kalerkantho

শুক্রবার । ২০ ফাল্গুন ১৪২৭। ৫ মার্চ ২০২১। ২০ রজব ১৪৪২

প্রশ্ন-উত্তর

২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



খাওয়ার পর মিষ্টি মুখ করা কি সুন্নত

প্রশ্ন : অনেকে বলে, খাবারের পর মিষ্টি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার বা ফল খাওয়া সুন্নত। কথাটি কি সঠিক?

আবুল হাসান, নেত্রকোনা।

উত্তর : রাসুল (সা.) মধু, হালুয়া বা মিষ্টিজাত দ্রব্যকে অধিক পছন্দ করতেন বলে হাদিস শরিফে পাওয়া যায়। তবে খাওয়ার শেষে মিষ্টি বা মিষ্টিজাত দ্রব্য খাওয়া সুন্নত তার প্রমাণ পাওয়া যায় না। (বুখারি, হাদিস : ৫৪৩১, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৪/৪১৪,৪১৫, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১১/৩৬৮)

 

পশু বর্গা দেওয়ার সঠিক পদ্ধতি কী?

প্রশ্ন : আমাদের দেশে অনেক প্রকারের পশু অনেকভাবেই বর্গা দেওয়া হয়, যার পদ্ধতি জায়েজ কি না তা নিয়ে সন্দেহ আছে। তাই পশু বর্গা দেওয়ার সঠিক ও নিরাপদ পদ্ধতি জানতে চাই।

ফরহাদ, চট্টগ্রাম।

উত্তর : পশু বর্গা দেওয়ার বিশুদ্ধ পদ্ধতি কিতাবে এরূপ উল্লেখ আছে, মালিক বর্গাগ্রহীতার কাছে অর্ধেক জন্তু বিক্রি করে তাকে এই পশুতে শরিক করে নেবে। এ অবস্থায় বিক্রির মূল্যকে চরানোর মজুরি ও আহারের মূল্য বাবদ কর্তন করে দেবে। পরবর্তী সময়ে ওই জন্তুর সব ধরনের লাভে উভয়ে সমানভাবে শরিক হয়ে যাবে। (হিন্দিয়া : ২/৩২৫, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১০/৪৬৯)

 

দান করার জন্য মসজিদে টাকা ভাঙানো

প্রশ্ন : জুমার দিন মসজিদে দান করার জন্য মসজিদের বাক্স থেকে টাকা ভাঙানো, যেমন এক শ টাকার নোট দিয়ে ১০ টাকা দান করে বাকি নব্বই টাকা ফেরত নেওয়া কি জায়েজ?

স্বপন, ডেমরা, ঢাকা।

 

উত্তর : উল্লিখিত পদ্ধতিতে মসজিদের দানবাক্স থেকে টাকা ভাঙানো জায়েজ হবে এবং অতিরিক্ত টাকা ফেরত নেওয়াও বৈধ হবে। (ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১২/২৫৪, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৯/৩৯)

 

গানের সুরে কোরআন পড়া

প্রশ্ন : ইদানীং অনেকে গানের সুরে কোরআন তিলাওয়াত করে ইউটিউবে দেয়। গানের সুরে কোরআন পড়ার বিধান কী?

আব্দুল কাদের, ঢাকা।

 

উত্তর : কোরআন শরিফ মধুর কণ্ঠে পড়া প্রশংসনীয়। হাদিস শরিফে সুন্দর কণ্ঠে পড়তে উৎসাহিত করা হয়েছে। কিন্তু গানের সুরে পড়া কোরআনের অবমাননার শামিল হওয়ায় বর্জনীয়। (শুআবুল ঈমান : ২/৩৮৬, আল মুজামুল আউসাত : ৭/১৮৩, হিন্দিয়া : ৫/৩০৮, কিফায়াতুল মুফতি : ২/১৪৩)

 

আমিন না বলে যাবেন না পোস্টের বিধান

প্রশ্ন : যারা ফেসবুক চালায়, তাদের প্রায়ই কিছু বিব্রতকর পোস্টের সম্মুখীন হতে হয়। তার মধ্যে একটা হলো, ‘আপনি মুসলমান হয়ে থাকলে অবশ্যই একবার হলেও আমিন বা আল্লাহ লিখুন।’ যেগুলো আমার কাছে বাড়াবাড়ি মনে হয়। এরূপ পোস্টে যদি আমরা কমেন্ট না করি, তাহলে কি গুনাহগার হব?

আজগর আলী, নারায়ণগঞ্জ।

উত্তর : এজাতীয় পোস্টের কমেন্টে ‘আল্লাহ’ শব্দ লেখা বা না লেখার সঙ্গে গুনাহ বা সওয়াবের কোনো সম্পর্ক নেই।

 

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ বসুন্ধরা, ঢাকা

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা