kalerkantho

সোমবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৩ সফর ১৪৪২

আমেরিকায় লাতিনো মুসলিমদের হার বাড়ছে

১০ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমেরিকায় লাতিনো মুসলিমদের হার বাড়ছে

বেশ কিছু বছর ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে লাতিনো মুসলমানদের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ফ্লোরিডা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, তাদের ৯০ শতাংশই ধর্মান্তরিত মুসলিম এবং এদের বেশির ভাগ নারী। ফলে লাতিনো মুসলমানরা এখন ইসলামের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধমান জাতিতে পরিণত হয়েছে। (দ্য সিয়াসাত ডেইলি)

পিউ রিসার্চ সেন্টারের তথ্যানুসারে, ২০০৭ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের সংখ্যা ২.৫ মিলিয়ন থেকে ৩.৫ মিলিয়নে দাঁড়িয়েছে। চমকপ্রদ ব্যাপার এটাই যে তাদের মাঝে কোয়ার্টার মিলিয়নই লাতিনো মুসলিম।

হিজাবি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ইয়াসেমিন কানার মিয়ামির লাতিনো মুসলিমদের পরিচিত মুখ। হাই স্কুলে পড়াকালীনই তিনি মুসলিম পোশাকে চলাফেরা শুরু করেন। এভাবেই তিনি মিয়ামি গার্ডেনসের ভিকি বেকারিতে কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। তিনি পরিপূর্ণভাবে হিজাব পরিধান করে কাজে যেতেন, যা তাঁর সহকর্মীদের অবাক করত। নিউজউইককে কানার বলেন, ‘আমার এ বিষয়ে অন্যদের অভ্যস্ত হতে খানিক সময় লেগেছিল। তবে তারা সবাই আমার প্রতি অত্যন্ত সদয় ছিলেন, যখন আমরা স্প্যানিশ ভাষায় একে অপরের সঙ্গে কথা বলতাম তখন মনে হতো আমরা যেন একই মনের।’ বর্তমানে কানারের বয়স ৩০ বছর। তিনি বিবাহিত এবং দুই সন্তানের মা। তাঁর একটি নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে এবং এর মাধ্যমেই তিনি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। তিনি কিভাবে হিজাব বাঁধেন সেটি তিনি তাঁর চ্যানেলে পরিবার ও কাছের বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করেন। এরপর তিনি কিউবার বোনদের থেকে ইসলাম সম্পর্কিত অনেক প্রশ্ন পেতে থাকেন। তিনি বলেন, ‘যখন তারা (কিউবান বোনেরা) আমাকে প্রথম দেখেন, তারা কখনোই ভাবেননি যে আমি একজন কিউবান অথবা আমি স্প্যানিশ বলতে পারি। তারা আমাকে প্রথমে বাইরের কেউ হিসেবেই দেখত, যখন তারা বুঝতে পারল আমি স্প্যানিশে কথা বলতে পারি, তখন তারা যেন আমায় এক নতুনরূপে আবিষ্কার করল। তখন তাদের কাছে আমার হিজাব কোনো ব্যাপার হয়েই দাঁড়ায়নি। আমি যেন তাদেরই একজন হয়ে গেলাম।’

ওঝচট-এর সমীক্ষা অনুযায়ী, ২০০৯ সালে হিস্পানিক বা স্পেনীয়দের মধ্যে মুসলিমদের হার ছিল মাত্র ১ শতাংশ। ২০১৮ সালে তা ৭ শতাংশে উন্নীত হয়। ‘ইসলাম ইন স্প্যানিশ’-এর তথ্য মতে, আমেরিকায় দুই লাখ ৫০ হাজারের বেশি লাতিনো মুসলিম বসবাসরত। ১০ বছরেরও কম সময়ে ৭০০ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এই গতিতে আর কোনো ধর্মাবলম্বীর সংখ্যা বাড়েনি। ওই প্রতিষ্ঠানের গবেষণাপ্রধান ডালিয়া মোজাহেদ তাঁর গবেষণা সম্পর্কিত ই-মেইলে এসব কথা লিখেছেন। এই জনবিস্ফোরণের ফলস্বরূপ মসজিদগুলোতে স্প্যানিশ অনুবাদ সমৃদ্ধ কোরআনের সংখ্যা বাড়াতে হচ্ছে। সম্প্রদায়ের নেতারা তাঁদের সম্প্রদায়ের সদস্যদের বিভিন্ন দ্বিভাষী আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত করছেন।

স্প্যানিশ ও আরবির মধ্যে অনেক সম্পর্ক রয়েছে—আমেরিকান ইসলামিক রিলেশন কাউন্সিলের ফ্লোরিডা শহরের কমিউনিকেশন ডিরেক্টর উইলফ্রেডো রুইজও এ কথা বলেন। তিনি একজন লাতিনো কনভার্ট মুসলিম। এটাও একটা কারণ যে কেন অসংখ্য লাতিনোই আরবি ও ইসলামের সঙ্গে নিজেদের সম্পর্ক খুঁজে পায়।

অ্যাবাউট ইসলাম ও দ্য সিয়াসাত ডেইলি অবলম্বনে তাজুল ইসলাম

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা