে দেশটিতে মুসলিম আগমন সীমিত হয়। তবে ১৯৮০ সালে পুনরায় মধ্যপ্রাচ্যের বহু মুসলিম দেশটিতে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করে।

ডেনমার্কে বসবাসরত মুসলিমদের ৭০ শতাংশ ডেনিস নাগরিক। আদিভূমির বিচারে তাদের মধ্যে ২২.২ শতাংশ তুর্কি, ১০.২ শতাংশ ইরাকি, ৯.৫ শতাংশ লেবানিজ, ৮.৭ শতাংশ পাকিস্তানি, ৭.৩ শতাংশ সোমালিজ এবং ৬.৩ শতাংশ আফগান। অন্যরা বিশ্বের অন্যান্য মুসলিম রাষ্ট্র থেকে আগত। বেশির ভাগ মুসলিম অভিবাসী হলেও ধর্মান্তরিত স্থানীয় ডেনিস মুসলিমদের সংখ্যাও কম নয়। ২০১৭ সালে প্রায় তিন হাজার আট শ ডেনিস নাগরিক মুসলিম হন। খ্যাতিমান ডেনিস নাগরিকদের মধ্যে ১৯২৯ সালে লেখক ও সাংবাদিক নুড হলম্বো প্রথম ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হন।

মুসলমানের সঙ্গে সঙ্গে ডেনমার্কে মসজিদের সংখ্যাও বাড়ছে। ২০০৬ সালে ডেনমার্কে মসজিদের সংখ্যা ছিল ১১৫টি। ২০১৭ সালে যা বেড়ে ১৭০টি হয়। সরকার স্বীকৃত এসব মসজিদ ছাড়াও দেশটিতে আরো অসংখ্য নামাজকক্ষ রয়েছে। মুসলিমদের ধর্মীয় কার্যক্রম পরিচালনার জন্য দেশটিতে সরকার অনুমোদিত ২২টি কমিউনিটি রয়েছে। মুসলিম শিশুদের শিক্ষার জন্য রয়েছে একাধিক ইসলামিক স্কুল। এসব স্কুল সাধারণ বিভিন্ন দেশের কমিউনিটিভিত্তিক। ডেনমার্কের প্রথম ইসলামিক স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৮ সালে। বর্তমানে ২২টি স্বাধীন মুসলিম প্রাইমারি স্কুল রয়েছে।

ডেনমার্ক উদার ও গণতান্ত্রিক দেশ হলেও দেশটির রাজনীতিতে উগ্র জাতীয়তাবাদ, শরণার্থীবিরোধী মনোভাব ও ইসলামবিদ্বেষ বাড়ছে। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ একাধিক মানবাধিকার সংগঠনের সমালোচনা উপেক্ষা করে ৩১ মে ২০১৮ দেশটিতে বোরকা ও নিকাব নিষিদ্ধ করা হয়, যাতে আইন অমান্য করলে এক হাজার ডেনিস ক্রোন জরিমানা করার বিধান রাখা হয়।

তথ্যসূত্র : ইসলামওয়েব

লেবানন.ইউএম.ডিকে ও উইকিপিডিয়া



সাতদিনের সেরা