kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

প্রশ্ন-উত্তর

২১ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নূপুর পরার বিধান কী?

প্রশ্ন : নারীদের জন্য পায়ে নূপুর পরা জায়েজ আছে? যদি জায়েজ হয় তাহলে কোন ধরনের নূপুর?

     —লাভলী, চট্টগ্রাম।

উত্তর : নারীদের পায়ে অলংকার ব্যবহার করার অনুমতি আছে। তবে পরপুরুষের কানে আওয়াজ যায় বা দৃষ্টিতে পড়ার মতো অলংকার ব্যবহার থেকে বিরত থাকা উচিত। (সুরা : নুর, আয়াত : ৩১, তাফসিরে ইবনে কাসির : ৬/৪৬, তিরমিজি, হাদিস : ২৭৮৮, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১১/৫০৮)

 

পুরুষ যেমন হবে স্ত্রীও কি তেমন হবে?

প্রশ্ন : জনৈক বড় ভাই বলেছেন যে পুরুষের চরিত্র যেমন হবে, সে একই চরিত্রের স্ত্রী পাবে। তিনি এ কথার ব্যাখ্যায় বলেন, পুরুষ যদি ব্যভিচারী হয় সে ব্যভিচারিণী স্ত্রী পাবে। পুরুষ যৌন বিষয়ে যে ধরনের অন্যায় করেছে তার স্ত্রীকেও যৌন বিষয়ে এ ধরনের অন্যায়কারী পাবে। তিনি আরো বলেন, এ ধরনের কথা কোরআন-হাদিসে আছে। তার বক্তব্য কি সত্য?

     —শিফাক, ফার্মগেট, ঢাকা।

 

উত্তর : পবিত্র কোরআনে সুরা আন নুরে এ রকম একটি আয়াত আছে। যার ব্যাখ্যা হলো, যে ব্যক্তি যেমন চরিত্রের অধিকারী সাধারণত সে অনুরূপ চরিত্রের জোড়ার প্রতি স্বভাবগতভাবে আকৃষ্ট হয়ে থাকে এবং অধিকাংশ সময় এমন মিলেও যায়। তবে নির্দিষ্ট কোনো জোড়ার ব্যাপারে এমন হয়েছে বলে নিশ্চিত দাবি করা যাবে না। (সুরা নুর, আয়াত : ৩, তাফসিরে রুহুল মাআনি : ৯/৩৮০, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ২/১২১)

 

মানব অঙ্গের ক্রয় ও বিক্রয়ের বিধান

প্রশ্ন : মানুষের রক্ত ও বিভিন্ন অঙ্গের ক্রয়-বিক্রয় বৈধ কি না? যদি বৈধ হয়ে থাকে তাহলে কি সব অঙ্গের ক্রয়-বিক্রয় বৈধ? নাকি কিছু বৈধ আর কিছু অবৈধ?

     —ফাহিম, নারায়ণগঞ্জ।

উত্তর : মানুষকে আল্লাহ তাআলা সৃষ্টির সেরা, সম্মানিত ও মর্যাদাবান করেছেন। তাই মানুষের কোনো অঙ্গকে ব্যাবসায়িক পণ্য বানানো সম্মানপরিপন্থী। তাই মানব অঙ্গ ও রক্তের ক্রয়-বিক্রয় জায়েজ নেই। তবে অসুস্থ ব্যক্তির প্রাণ রক্ষার্থে বিনা মূল্যে শুধু রক্ত আছে। তবে এসব বিক্রয় করা বা বিক্রয়মূল্য ভোগ করা বিক্রেতার জন্য কোনো অবস্থাতেই হালাল হবে না। (হেদায়া : ৫/১০৬, বাদায়েউস সানায়ে : ৫/১৪৫, আহসানুল ফাতাওয়া : ৮/২৭৩, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৯/৪৮২)

 

চিরকুমার থাকার বিধান কী?

প্রশ্ন : আমাদের দেশে অনেক মানুষকে দেখা যায় তারা চিরকুমারিত্ব গ্রহণ করেছে এবং এর পেছনে তারা যথেষ্ট যুক্তি-প্রমাণ দিয়ে থাকে। তাদের মতে অনেক মনীষীও চিরকুমার জীবন কাটিয়েছেন। জানার বিষয় হলো, ইসলামে চিরকুমার জীবন বেছে নেওয়ার বিধান কী?

     —সাদিদ কায়সার, নোয়াখালী।

উত্তর : পুরুষ কিংবা নারী যদি সাংসারিক ও পারিবারিক জীবনে পরস্পর হক ও অধিকার আদায়ের পূর্ণ শক্তি ও সামর্থ্য রাখে তাহলে ইসলামে তাদের জন্য অবিবাহিত জীবন কাটানোর অনুমতি নেই। তবে বিয়ের কারণে ফরজ, ওয়াজিব, সুন্নত ইত্যাদি আল্লাহর বিধান পালন করতে অক্ষম হলে বা স্ত্রীর যাবতীয় অধিকার আদায়ে যদি অপারগ হয় বা ত্রুটিবিচ্যুতি হওয়ার দৃঢ় আশঙ্কা হয়, তাহলে চিরকুমার থাকার অবকাশ আছে। উল্লেখ্য, কিছু কিছু মনীষী ইসলামী জ্ঞানচর্চায় মগ্ন ও দ্বিন প্রচারে ব্যস্ত থাকায় হয়তো স্ত্রীর অধিকার আদায়ের ব্যাপারে সন্দিহান ও শঙ্কিত ছিলেন, তাই বিয়ে করেননি। তাই তা ইসলামবিরোধী বলে গণ্য হবে না। (নাসায়ি, হাদিস : ৩২১৭, আল বাহরুর রায়েক : ৩/৮০, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৬/২১)

 

জিপি ফান্ডের মুনাফায় ব্যবসা

প্রশ্ন : আমার বাবা জিপি ফান্ডের কিছু মুনাফা পেয়েছেন। তা দিয়ে তিনি আমাকে ব্যবসার পুঁজি দিতে চান। প্রশ্ন হলো, জিপি ফান্ডের মুনাফা কী জায়েজ?

     —তরঙ্গ, বসুন্ধরা আ/এ, ঢাকা।

উত্তর : জিপি ফান্ডের টাকা বেতনের অন্তর্ভুক্ত। মালিকপক্ষ এ অর্থ খাটিয়ে মুনাফা অর্জন করে তা থেকে যতটুকু কর্মচারীকে দেয়, সবই তার জন্য ঐচ্ছিক দান, এটাকে সুদ বলা সঠিক নয়। এই অর্থ কর্মচারীর জন্য বৈধ। (আল বাহরুর রায়েক : ৭/৩০০, আদ্দুররুল মুখতার : ৬/১০, এমদাদুল ফাতাওয়া : ৩/১৪৯, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১০/১৫৪)

 

সমাধান : ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ বসুন্ধরা, ঢাকা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা