kalerkantho

সোমবার । ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭। ১০ আগস্ট ২০২০ । ১৯ জিলহজ ১৪৪১

চামড়াশিল্প নিয়ে আলেমদের উদ্বেগ

আতাউর রহমান খসরু   

১৬ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চামড়াশিল্প নিয়ে আলেমদের উদ্বেগ

আসন্ন কোরবানির ঈদের আগে পশুর চামড়ার ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে দেশের চামড়াশিল্প ও দ্বিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন শীর্ষ আলেমরা। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘জাতীয় ওলামা পরিষদ’ কর্তৃক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তাঁরা এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আলেমরা আসন্ন কোরবানির ঈদের আগে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সংগতি রেখে চামড়ার দাম নির্ধারণ ও সংঘবদ্ধ চক্রের হাত থেকে চামড়াশিল্পকে রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন। তাঁরা বলেন, ‘কোরবানির সময় আসন্ন অথচ সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের কোনো তৎপরতা নেই। বিষয়টি অত্যন্ত হতাশা ও উদ্বেগের। কয়েক বছর ধরে একটি চক্র চামড়া খাতে নৈরাজ্য করে যাচ্ছে। ফলে চামড়াশিল্প ও বহু দ্বিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।’

মধুপুরের পীর মাওলানা আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আল্লামা নুর হোসাইন কাসেমী। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘আমি সরকারের প্রতি আহ্বান জানাব তারা যেন আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে মিল রেখে চামড়ার দাম নির্ধারণ করে দেন এবং চামড়ার বাজার নিয়ন্ত্রণ করেন। নতুবা এই দেশের একটি সম্ভাবনাময় শিল্প খাত ধ্বংস হয়ে যাবে এবং বহু দ্বিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

চামড়াশিল্প রক্ষায় দেশের গণমাধ্যমকেও সক্রিয় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তিনি।

মাওলানা আবদুল হামিদ বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলতে চাই, আপনি বিভিন্ন সময় মাদরাসা-মসজিদ ও আলেমদের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন। আমরা আশা করি, চামড়ার বাজার নিয়ন্ত্রণ করে আপনি দেশের দ্বিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর পাশে থাকবেন। চামড়াশিল্প রক্ষা করা গেলে দেশের অর্থনীতি ও দ্বিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান উভয়টি উপকৃত হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা জুনায়েদ আল-হাবিব, মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি, মাওলানা ফজলুল করিম প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলন শেষে জাতীয় ওলামা পরিষদ আগামী ১৭ জুলাই বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে সমাবেশ এবং ১৮ জুলাই জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা