kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

ইসলামের উদারতা

মানুষের বসার জন্য মসজিদসংলগ্ন চত্বর থাকতে পারে

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



মসজিদ মুসলমানদের মিলনমেলা। এটি সামাজিকতার সূতিকালয়। ইসলামের সোনালি যুগে মসজিদ শুধু ইবাদতের জন্য সীমাবদ্ধ ছিল। এটি মুসলমানদের অসংখ্য কর্মকাণ্ডের উৎস ছিল।

মসজিদ ধর্মীয় কর্মকাণ্ডের উৎসভূমি। এটি মুসলমানদের আশ্রয়স্থল। মুসলমানরা দিনে পাঁচবার মসজিদে যায়। সেখানে সালাত আদায় করে। তারা মসজিদে আল্লাহর কাছে দয়া, ক্ষমা, জাহান্নাম থেকে মুক্তি প্রার্থনা করে। মসজিদ যেমন জ্ঞান-বিজ্ঞানের বাতিঘর, তেমনি ইবাদত-বন্দেগির মিহরাব।

রাসুল (সা.)-এর যুগে মসজিদে নববীতে কবিতা আবৃত্তি করা হতো। উমর (রা.) মসজিদে নববীর পাশে পৃথক চত্বর গড়ে তোলেন।

ইমাম মালিক (রহ.) থেকে বর্ণিত, উমর (রা.) মসজিদে নববীর পাশে একটি বড় চত্বর বানিয়েছিলেন, এর নাম রাখা হয়েছিল ‘বুত্বায়হা’। তিনি লোকদের বলে রেখেছিলেন, যে ব্যক্তি বাজে কথা বলবে অথবা কবিতা আবৃত্তি করবে অথবা উঁচু কণ্ঠে কথা বলতে চায় সে যেন সেই চত্বরে চলে যায়। (মুওয়াত্তা ইমাম মালিক, হাদিস : ৪২২; মিশকাত, হাদিস : ৭৪৫; বায়হাকি, সুনানুল কুবরা, হাদিস : ২০০৫৩; আল-ইস্তিজকার, হাদিস : ৩৯৪)

গ্রন্থনা : আহমাদ রাইদ।

 

মন্তব্য