kalerkantho

শনিবার । ২৫ বৈশাখ ১৪২৮। ৮ মে ২০২১। ২৫ রমজান ১৪৪২

যেসব কারণে রোজা মাকরুহ হয়

মুফতি তাজুল ইসলাম   

২০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কিছু কাজ করার দ্বারা রোজা মাকরুহ হয়ে যায়; যদিও তার দ্বারা রোজা ভঙ্গ হয় না। এমন কিছু বিবরণ দেওয়া হলো। যেমন—ক. মিথ্যা বলা, খ. মিথ্যা সাক্ষ্য দেওয়া, গ. গিবত করা বা দোষচর্চায় লিপ্ত থাকা, ঘ. মিথ্যা শপথ করা, ঙ. অশ্লীল কথা বলা বা অশ্লীল কাজ করা, চ. জুলুম করা, ছ. কোনো মুমিনের সঙ্গে শত্রুতা রাখা, জ. পরনারীর প্রতি দৃষ্টি করা, তাদের সঙ্গে মেলামেশা করা, ঝ. সিনেমা দেখা—সবই নাজায়েজ। উপরোক্ত কাজ ছাড়া সব গুনাহর কাজ থেকে বিরত থাকা একান্ত জরুরি। এসব কারণে রোজা ভঙ্গ হয় না, তবে মাকরুহ হয়, অর্থাৎ সওয়াব কম হয়। (জাওয়াহিরুল ফাতাওয়া : খ. ১, পৃ. ২২; জাওয়াহিরুল ফিকহ : খ. ১, পৃ. ৩৭৯; বুখারি, হাদিস : ১৯০৩)

 

►   কোনোরূপ অপারগতা ছাড়াই কোনো বস্তু আস্বাদন করা বা চর্বণ করা। (শামি : খ. ৩, পৃ. ৩৯৫)

►   অনন্যোপায় ছাড়াই কোনো কিছু চর্বণ করে শিশুর মুখে দেওয়া। (ফাতহুল কাদির : খ. ২, পৃ. ৩৪৯)

►   একান্ত প্রয়োজন ছাড়া কেনাবেচার সময় মধু কিংবা তেলের স্বাদ আস্বাদন করা। (আলমগিরি : খ. ১, পৃ. ১৯৯)

►   সঙ্গম বা বীর্যপাতের আশঙ্কা থাকা সত্ত্বেও স্ত্রীকে চুমু দেওয়া। (আলমগিরি : খ. ১, পৃ. ২০০)

►   মুখে অধিক পরিমাণ থুতু একত্র করে গিলে ফেলা।   (বিনায়াহ : খ. ৪, পৃ. ২৯৪)

►   বেশি ক্ষুধা বা পিপাসার কারণে অস্থিরতা প্রকাশ করা।   (শামি : খ. ৩, পৃ. ৪০০)

►   মাজন, কয়লা, গুল, টুথপেস্ট ব্যবহার করা। (জাওয়াহিরুল ফিকহ : খ. ১, পৃ. ৩৭৯)

►   অহংকারের জন্য সুরমা লাগানো বা গোঁফে তেল লাগানো। (আলমগিরি)

►   পায়খানার রাস্তায় পানি দ্বারা এত বেশি ধৌত করা যে ভেতরে পানি চলে যাওয়ার আশঙ্কা হয়। (আলমগিরি : খ. ১, পৃ. ১১৯)

►   ক্ষতির আশঙ্কা হলে শ্রমিকের জন্য মালিকের অনুমতি ছাড়া রোজা রাখা।

►   প্রয়োজন ছাড়া ডাক্তারের মাধ্যমে দাঁত তোলা মাকরুহ। তাতে যদি রক্ত বা দাঁতে লাগানো ওষুধ পেটে চলে যায়, যা থুতুর সমপরিমাণ বা তার চেয়ে বেশি হয়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে। (আহসানুল ফাতাওয়া : খ. ৪, পৃ. ৪২৬)

►   এমন কোনো কর্ম করা, যা শরীরকে দুর্বলতার দিকে নিয়ে যায়, তা মাকরুহ। (শামি : খ. ৩, পৃ. ৪০০)

►   রোজাদারের জন্য অজু ছাড়া কুলি করা মাকরুহ। (আল-ওয়াল ওয়ালিযিয়্যাহ : খ. ১, পৃ. ২২৭)



সাতদিনের সেরা