kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৮ মে ২০২১। ৫ শাওয়াল ১৪৪

করোনা বিষয়ক মাসআলা-২

করোনারোধে চিকিৎসা গ্রহণ

ড. খালিদ বিন আলী আল-মুশায়্যাকা   

১৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনারোধে চিকিৎসা গ্রহণ

কোনো রোগের চিকিৎসা গ্রহণের ব্যাপারে ইসলামী শরিয়তের মূলনীতি হলো তা বৈধ ও নির্দোষ; কখনো কখনো তা ওয়াজিব। কেননা রাসুলুল্লাহ (সা.) চিকিৎসা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন, চিকিৎসা ও রোগমুক্তির জন্য দোয়া ও তদবির শিক্ষা দিয়েছেন। মহানবী (সা.) বলেছেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ রোগ ও আরোগ্য পাঠিয়েছেন। প্রত্যেক রোগের জন্য রয়েছে চিকিৎসা। সুতরাং তোমরা চিকিৎসা গ্রহণ করো। তবে হারাম বস্তু দ্বারা চিকিৎসা গ্রহণ করো না।’ (সুনানে আবি দাউদ, হাদিস : ৩৮৭৪)

যদি চিকিৎসা গ্রহণ না করলে জীবননাশ, অঙ্গহানি বা বিকলাঙ্গ হওয়ার প্রবল আশঙ্কা থাকে তবে তা গ্রহণ করা ওয়াজিব। করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির অবস্থাও যদি এই পর্যায়ে চলে যায়, তবে তার জন্যও চিকিৎসা গ্রহণ করা ওয়াজিব হবে। নতুবা একটি সংক্রামক রোগ হওয়ায়—যার মাধ্যমে পরিবার ও সমাজের অন্যদেরও ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ভয় আছে তার চিকিৎসা গ্রহণ না করা অনুচিত। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘তোমরা নিজেরা নিজেদের হত্যা কোরো না। নিশ্চয়ই আল্লাহ তোমাদের প্রতি দয়াশীল।’ (সুরা নিসা, আয়াত : ২৯)

অন্য আয়াতে ইরশাদ হয়েছে, ‘তোমরা নিজেদের ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিয়ো না।’ (সুরা বাকারা, আয়াত :  ১৯৫)। যদি চিকিৎসার উপকার সম্পর্কে সন্দিহান হয় অথবা তা পরিহারে ক্ষতির আশঙ্কা না থাকে তবে চিকিৎসা গ্রহণ করা মুস্তাহাব। চিকিৎসার ফলাফল সম্পূর্ণ অজ্ঞাত হয় তবু তা গ্রহণ করা বৈধ।