kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

যে ১১ মুসলিম মহাকাশ ভ্রমণ করেছেন

১৯৬১ সালে ইউরি গ্যাগারিনের মাধ্যমে মহাশূন্যে মানুষের যাত্রা শুরু হয়। এরপর বহু মানুষ এ পর্যন্ত মহাশূন্যে গিয়েছে। মহাকাশ গবেষণার পাশাপাশি সামরিক ও বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে মহাকাশে। তবু মানুষের কাছে মহাকাশযাত্রা এখনো রোমাঞ্চকর। মহাকাশচারীদের নিয়ে তাদের কৌতূহলেরও শেষ নেই। এ পর্যন্ত মহাকাশ ভ্রমণকারী মানুষের মধ্যে ১১ জন মুসলিমও রয়েছেন। তাঁদের পরিচয় তুলে ধরেছেন আতাউর রহমান খসরু

১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যে ১১ মুসলিম মহাকাশ ভ্রমণ করেছেন

সুলতান বিন সালমান আল সউদ

সৌদি আরবের নাগরিক সুলতান বিন সালমান আল সউদ ১৭ জুন ১৯৮৫ মহাকাশে যাত্রা করেন। তিনিই ছিলেন প্রথম মুসলিম মহাকাশচারী। একই সঙ্গে তিনি আরব ও সৌদি আরবের প্রথম মহাকাশযাত্রী।

তাঁর মিশনের নাম ছিল ‘এসটিএস-৫১-জি’ (STS-51-G)|

 

মুহাম্মদ ফারিস

সুলতান বিন সালমানের পর দ্বিতীয় মুসলিম ও প্রথম সিরিয়ান নাগরিক হিসেবে মহাকাশে যাত্রা করেন মুহাম্মদ ফারিস। তিনি ২২ জুলাই ১৯৮৭ মহাকাশে যাত্রা করেন। তাঁর মিশনের নাম ছিল ‘মির ইপি-১’ (Mir EP-1)|

 

মুসা মানারোভ

তৃতীয় মুসলিম হিসেবে মহাকাশে যান আজারবাইজানের নাগরিক মুসা মানারোভ। তিনি মহাকাশে যাত্রা করা প্রথম আজারবাইজানি। মুসা মানারোভ ১৯৮৭ সালে ‘মির ইও-৩’ (Mir EO-3) এবং ১৯৯০ সালে সুয়ুজ টিএম-১১ (Soyuz TM-11) মিশনে দুইবার মহাকাশে যান। তিনি মোট ৫৪১ দিন মহাকাশে অবস্থান করেন।

 

আবদুল আহাদ মোহমান্দ

আফগানিস্তানের নাগরিক আবদুল আহাদ মোহমান্দ প্রথম আফগান নাগরিক হিসেবে মহাকাশে যাত্রা করেন।

মিশন ‘ইপি-৩’ (Mir EP-3)-এর অংশ হিসেবে তিনি ২৯ আগস্ট ১৯৮৮ মহাকাশে যান।

 

তোকতার আবু বাকিরাভ

কাজাখস্তানের নাগরিক আবু বাকিরাভ ২ অক্টোর ১৯৯১ পরিচালিত ‘সুয়ুজ টিএম-১৩’ (Soyuz TM-13) মিশনে মহাকাশে যাত্রা করেন।

তিনি মহাকাশচারী প্রথম ‘কাজাখ’।

 

তালগাত মুসাবায়েভ

দ্বিতীয় ‘কাজাখ’ হিসেবে তিনি মহাকাশে যাত্রা করেন। তিনটি মিশনে গিয়ে তিনি মোট ৩৪১ দিন মহাকাশে অবস্থান করেন। তাঁর মিশনগুলো হচ্ছে—সুয়ুজ টিএম-১৯ (৪ নভেম্বর ১৯৯৪), সুয়ুজ টিএম-১৭ (২৫ আগস্ট ১৯৯৮) ও সুয়ুজ টিএম-৩২ (৬ মে ২০০১)।

 

সালিজান সারিপভ

রুশ নাগরিক সালিজান সারিপভ দুইবার মহাকাশে যান এবং সেখানে ২০১ দিন অবস্থান করেন। প্রথমবার ২০ জানুয়ারি ১৯৯৮ এসটিএস-৮৯ (STS-89) মিশনে এবং দ্বিতীয়বার ১৪ অক্টোবর ২০০৪ ‘এক্সপেডিশন-১০’ (Expedition-10) মিশনে তিনি মহাকাশে যান।

 

আনুশাহ আনসারি

প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে মহাকাশে যান ইরানের নাগরিক আনুশাহ আনসারি। তিনি ১৮ সেপ্টেম্বর ২০০৬ ‘সুয়ুজ টিএমএ-৯’ (Soyuz TMA-9) মিশনে মহাকাশে যান।

 

শায়খ মুজাফফর শুকুর

প্রথম মালয়েশিয়ান নাগরিক হিসেবে মহাকাশে যান শায়খ মুজাফফর শুকুর। ১০ অক্টোবর ২০০৭ তিনি ‘টিএমএ-১১’ (TMA-11) মহাকাশে যান। যাত্রা শেষে তিনি মহাকাশে নামাজ আদায়ের ভিডিও প্রকাশ করেন।

 

আইদান আমবিতাভ

তৃতীয় ‘কাজাখ’ নাগরিক হিসেবে মহাকাশে যাত্রা করেন আইদান আমবিতাভ।

তিনি ২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ‘সুয়ুজ টিএমএ-১৮এম’ (Soyuz TMA-18M) মিশনে অংশগ্রহণ করেন।

 

হাজ্জা আল মানসুরি

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ মহাকাশে যান আরব আমিরাতের নাগরিক হাজ্জা আল মানসুরি। মহাকাশে যাওয়া প্রথম ‘আমিরাতি’ নাগরিক তিনি। আল মানসুরি মহাকাশ থেকে মক্কা নগরী ও মসজিদুল হারামের ছবি তুলে পাঠিয়েছেন। তাঁর মিশনের নাম ‘সুয়ুজ এমএস-১৫’ ((Soyuz MS-15)।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা