kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

যে ফুলের সৌরভে সুরভিত হয় পবিত্র কাবা

বেলায়েত হুসাইন   

১৭ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যে ফুলের সৌরভে সুরভিত হয় পবিত্র কাবা

প্রতিবছরের ধারাবাহিকতায় এ বছরও সৌদি আরবের তায়েফে গোলাপ ফুল ফোটার মৌসুম শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে তায়েফের সুবিশাল রুক্ষ মরুর কোলে বড় একটি এলাকা ফুটন্ত গোলাপের সমারোহে গোলাপি রং ধারণ করেছে। সাধারণত এপ্রিলের মধ্যেই বাগান থেকে উত্কৃষ্ট গোলাপগুলো বাছাই করে সুগন্ধি তেল তৈরি করা হয় এবং এই তেল দিয়েই মসজিদুল হারাম ও পবিত্র কাবাগৃহ সুগন্ধযুক্ত করা হয়। তায়েফের গোলাপ ‘তায়েফি রোজ’ নামেও প্রসিদ্ধ। তায়েফি রোজের সুগন্ধি তেল সৌদিতে সমাগত হজ ও ওমরাহ যাত্রীদের কাছেও বেশ সমাদৃত। তা ছাড়া তায়েফি রোজ থেকে তৈরি হয় বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান সুগন্ধি। মোহনীয় সুবাসের জন্য তায়েফি রোজ বিশ্বজুড়ে প্রসিদ্ধ। ফুলের নগরী খ্যাত তায়েফে প্রতিবছর অন্তত ৩০ কোটি গোলাপ উৎপন্ন হয়। এক হিসাব মতে এই নগরীতে কমপক্ষে ৮০০ ফুলবাগান আছে। সাধারণত তায়েফের চাষিরা নিজেদের বাগানের গোলাপ দিয়ে নিজেরাই সুগন্ধি তৈরি করে। তাদের নিজস্ব উদ্যোগে বাড়িতেই সুগন্ধি তৈরির কাজ করা হয়। তা ছাড়া এ অঞ্চলে সুগন্ধি তৈরির একাধিক কারখানাও গড়ে উঠেছে। সুগন্ধি বানানোর প্রক্রিয়া সম্পর্কে তায়েফের বিন সালমান ফার্মের স্বত্বাধিকারী খালাফ আততুআইরি বলেন, ‘সুগন্ধি তেল বানাতে প্রথমে বাগান থেকে ফুলগুলো হাত দিয়ে তোলা হয়। তারপর আমরা ফুলগুলো পানিতে ভালো করে সিদ্ধ করি, যেন তার মূল নির্যাসটা বের হয়ে আসে। সিদ্ধ শেষে ফুলগুলো ঠাণ্ডা হওয়ার জন্য অন্তত ১৫ থেকে ৩০ মিনিট রেখে দিতে হয়। এরপর দীর্ঘক্ষণ ফিল্টারিংয়ের পর সুগন্ধি তেল বেরিয়ে আসে।’ এর আগে সৌদি আরবের প্রভাবশালী গণমাধ্যম আল আরাবিয়ার এক প্রতিবেদনে জানা যায়, এ বছর তায়েফি রোজের ফলন আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় বেশি হয়েছে। আল হুদা পাহাড়ের চূড়া, আশ শিফা, বিলাদে তুআইরিক, মুহাররম উপত্যকাসহ নগরীর বেশ কয়েকটি এলাকায় গোলাপের বাম্পার ফলন চাষিদের মুখে হাসি ফুটিয়েছে।

 

সূত্র : আল আরাবিয়া