kalerkantho

বুধবার । ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১২ সফর ১৪৪২

হাদিসের শিক্ষা

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাদিসের শিক্ষা

অস্ত্র নিয়ে মসজিদে প্রবেশে সতর্কতা

জাবির ইবনে আবদুল্লাহ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, এক ব্যক্তি তীর সঙ্গে করে মসজিদ-ই-নববী অতিক্রম করছিল। তখন আল্লাহর রাসুল (সা.) তাকে বলেন, এর ফলাগুলো হাত দিয়ে ধরে রাখো। (বুখারি, হাদিস : ৪৫১)

 

যেভাবে মদ বিক্রি হারাম হয়

আয়েশা (রা.) বলেন, সুদ সম্পর্কীয় সুরা বাকারার আয়াতসমূহ অবতীর্ণ হলে নবী (সা.) মসজিদে গিয়ে সেসব আয়াত সাহাবিদের পাঠ করে শোনালেন। অতঃপর তিনি মদের ব্যবসা হারাম করে দিলেন। (বুখারি, হাদিস : ৪৫৯)

 

রোগীদের জন্য মসজিদে তাঁবুর ব্যবস্থা করা

আয়েশা (রা.) বলেন, খন্দকের যুদ্ধে সাদ (রা.)-এর হাতের শিরা যখম হয়েছিল। নবী (সা.) মসজিদে (তাঁর জন্য) একটা তাঁবু স্থাপন করলেন, যাতে কাছ থেকে তাঁর দেখাশোনা করতে পারেন। মসজিদে বনু গিফারেরও একটা তাঁবু ছিল। সাদ (রা.)-এর প্রচুর রক্ত তাঁদের দিকে প্রবাহিত হওয়ায় তাঁরা ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে জিজ্ঞেস করলেন, হে তাঁবুর লোকেরা! তোমাদের তাঁবু থেকে আমাদের দিকে কী প্রবাহিত হচ্ছে? তখন দেখা গেল যে সাদের যখম থেকে রক্ত প্রবাহিত হচ্ছে। অবশেষে এতেই তিনি মারা গেলেন।

(বুখারি, হাদিস : ৪৬৩)

 

মসজিদে উচ্চৈঃস্বরে কথা বলা

সায়িব ইবনে ইয়াজিদ (রা.) বলেন, আমি মসজিদ-ই-নববীতে দাঁড়িয়ে ছিলাম। এমন সময় একজন লোক আমার দিকে একটা কাঁকর নিক্ষেপ করলেন। আমি তাঁর দিকে তাকিয়ে দেখলাম যে তিনি ওমর ইবনুল খাত্তাব (রা.)। তিনি বলেন, যাও, এ দুজনকে আমার কাছে নিয়ে এসো। আমি তাদের নিয়ে তাঁর কাছে এলাম। তিনি বলেন, তোমরা কারা? অথবা তিনি বলেন, তোমরা কোন স্থানের লোক? তারা বলল, আমরা তায়েফের অধিবাসী। তিনি বলেন, তোমরা যদি মদিনার লোক হতে, তবে আমি অবশ্যই তোমাদের কঠোর শাস্তি দিতাম। তোমরা দুজনে আল্লাহর রাসুল (সা.)-এর মসজিদে উচ্চৈঃস্বরে কথা বলেছ! (বুখারি, হাদিস : ৪৭০)

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা