kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

সব নবী কি হজ করেছেন?

মুফতি তাজুল ইসলাম   

১২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাসুল (সা.)-এর আগমনের বহু আগে থেকে মক্কায় কাবাগৃহ ও পবিত্র হজ পালন জারি ছিল। তবে সব নবী-রাসুলের হজ করার ব্যাপারে স্পষ্ট বর্ণনা পাওয়া যায় না। যদিও ঐতিহাসিক সূত্র থেকে ইঙ্গিত পাওয়া যায় যে সব নবী-রাসুল হজ করেছেন। রাসুল (সা.) বলেন, রাওহা উপত্যকা দিয়ে ৭০ জন নবী পশমি কাপড় পরে হজ করতে গিয়েছিলেন এবং মসজিদে খায়ফে ৭০ জন নবী সালাত আদায় করেছিলেন। (বায়হাকি, হাদিস : ৯৮৩৭; মুসতাদরাক হাকেম, হাদিস : ৪১৬৯)

অন্য বর্ণনায় এসেছে, রাসুল (সা.) বলেন, মসজিদে খায়ফে ৭০ জন নবী সালাত আদায় করেছেন। মুসা (আ.) তাঁদের অন্যতম। আমি যেন তাঁর দিকে তাকিয়ে আছি। তাঁর গায়ে দুটি পশমি চাদর জড়ানো। তিনি দুই গুচ্ছ লাগামবিশিষ্ট উটের ওপর ইহরাম বেঁধে বসে আছেন। (তাবরানি কাবির, হাদিস : ১২২৮৩)

হাদিসের কিতাবের বর্ণনা ছাড়াও মুসলিম ইতিহাসবিদদের লেখায় এ তথ্য পাওয়া যায় যে অনেক নবী পবিত্র হজ পালন করেছেন। ইবনে ইসহাক, হায়তামি ও ইবনে কাসির (রহ.)সহ বেশির ভাগ বিদ্বান মনে করেন, হুদ ও সালেহ (আ.) ছাড়া সব নবী-রাসুল হজ করেছেন। (সিরাতে ইবনে ইসহাক, পৃষ্ঠা ৯৫; আল-বিদায়া ওয়ান নিহায়া : ২/২৯৯)

এমনকি ঈসা (আ.) পৃথিবীতে আসার পর হজ করার কথা হাদিসে উল্লিখিত হয়েছে। রাসুল (সা.) বলেন, ‘সেই সত্তার কসম যাঁর হাতে আমার প্রাণ! মরিয়মপুত্র ঈসা অবশ্যই রাওহা উপত্যকায় হজ অথবা ওমরাহ অথবা উভয়ের তালবিয়া পাঠ করবেন। (মুসলিম, হাদিস : ১২৫২)