kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

দুয়ারে রমজান

প্রস্তুতি নিন এখন থেকেই

মুফতি মুহাম্মাদ ইসমাঈল   

২৭ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



প্রস্তুতি নিন এখন থেকেই

রজব মাস শেষ। আজ থেকে শাবান মাস শুরু। এর পরই রমজান। রজবের শুরু থেকেই আমাদের পুণ্যবান পূর্বসূরিরা দোয়া করতেন, ‘আল্লাহুম্মা বারিক লানা ফি রজাবা ওয়া শাবান ওয়া বাল্লিগনা রমাদান’। অর্থ—হে আল্লাহ! আপনি আমাদের রজব ও শাবান মাসে বরকত দিন এবং আমাদের রমজান পর্যন্ত পৌঁছে দিন। তারা বছরের ছয় মাস আল্লাহর কাছে দোয়া করতেন, আল্লাহ যেন তাদের রমজান পর্যন্ত পৌঁছে দেন। আর ছয় মাস দোয়া করতেন, আল্লাহ যেন তাদের রমজান মাসের আমলগুলো কবুল করে নেন।

গৃহিণীর রমজান প্রস্তুতি : রমজানে গৃহিণীদের অতিরিক্ত রান্নাবাড়া থাকে। কাজের বেশি চাপ থাকে। তাই যে ভারী কাজগুলো রমজানের আগে সেরে নেওয়া যায়, সেগুলো আগেভাগে সেরে নিতে পারেন। যেন রমজানে ভারী কাজ করে শরীর দুর্বল হয়ে না পড়ে, রোজা রাখা কষ্টকর না হয়ে যায়। মূল্যবান সময়গুলো ইবাদত, তিলাওয়াত ও জিকির-আজকারে অতিবাহিত করা যায়। রমজানে প্রতিটি কাজের রুটিন করে নিতে পারেন। তাহলে সময়ে বরকত পাওয়া যাবে। এখন যেভাবে ঘর থেকে বের হচ্ছেন না, রমজানেও সেভাবে ঘর থেকে বের না হওয়ার সংকল্প করতে পারেন। এবং সেভাবে প্রস্তুতি নিতে পারেন।

স্কুল ছাত্র-ছাত্রীদের রমজান প্রস্তুতি : রমজানে স্কুলগুলো বন্ধ থাকে। এই সুযোগে কোরআন শেখা ও চর্চা করা যায়। কোরআন তিলাওয়াত না জানলে অথবা তিলাওয়াত অশুদ্ধ থাকলে এই সুযোগে শুদ্ধ তিলাওয়াত শেখার দৃঢ়সংকল্প করা যায়। অন্তত নামাজ পড়ার জন্য জরুরি পরিমাণ সুরা এবং নামাজের মাসায়েল ভালোভাবে শেখা চাই। যারা সহিহ-শুদ্ধরূপে কোরআন পড়তে পারেন তারা সাধ্যমতো বেশি বেশি তিলাওয়াত করার প্রিপারেশন নিতে পারেন। তবে ফেসবুক, ইউটিউব ও অনৈসলামিক টিভি প্রগ্রাম ইত্যাদিতে সময় নষ্ট না করার দৃঢ়সংকল্প গ্রহণ করতে হবে।

ব্যবসায়ীদের রমজান প্রস্তুতি : অধিক মুনাফার আশায় পণ্য মজুদ করাকে ইসলাম অবৈধ ঘোষণা করেছে। হানাফি মাজহাব মতে, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মজুদ করা মাকরুহ তাহরিমি (হারাম সমতুল্য)। অন্য মাজহাব মতে, এটি হারাম। কেননা এর ফলে সাধারণ মানুষ দুর্ভোগে পতিত হয়। রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘কেউ যদি খাদ্য গুদামজাত করে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে, আল্লাহ তাকে দুরারোগ্য ব্যাধি ও দারিদ্র্য দ্বারা শাস্তি দেন।’ (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ২২৩৮)

মজুদদারি না করে সৎ নিয়তে ব্যবসা করা ইবাদত। এমন ব্যক্তির উপার্জন আল্লাহ বরকতময় করে দেন। তাকে অপ্রত্যাশিত রিজিক দেন। নবীজি (সা.) বলেছেন, ‘খাঁটি ব্যবসায়ী রিজিকপ্রাপ্ত হয় আর পণ্য মজুদকারী অভিশপ্ত হয়।’ (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ২১৫৩)

তাই একজন ব্যবসায়ীর উচিত রমজানকেন্দ্রিক এমন একটি পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি গ্রহণ করা, যার দ্বারা তার ব্যবসা তার জন্য ইবাদত হবে, তার নাজাতের মাধ্যম হবে। প্রত্যেক ব্যবসায়ী এই প্রতিজ্ঞা করতে পারেন যে আমি রমজান উপলক্ষে কোনো পণ্যের দাম তো বাড়াবই না। বরং রোজাদারদের খেদমতের নিয়তে নিত্যপ্রয়োজনীয় প্রতিটি পণ্যের মূল্য দুই-এক টাকা কমিয়ে দেব।

চাকরিজীবীদের রমজান প্রস্তুতি : রমজান তো ভালো মানুষ হয়ে যাওয়ার ট্রেনিং কোর্স। চাকরিতে মালিককে না ঠকানো এবং ইবাদত ছেড়ে নিজেও না ঠকার প্রশিক্ষণ নিতে হবে রমজানে। অনৈতিক কোনো অভ্যাস থাকলে তা ছেড়ে দেওয়ার সংকল্প করতে হবে। কর্মব্যস্ততার ভেতরেও কিভাবে বেশি ইবাদত করা যায়, তার পরিকল্পনা করা উচিত। অফিসের কাজের ফাঁকে ও অফিসে যেতে-আসতে যে সময় রাস্তায় কাটে, তা-ও ইবাদতে কিভাবে কাটানো যায় তার একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করা যেতে পারে।

সম্পদশালীদের রমজান প্রস্তুতি : প্রত্যেক ধনাঢ্য মুসলমানের উচিত রমজানকেন্দ্রিক আর্থিক একটি পরিকল্পনা করা। অভাবী প্রতিবেশী কিংবা আত্মীয়-স্বজনের কাছে ইফতারসহ নিত্যপণ্য কিনে পাঠানো যেতে পারে। রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘কেউ কোনো রোজাদারকে ইফতার করালে সে উক্ত রোজাদারের সমান সওয়াব পাবে। তবে এতে ওই রোজাদারের সওয়াব একটুও কমবে না।’ (তিরমিজি : ৩/১৭১)

যাদের ওপর জাকাত ফরজ, তাদের আগে থেকেই রমজানকেন্দ্রিক জাকাতের পরিকল্পনা করে নেওয়া উচিত। কোথায় কোথায় জাকাত দেবেন, কী পরিমাণ দেবেন এবং কোন পদ্ধতিতে দিলে বেশি সওয়াব পাওয়া যাবে এখন থেকেই সে পরিকল্পনা গ্রহণ করা যেতে পারে।

হাফেজদের রমজান প্রস্তুতি : যারা আদর্শ হাফেজ, কোরআনের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক কখনো শিথিল হয় না। সারা বছরই তারা কোরআনের সঙ্গে একই রকম সম্পর্ক বজায় রাখেন। যারা সারা বছর কোরআন তিলাওয়াতের পেছনে যথাযথ সময় দিতে পরেননি; কিন্তু রমজানে তারাবি নামাজ পড়ানোর ইচ্ছা রাখেন, তাদের এখন থেকেই কোরআনের পেছনে প্রচুর সময় দিতে হবে। তিলাওয়াতের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে হবে। তবেই রমজান মাস পেরেশানমুক্ত হয়ে কাটানো যাবে। মুসল্লিরাও তিলাওয়াত শুনে মজা পাবেন।

এ ছাড়া যত শ্রেণির মানুষ রয়েছেন সবার যার যার মতো করে রমজানের প্রস্তুতি গ্রহণ করা উচিত। আল্লাহ আমাদের তওফিক দান করুন।

লেখক : মুহাদ্দিস, জামিয়া আম্বরশাহ আল ইসলামিয়া, কারওয়ান বাজার, ঢাকা।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা