kalerkantho

শুক্রবার । ৭ কার্তিক ১৪২৭। ২৩ অক্টোবর ২০২০। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

হাদিসের শিক্ষা

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাদিসের শিক্ষা

নামাজ কায়েমের বায়আত

জারির ইবনে আবদুল্লাহ (রা.) বলেন, আমি আল্লাহর রাসুল (সা.)-এর কাছে নামাজ আদায়, জাকাত প্রদান এবং প্রত্যেক মুসলমানকে নসিহত করার বায়আত গ্রহণ করেছি। (বুখারি, হাদিস : ৫২৪)

 

নামাজ পাপ মিটিয়ে দেয়

আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.) বলেন, এক ব্যক্তি কোনো এক নারীকে চুম্বন করে। পরে সে আল্লাহর রাসুল (সা.)-এর কাছে এসে বিষয়টি তাঁর গোচরীভূত করে। তখন আল্লাহ তাআলা আয়াত নাজিল করেন, ‘দিনের দুই প্রান্তে—সকাল ও সন্ধ্যায় এবং রাতের প্রথম অংশে নামাজ কায়েম করো। নিশ্চয়ই ভালো কাজ পাপাচার মিটিয়ে দেয়।’ (সুরা : হুদ, আয়াত : ১১৪)

লোকটি জিজ্ঞেস করল, হে আল্লাহর রাসুল! এটা কি শুধু আমার বেলায়? আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেছেন, আমার সব উম্মতের জন্যই। (বুখারি, হাদিস : ৫২৬)

 

যথাসময়ে নামাজ আদায়ের ফজিলত

আবু আমর শায়বানি (রহ.) থেকে বর্ণিত, তিনি আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.)-এর বাড়ির দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, এ বাড়ির মালিক আমাদের কাছে বর্ণনা করেছেন, আমি আল্লাহর রাসুল (সা.)-কে জিজ্ঞেস করলাম, কোন আমল আল্লাহর কাছে অধিক প্রিয়? তিনি বলেন, ‘যথাসময়ে নামাজ আদায় করা। ইবনে মাসউদ (রা.) পুনরায় জিজ্ঞেস করলেন, অতঃপর কোনটি? আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেন, অতঃপর জিহাদ ফি সাবিলিল্লাহ (আল্লাহর পথে জিহাদ)। ইবনে মাসউদ (রা.) বলেন, এগুলো তো আল্লাহর রাসুল (সা.) আমাকে বলেছেন, যদি আমি আরো অধিক জানতে চাইতাম, তাহলে তিনি আমাকে আরো বলতেন। (বুখারি, হাদিস : ৫২৭)

 

নামাজ গুনাহের কাফফারা

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি আল্লাহর রাসুল (সা.)-কে বলতে শুনেছেন, ‘বলো তো, যদি তোমাদের কারো বাড়ির সামনে একটি নদী থাকে, আর সে তাতে প্রতিদিন পাঁচবার গোসল করে, তাহলে কি তার দেহে কোনো ময়লা থাকবে? তারা বলেন, তার দেহে কোনো ময়লা থাকবে না। আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেন, এটা হলো পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের উদাহরণ। এর মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা বান্দার গুনাহ মিটিয়ে দেন।’ (বুখারি, হাদিস : ৫২৮)

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা