kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

নওমুসলিমের কথা

বিজ্ঞান ক্লাসে বসে ভাবতাম মহাজগতের স্রষ্টা কে?

জুনায়েদ হাবীব   

১২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিজ্ঞান ক্লাসে বসে ভাবতাম মহাজগতের স্রষ্টা কে?

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে আবারও আলোচনায় এসেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার খ্যাতিম্যান ইউটিউবার জে কিম। সম্প্রতি তিনি তাঁর অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল ও ইনস্টাগ্রামে ৬ মিনিট ১ সেকেন্ডের এক ভিডিও বার্তায় ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা দেন। যা মুহূর্তের ভেতর সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। ইসলাম গ্রহণের পর জে কিম তাঁর ইউটিউব চ্যানেলের প্রফাইলের কভারে মসজিদের গম্বুজের ছবি দিয়েছেন। এমনকি তাঁর ইউটিউব অ্যাকাউন্টের নামও বদল করেছেন।

আল-হামদুলিল্লাহ শিরোনামে ৬ মিনিট ১ সেকেন্ডের খুদে ভিডিওতে জে কিমকে কালিমা পাঠ ও ইসলামের মৌলিক বিষয় শিখতে দেখা যায়। একজন আলেম তাঁকে এসব শেখাচ্ছেন। ইসলাম গ্রহণের পর জে কিম তাঁর নাম পাল্টে ‘দাউদ কিম’ হয়েছেন। ভিডিও বার্তায় দাউদ কিম বলেন, ‘একটি ক্যাথলিক পরিবারে আমার জন্ম। আমার নাম ছিল ডেভিড। আমি ক্যাথলিক ধর্ম বিশ্বাসে আস্থাশীল ছিলাম না। এমনকি শৈশব থেকে ধর্ম নিয়ে আমি চিন্তিত ছিলাম না। কিন্তু বড় হওয়ার পর ইসলাম আমার মনোযোগ আকর্ষণ করে।

দীর্ঘ অধ্যয়ন ও অনুসন্ধানের পর আমি বুঝতে পারি ইসলাম ধর্ম কী এবং কেন? আমাকে আমার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শেখানো হতো বায়ু কিভাবে তৈরি হলো, আকাশ কিভাবে তৈরি হলো, সাগর কিভাবে তৈরি হলো—এসব সম্পর্কে আমার জ্ঞান যত সমৃদ্ধ হতে লাগল, আমার ভেতর একটি প্রশ্ন প্রকট হতে লাগল, এসবের স্রষ্টা কে? এসব সৃষ্টির রহস্য কী? আধুনিক বিজ্ঞানে আমি তার মনঃপূত উত্তর পাইনি। এরই মধ্যে কিছু মুসলিমের সঙ্গে আমার সখ্য গড়ে ওঠে। তারা আমাকে স্রষ্টা সম্পর্কে যে উত্তর দেয় তাতে আমার মন তৃপ্ত হয়। এর পরই আমি ‘ইসলাম’ জানার ও বোঝার চেষ্টা করি।

দক্ষিণ কোরিয়ার তরুণ জনপ্রিয় এ ইউটিউবার গায়ক ও গীতিকার হিসেবে কর্মজীবনে পদার্পণ করেন। তাঁর ইউটিউব অ্যাকাউন্টে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের ঘোষণা দেওয়ার পূর্বেও তিনি ইসলামবিষয়ক কয়েকটি ভিডিও আপলোড করেন। এতে তাঁর ইসলাম গ্রহণের গুঞ্জন শুরু হয়। অবশেষে ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তিনি নিজেই ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘আসসালামু আলাইকুম! আমি মূলত ধীরে ধীরে ইসলামের প্রতি আগ্রহী হয়েছি। আমার জীবনের অনেক কিছু বদলে গেছে। যদিও আমি এখনো পুরোপুরি প্রস্তুত নই, তবে আমি একজন ভালো মুসলিম হওয়ার চেষ্টা করব। জীবনে অনেক পাপ করেছি। আমি আমার পাপের জন্য অনুশোচনা করে আল্লাহর সামনে দাঁড়াতে চাই।’

কিম আরো বলেন, ‘যদিও আমি জন্মসূত্রে মুসলিম নই। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি, আল্লাহ আমার সঙ্গে সব সময় ছিলেন, আছেন। আমি আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি যে, তিনি আমাকে এটা বোঝার তাওফিক দিয়েছেন এবং আমাকে সঠিক পথ দেখিয়েছেন। আল্লাহ ছাড়া কোনো উপাস্য নেই। মুহাম্মাদ (সাঃ) আল্লাহর রাসুল।’

একসময়ের জনপ্রিয় পপ তারকা ও তরুণ ইউটিবার জে কিমের ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা সংক্রান্ত ভিডিওটির ভিউ সংখ্যা দুই মিলিয়ন ছাড়িয়েছে। বর্তমানে তাঁর ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সাত লাখ ৫১ হাজারেরও বেশি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা