kalerkantho

সোমবার । ৬ বৈশাখ ১৪২৮। ১৯ এপ্রিল ২০২১। ৬ রমজান ১৪৪২

আদম (আ.) পৃথিবীতে কত ধাপে এসেছেন

২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বের ইতিহাসে প্রথম মানুষ ও প্রথম নবী হিসেবে মহান আল্লাহ আদম (আ.)-কে নিজ হাতে সরাসরি সৃষ্টি করেছেন। মাটির সব উপাদানের সার-নির্যাস একত্র করে আঠালো ও পোড়ামাটির মতো শুষ্ক মাটির তৈরি সুন্দরতম অবয়বে রুহ ফুঁকে দিয়ে আল্লাহ আদমকে সৃষ্টি করেছেন। আদম (আ.)-কে সৃষ্টি করার পর তিনি জান্নাতে ছিলেন। সেখানে থেকে নিষিদ্ধ বৃক্ষের ফল খাওয়ার পর আল্লাহর বিশেষ হিকমতে তাঁকে তাঁর স্ত্রীসহ এই পৃথিবীতে পাঠানো হয়। সুরা বাকারার ৩৬-৩৯ আয়াত থেকে বোঝা যায়, আদম (আ.)-কে দুই ধাপে পৃথিবীতে পাঠানো হয়েছে। যদিও তাফসিরবিদদের অনেকেই মনে করেন, আদম (আ.)-কে এক ধাপেই পৃথিবীতে পাঠানো হয়েছে। একদল তাফসিরবিদের মতে, প্রথম নির্দেশের মাধ্যমে আদম (আ.)-কে জান্নাত থেকে আসমানে নামানো হয়। এর পরের নির্দেশে আসমান থেকে পৃথিবীতে নামানো হয়।

অন্যদল তাফসিরবিদের মতে, এক নির্দেশে এক ধাপে আদম (আ.)-কে পৃথিবীতে পাঠানো হয়। অতঃপর দ্বিতীয়বার নির্দেশের মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা বিষয়টি আরো জোরালোভাবে উল্লেখ করেছেন। (তাফসিরুল বাসিত : ২/৪১০; আল-বিদায়াহ : ১/১৮৫-১৮৬)

আদম (আ.) ও হাওয়া (আ.)-কে আসমানে অবস্থিত জান্নাত থেকে নামিয়ে দুনিয়ায় কোথায় রাখা হয়েছিল—সে বিষয়ে মতভেদ আছে। যেমন—বলা হয়েছে আদম (আ.)-কে সরাসরি সরণদীপে (শ্রীলঙ্কা) ও হাওয়া (আ.)-কে জেদ্দায় (সৌদি আরব) এবং ইবলিসকে বসরায় (ইরাক) নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আর কেউ কেউ বলেছেন, আদম (আ.)-কে মক্কার সাফা পাহাড়ে এবং হাওয়া (আ.)-কে মারওয়া পাহাড়ে নামানো হয়েছিল। এ ছাড়া আরো বক্তব্য এসেছে। তবে যেহেতু কোরআন ও সহিহ হাদিসে এ বিষয়ে স্পষ্ট কিছু বলা হয়নি, তাই এ বিষয়ে আমাদের চুপ থাকা ভালো।

গ্রন্থনা : মাওলানা সাখাওয়াত উল্লাহ।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা