kalerkantho

শনিবার । ২১ ফাল্গুন ১৪২৭। ৬ মার্চ ২০২১। ২১ রজব ১৪৪২

১০ হাজার নারী হাদিস বিশেষজ্ঞ নিয়ে ৪৩ খণ্ডের গ্রন্থ

মুহাম্মাদ হেদায়াতুল্লাহ   

১৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



১০ হাজার নারী হাদিস বিশেষজ্ঞ নিয়ে ৪৩ খণ্ডের গ্রন্থ

ইসলামের ইতিহাসে বর্ণিত ১০ হাজারের বেশি নারী হাদিস বিশেষজ্ঞদের অবদান নিয়ে ৪৩ খণ্ডে ঐতিহাসিক গ্রন্থ প্রকাশ পেয়েছে। ভারতের প্রখ্যাত আলেম, ক্যামব্রিজ ইসলামিক কলেজের ডিন ও আস সালাম ইনস্টিটিউটের প্রিন্সিপাল ড. মুহাম্মদ আকরাম নদভি দীর্ঘ ১৫ বছর গবেষণা করে এ অনবদ্য গ্রন্থ রচনা করেন। গ্রন্থটি সৌদি আরবের জেদ্দার দারুল মিনহাজ প্রকাশনী থেকে প্রকাশ পায়। কিং ফাহাদ রোডে প্রকাশনীর প্রদর্শনী বইটি পাওয়া যাবে।

‘আল ওয়াফা বি আসমাইন নিসা’ নামের সুবিশাল গ্রন্থে ইসলামের সূচনাকাল থেকে বিভিন্ন যুগে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে হাদিসের অধ্যয়ন, অধ্যাপনা ও হাদিসের ‘ইজাজাত’ প্রদানে নিয়োজিত নারী মুহাদ্দিসদের সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। এর আগে ২০১৩ সালে গ্রন্থটির সাড়ে তিন শ পৃষ্ঠার ভূমিকা ‘আল মুহাদ্দিসাত : দ্য উইম্যান স্কলারস ইন ইসলাম’ নামে ইংরেজিতে প্রকাশিত হয়।

আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত ‘মুসলিম সমাজে শান্তির প্রসার’ শীর্ষক সম্মেলনে সৌদিভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল ওয়াতান-কে ড. নদভি বলেন, ‘গ্রন্থটিতে হাদিসের শ্রবণ, ইজাজাত, বর্ণনা ও রচনায় মহানবী মুহাম্মদ (সা.) থেকে আধুনিককাল পর্যন্ত মুসলিম নারী মুহাদ্দিসদের নিয়ে আলোকপাত করা হয়।’

ড. নদভি আরো বলেন, ‘ইসলামের সোনালি যুগের মতো এ যুগের নারীরাও যেন শিক্ষা, অধ্যয়ন ও গবেষণায় ব্রতী হন মূলত এ উদ্দেশ্যেই গ্রন্থটি লিখিত। পাশাপাশি মুসলিম নারীরা নিপীড়িত ও নির্যাতিত বলে প্রাচ্যবিদদের অপপ্রচারের জবাব হিসেবে আড়ালে থাকা ইতিহাস তুলে ধরা হয়।’

ড. মুহাম্মাদ আকরাম নদভি ১৯৬৪খ্রি./১৩৮২ হি. সালে ভারতের উত্তর প্রদেশের জৌনপুরে জন্মগ্রহণ করেন। ১৪০১ হিজরিতে তিনি লখনউর বিশ্ববিখ্যাত দারুল উলুম নদওয়াতুল উলামা থেকে ‘আলামিয়া’ ডিগ্রি অর্জন করেন। অতঃপর লখনউ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক এবং আরবি ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। এ সময় তিনি সৌদি আরবের কিং সাউদ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

বিশ্ববিখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ ও দায়ি আল্লামা আবুল হাসান আলী নদভি ও সিরিয়ার বিখ্যাত মুহাদ্দিস আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ ও মিসরের ড. ইউসুফ আল কারাজাবি, আল্লামা আবদুর রশিদ নুমানিসহ প্রায় পাঁচ শতাধিক বিখ্যাত আলেমের কাছে আকরাম নদভি হাদিসের ‘ইজাজত’ (হাদিস বর্ণনার অনুমোদন) গ্রহণ করেন।

১৪০৪ হিজরিতে আকরাম নদভি নদওয়াতুল ওলামায় চার বছর শিক্ষকতা শুরু করেন। এরপর ১৯৮৯ সালে আবুল হাসান আলী নদভি (রহ.) তাঁকে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষক হিসেবে পাঠান। এরপর ২০১৩ সাল থেকে ক্যামব্রিজ ইসলামিক কলেজের ডিন ও আস সালাম ইনস্টিটিউটের প্রিন্সিপাল হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। আরবি, উর্দু ও ইংরেজিতে ড. নদভি ৩০টির বেশি গ্রন্থ রচনা করেন।

মন্তব্য