kalerkantho

শুক্রবার । ২০ ফাল্গুন ১৪২৭। ৫ মার্চ ২০২১। ২০ রজব ১৪৪২

প্রশ্ন-উত্তর

২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টাখনুর ওপর প্যান্ট পরা

প্রশ্ন : আমরা সাধারণত অফিসে যাওয়ার সময় টাখনুর ওপর প্যান্ট পরি না। তবে নামাজের সময় অবশ্যই প্যান্ট টাখনুর ওপর উঠিয়ে নিই। এতে কোনো সমস্যা আছে?

জামান, চট্টগ্রাম

উত্তর : পুরুষের পরিধেয় পোশাক যেমন— লুঙ্গি, পায়জামা, প্যান্ট, জামা ইত্যাদি সর্বাবস্থায় টাখনুর ওপর থাকা আবশ্যক। নামাজের ভেতর-বাহিরে একই বিধান। টাখনুর নিচে প্যান্ট পরা কবিরা গুনাহ। (বুখারি, হাদিস : ৫৭৮৭, আবু দাউদ, হাদিস : ৪০৯৩, এমদাদুল আহকাম : ৪/৩৩৬, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১১/৪৬১)

 

বিয়েতে তিনবার কবুল বলানো কি বাধ্যতামূলক?

প্রশ্ন : আমাদের ইমাম সাহেব বিয়ে পড়ানোর সময় শুধু একবার ইজাব-কবুল পড়ান। এতে আপত্তি জানালে তিনি বলেন যে এটাই সঠিক ও শরিয়তসম্মত। তিনবার বলার প্রয়োজন নেই। এ কথা কি সঠিক?

মাহতাব চৌধুরী, বাংলাবাজার, ঢাকা

উত্তর : আপনাদের ইমাম সাহেবের বক্তব্য সঠিক। বিয়ে সম্পাদনের বেলায় ইজাব-কবুল একবারই যথেষ্ট। একের অধিক প্রয়োজন নেই। (আদ্দুররুল মুখতার : ৩/৯, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৬/১০১)

 

শিশু দুধ পান করলে কি অজু ভেঙে যায়?

প্রশ্ন : আমি অনেক সময় নামাজের জন্য অজু করে বাচ্চাকে দুধ পান করাই, এরপর নামাজ পড়ি। আমার একজন আত্মীয় বলেছেন, এটা ঠিক নয়। এভাবে নাকি অজু ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা আছে। কথাটি কি ঠিক?

নাহিয়া হাবিব, ফেনী

উত্তর : না, কথাটি ঠিক নয়। অজু অবস্থায় দুধ পান করালে অজু ভাঙে না। (এমদাদুল ফাতাওয়া : ১/৪১, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৩/৬১)

 

গোবরের ক্রয়-বিক্রয় ও জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার

প্রশ্ন : গোবর বিক্রি করা এবং তা লাকড়ির সঙ্গে মিশিয়ে এবং মেশানো ছাড়া জ্বালানির কাজে ব্যবহার করা জায়েজ হবে কি?

সুমন নাজু, চাষাঢ়া, নারায়ণগঞ্জ

উত্তর : হ্যাঁ, ইসলামের দৃষ্টিতে গোবর বিক্রয় করা জায়েজ আছে। লাকড়ির সঙ্গে মিশিয়ে হোক, বা না মিশিয়ে, সর্বাবস্থায় জ্বালানির কাজে ব্যবহার করা জায়েজ আছে। (বাদায়েউস সানায়ে : ৫/১৪৪, আদ্দুররুল মুখতার : ৬/৩৮৫, আহসানুল ফাতাওয়া : ৬/৫২১, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ৫/১১৪, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৯/৪৩৯)

 

লটারির মাধ্যমে প্রাপক ঠিক করা

প্রশ্ন : আমাদের গ্রামের ১০ জন রিকশাচালক মিলে একটি সমিতি করে। যার পদ্ধতি হলো—১০ জন প্রতিদিন ৫০ টাকা করে জমা দেয়, ১০ দিন পর যখন পাঁচ হাজার টাকা জমা হয়, তখন লটারির মাধ্যমে যার নাম প্রথমে আসে তাকে ওই টাকাগুলো দিয়ে দেওয়া হয়। যার নাম একবার এসে যায় তার নাম দ্বিতীয়বার আর দেওয়া হয় না। আবার সবাই টাকা জমা দিতে থাকে। আবার লটারি হয়। একসময় দেখা যায়, সবার ভাগ্যে ওই পাঁচ হাজার টাকা এসে যায়। এই পদ্ধতিটি কি ইসলামসম্মত?

আবদুর রহিম, নোয়াখালী

 

উত্তর : প্রশ্নে বর্ণিত পদ্ধতি ইসলামী নীতির পরিপন্থী নয় বিধায় তা জায়েজ ও বৈধ বলে বিবেচিত হবে। (রদ্দুল মুহতার : ৬/২৬২, আহসানুল ফাতাওয়া : ৮/২২৪, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১০/৩৩৫)

 

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ বসুন্ধরা, ঢাকা

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা