kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

আলোর পথে

যে কারণে মুসলিম হলেন কানাডিয়ান তারকা রোজি গ্যাভরিয়াল

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যে কারণে মুসলিম হলেন কানাডিয়ান তারকা রোজি গ্যাভরিয়াল

রোজি গ্যাভরিয়াল (৩১) একজন কানাডিয়ান মডেল, ফটোগ্রাফার ও ট্রাভেল ব্লগার। মোটরসাইকেলে বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে ভ্রমণ করেন। দীর্ঘ এক যুগ ধরে তিনি ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, লাউস, মরক্কোসহ এশিয়ার নানা দেশ চষে বেড়িয়েছেন। প্রায় এক বছর আগে গ্যাভরিয়াল পাকিস্তান সফর করেন। এই সফর তাঁর অন্তরজগতে ব্যাপক পরিবর্তন আনে। তারই ধারাবাহিকতায় সামাজিক মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে ৯ জানুয়ারি ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা দেন। যেখানে তিনি তাঁর ইসলাম গ্রহণের কারণ ব্যাখ্যা করেন। ইনস্টাগ্রামে একজনের প্রশ্নের উত্তরে জানিয়েছেন, আগামী বছরই তিনি হজ ও ওমরাহ করতে চান। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন কাসেম শরীফ

 

গ্যাভরিয়াল লিখেছেন, ‘যেমনটি আমি আগেও বলেছিলাম, বিগত বছরটি ছিল আমার জীবনের কঠিনতম সময়। জীবনের নানা চ্যালেঞ্জ আমাকে আজ এই অবস্থানে নিয়ে এসেছে। শৈশব থেকেই সৃষ্টিজগৎ ও স্রষ্টার সঙ্গে আমার একটি বিশেষ যোগাযোগ সম্পর্ক ছিল। তবে আমার পথ সহজ ছিল না। সারা জীবন আমি অসহনীয় ব্যথা বয়ে বেড়িয়েছি। ফলে আমার হৃদয়ে ছিল অপরিমেয় ক্ষোভ। স্রষ্টাকে বলতাম, কেন আমার সঙ্গে এমন হয়? অবশেষে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পেরেছি, সব কিছু আমার কল্যাণের জন্যই হয়েছে; এমনকি ব্যথাগুলোও ছিল আমার জন্য উপহার।

আমি যে বিশ্বাস নিয়ে বড় হয়েছি, তা আমাকে আকর্ষণ করতে পারেনি। চার বছর আগেই আমি পারিবারিক ধর্মবিশ্বাস ত্যাগ করে আধ্যাত্মিকতার পথ অনুসন্ধানে মনোযোগী হই। আত্মপরিচয় ও স্রষ্টার পরিচয় লাভের চেষ্টা করি। তবে স্রষ্টা পর্যন্ত পৌঁছাতে পারিনি। যদিও আমার কৌতূহল ও স্রষ্টার সঙ্গে আমার সম্পর্ক দৃঢ় হচ্ছিল। এখন আমি কোনো সংকোচ ছাড়াই বলতে পারি, আমি সঠিক পথ অনুসন্ধানে সক্ষম হয়েছি।

অতীতে সময় যত গড়িয়েছে, আমি যত অভিজ্ঞ হয়েছি, পৃথিবী ও প্রকৃতি দেখেছি এবং জীবন আমাকে আহ্বান করেছে, আমি ততই স্বাধীনতা চেয়েছি, মুক্তি চেয়েছি ব্যথা ও বন্দিত্ব থেকে। যে জীবন ছিল নারকীয়। আরো চেয়েছিলাম অভিমান, আঘাত ও অসহায়ত্ব থেকে বাঁচতে। আমি চাইতাম আমার অন্তর শান্তি, ক্ষমা ও গভীর হৃদ্যতায় ভরে যাক। এভাবেই ইসলামের পথে আমার যাত্রা শুরু।

মহাজাগতিক সম্পর্ক আমাকে পাকিস্তানে টেনে নিয়ে আসে। এটা শুধু আমার ব্যথা ও অহমিকার শেষ রেখার প্রতি চ্যালেঞ্জ ছিল না; বরং তা ছিল আমার জীবনের পথপ্রদর্শন। তীর্থযাত্রায় (পাকিস্তান সফর) মানুষের দয়া, অনুগ্রহ ও বিনয় আমাকে তাদের প্রতি আরো অনুসন্ধিত্সু করে তোলে, তাদের প্রতি আমি আগ্রহী হই। একটি মুসলিম দেশে ১০ বছরের বেশি সময় অবস্থান এবং এই অঞ্চলে ভ্রমণের সময় ‘শান্তি’র খোঁজ পাই। (পশ্চিমা সমাজের) মানুষ কেবল যার স্বপ্ন হৃদয়ে লালন করতে পারে।

দুর্ভাগ্যক্রমে সমগ্র পৃথিবীতে ইসলামের সবচেয়ে বেশি ভুল ব্যাখ্যা করা হয় এবং তার সমালোচনা করা হয়। সব ধর্মের মতো ইসলামের একটি নিজস্ব ব্যাখ্যা রয়েছে। তবে ইসলামের মূল বাণী হলো, একত্ববাদ, শান্তি ও ভালোবাসা। ইসলাম শুধু ধর্ম নয়, এটি একটি জীবনবিধান। মানবিক, বিনম্র ও ভালোবাসার জীবন। প্রকৃতপক্ষে আগে থেকেই আমি আনুষ্ঠানিক মুসলিম ছিলাম। আমার ‘শাহাদাহ’ (কালেমা পাঠ) স্রষ্টার উদ্দেশে আমার জীবনকে নতুন করে একত্ববাদ, শান্তি ও আধ্যাত্মিক সম্পর্কের পথে উৎসর্গ করা।

সূত্র : বিরেকর্ডার

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা